logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

দুর্ভোগের আরেক নাম মগবাজার-মালিবাগ ফ্লাইওভার

শাহাবুদ্দিন শিহাব
|  ২৪ মে ২০১৯, ১৭:৩৭ | আপডেট : ২৪ মে ২০১৯, ১৭:৪৬
দুর্ভোগের আরেক নাম রাজধানীর মগবাজার-মালিবাগ ফ্লাইওভার। অনিয়ম-অব্যবস্থাপনা ও যথাযথ দেখভালের অভাবে, জৌলুস হারাচ্ছে হাজার কোটি টাকা খরচে নির্মিত ফ্লাইওভারটি। সেতু রক্ষণাবেক্ষণে জবাবদিহিতা ও কঠোর নজরদারির দাবি জানান ভুক্তভোগীরা। যদিও সমস্যা সমাধানে প্রতিশ্রুতি দিলো ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন।

whirpool
রাজধানীর মগবাজার, হাতিরঝিল, মৌচাক, মালিবাগ, শান্তিনগর, শাহজাহানপুর এলাকার যানজট কমানোর লক্ষ্যে হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি করা হয় নয় কিলোমিটার দীর্ঘ মৌচাক-মগবাজার ফ্লাইওভার। কিন্তু নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার সময় থেকেই সেতুটি চলে যায় বাণিজ্যিক ও রাজনৈতিক ব্যানার, ফেস্টুন আর পোস্টারবাজদের দখলে। যেন ফ্লাইওভারটি রাষ্ট্র তৈরি করেছে এসব পরিবেশ দূষণকারী কোম্পানি ও আইনভঙ্গকারী ব্যক্তিদের প্রচার দেয়াল হিসেবে।

এদিকে বছরের পর বছর ধরে নিউ ইস্কাটনের সড়ক ও ফুটপাতজুড়ে গড়ে ওঠা ডাস্টবিনের ভয়াবহ যন্ত্রণা ছাত্র-ছাত্রী, পথচারী ও স্থানীয়রা ভোগ করলেও সরানোর কোনো নাম গন্ধ নেই!

উড়াল সড়কের নিচে কোথাওবা গড়ে তোলা হয়েছে কার পার্কিং। কোথাওবা আবার অবৈধ দখলের রাম রাজত্ব। ফ্লাইওভারের উপরে ধূলাবালি, ময়লা-আবর্জনা পড়ে থাকে দিনের পর দিন। পরিষ্কার করার যেন কেউ নেই!

সেতু নির্মাণের সময় ও পরে নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ও দুর্ভোগের শিকার হয়ে আসছেন ২৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা বলে জানান ওয়ার্ড কাউন্সিলর। তবে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশেনের প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা।

জনগণের দুর্ভোগের বিষয়টি উপলব্ধি করে, শিগগিরই সবধরনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন কর্তৃপক্ষ, এমন প্রত্যাশা নগরবাসীর।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়