smc
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৭ কার্তিক ১৪২৭

ঝালকাঠিতে টানা বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষতি: জনজীবন বিপর্যস্ত

  ঝালকাঠি প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

|  ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:০৩ | আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:০৭
Some are protecting from the rain
মাথায় পলিথিন দিয়ে বৃষ্টির হাত থেকে নিজেদের রক্ষা করতে কয়েক জনের প্রচেষ্টা
দক্ষিণের উপকূলীয় জেলা ঝালকাঠিতে বৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুর থেকে মুসল ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। ভাটায় সুগন্ধা, বিষখালীসহ অন্যান্য নদ-নদী পানি কমলেও বৃষ্টিতে খেতখামার তলিয়ে রয়েছে। সাগরে সৃষ্ট লঘুচাপ এবং মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে টানা বৃষ্টিপাতের কারণে জেলার নদ-নদীগুলোর পানি বেড়ে বন্য পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি টানা বৃষ্টিতে পানি জমে দুর্ভোগ বাড়িয়ে দিয়েছে। 

গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে রোপা আমন এবং আগাম রবি ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কৃষকরা জানিয়েছে, ক্ষেত থেকে পানি দ্রুত না কমলে আমন ফসল মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়বে। এছাড়া ফুলকপি, বাঁধাকপি, লাল শাক, পালং শাকসহ শীতকালীন সবজি উৎপাদনও ক্ষতিগ্রস্ত হবে। 

বিষখালী নদীর ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে সামান্য জোয়ারে পানি ঢুকে পড়ে কাঁঠালিয়া ও রাজাপুর উপজেলার নদী তীরের গ্রামগুলোতে। একদিকে বৃষ্টির পানি অন্যদিকে জোয়ারের পানিতে শহর ও গ্রামের রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় পানি ভেঙে যাতায়াত করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। 

কৃষক আবদুর রহিম বলেন, পানি বন্যায় আমাদের ফসলের অনেক ক্ষতি হয়েছে। পানিতে আমনের বীজ নষ্ট হয়েছে। তার পরে অনেক কষ্ট করে আমন আবাদ করেছি। এভাবে বৃষ্টি ও পানি থাকলে রোপা আমন নষ্ট হয়ে যাবে।  

কৃষক বিমল বলেন, বৃষ্টিতে লাল শাক, পালং শাক লাউ শাক নষ্ট হয়ে গেছে। বৃষ্টি বেশি দিন থাকলে আমরা ফসল ফলাতে পারবো না। শীতকালীন সবজি উৎপাদন ব্যাহত হবে। 

তবে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্যমতে, চলতি মৌসুমে জেলায় ৪৮ হাজার হেক্টর জমিতে আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু কয়েক দফা ভারী বর্ষণ এবং পানি বৃদ্ধির কারণে এখনো রোপণ সম্পূর্ণ হয়নি। বন্যার প্রভাব কমে গেলে বাকী জমি রোপণ সম্পন্ন হবে বলে আশা করছে কৃষিবিভাগ।

জিএ

RTVPLUS
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৩৯০২০৬ ৩০৫৫৯৯ ৫৬৮১
বিশ্ব ৪,০৩,৮২,৮৬২ ৩,০১,৬৯,০৫২ ১১,১৯,৭৪৮
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়