logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬

ঘূর্ণিঝড় ফণী: চট্টগ্রাম বন্দরের কার্যক্রম বন্ধ

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট, চট্টগ্রাম
|  ০২ মে ২০১৯, ১৩:৩৩
শক্তিশালী হয়ে গেছে ঘূর্ণিঝড় ফণী। বেড়েছে গতি। অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী আগামীকাল শুক্রবার বাংলাদেশে আঘাত হানবে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। 

ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে ৬ নম্বর বিপদসংকেত জারির পর চট্টগ্রাম সুমদ্রবন্দরে সব ধরনের অপারেশনাল কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেছে। বন্দরের জেটি ও বহির্নোঙ্গরের জাহাজ থেকে পণ্য ওঠানামা বন্ধ রয়েছে। কর্ণফুলী থেকে কোনও লাইটারেজ জাহাজও বঙ্গোপসাগরে বহির্নোঙ্গরে যাচ্ছে না।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে প্রচারিত বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়।

একই সঙ্গে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ৬ (ছয়) নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে বলে উল্লেখ করা হয়।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মো. ওমর ফারুক জানান, আবহাওয়া অফিস থেকে ছয় নম্বর বিপদ সংকেত দেখানো হলেই বন্দরের অপারেশনাল কর্মকাণ্ড বন্ধ রাখা হয়েছে। জেটিতে থাকা জাহাজগুলোকে বহির্নোঙ্গরে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় পরিস্থিতিকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে বন্দরে তিনটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষে খোলা হয়েছে।

তিনি জানান, চট্টগ্রাম বন্দর ও বহির্নোঙ্গরে মিলিয়ে বৃহস্পতিবার (২ মে) সকালে মোট জাহাজ ছিল ১৬৮টি। এর মধ্যে পণ্যবোঝাই জাহাজ ছিল ৮০টি। আবার এর মধ্যে ১৬টি জাহাজ জেটিতে পণ্য খালাসের জন্য নোঙ্গর করা ছিল। বাকি ৬৪টি জাহাজ ছিল বর্হিনোঙ্গরে। ৬ নম্বর বিপদসংকেত জারির পর জেটি থেকে ১৬টি জাহাজকে সরানো হচ্ছে।

এর আগে বুধবার সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়কে সামনে রেখে জরুরি সভা করে বন্দর কর্তৃপক্ষ। বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল জুলফিকার আজিজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বন্দরের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা, বিভাগীয় প্রধান, টার্মিনাল অপারেটরের প্রতিনিধি এবং স্টেক হোল্ডারের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্যে বলা হয়, ফণী বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্র বন্দর থেকে ১ হাজার ২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৯শ ১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৯২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

আগামীকাল শুক্রবার সকাল নাগাদ খুলনা ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ‘ফণী’-এর অগ্রবর্তী অংশে প্রভাব শুরু হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • ঘূর্ণিঝড় ফণী এর সর্বশেষ
  • ঘূর্ণিঝড় ফণী এর পাঠক প্রিয়