Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ০২ আগস্ট ২০২১, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮

হজ এজেন্সি সৌদিতে ঠকালে বিচার হবে বাংলাদেশে

হজ এজেন্সি সৌদিতে ঠকালে বিচার হবে বাংলাদেশে: ফাইল ছবি

হজ ও ওমরা এজেন্সিকে শর্ত মেনে নিবন্ধন নিতে জাতীয় সংসদে ‘হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থাপনা বিল-২০২১’ পাস করা হয়েছে। এখন কোনো হজ এজেন্সি সৌদি আরব গিয়ে অপরাধে জড়ালে বাংলাদেশে বিচারের বিধান রাখা হয়েছে। হজ এজেন্সিগুলো অনিয়ম করলে তাদের নিবন্ধন বাতিলের পাশাপাশি সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা জরিমানা করা হবে।

মঙ্গলবার (১৫ জুন) ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান জাতীয় সংসদে বিলটি পাসের প্রস্তাব করলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়।

স্বাধীনতার ৫০ বছর পর হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থানায় নতুন বিল পাস হয়েছে। এ বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, হজ এজেন্সিগুলোর এতোদিন কোনো সংবিধিবদ্ধ আইন ছিল না। নির্বাহী আদেশ, নীতিমালা, পরিপত্র ইত্যাদি দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে। এখন সংসদে বিল পাস হওয়ার পর কোনো হজ ও ওমরাহ এজেন্সি ঠকালে বাংলাদেশে বিচারের সুযোগ থাকছে।

বিলে বলা হয়েছে, হজের চুক্তি এখানে হওয়ার পরে কেউ সৌদিতে গিয়ে ঠকালে তবে ওই অপরাধ বাংলাদেশে হয়েছে বলে গণ্য করে এই আইন অনুযায়ী বিচার করা হবে। নিবন্ধন পেতে হলে হজ এজেন্সিকে তিন বছর এবং ওমরাহ এজেন্সিকে দুই বছরের ট্রাভেল এজেন্সি পরিচালনার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

বিলে বলা হয়েছে, হজ এজেন্সিগুলো অনিয়ম করলে তাদের নিবন্ধন বাতিলের পাশাপাশি সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা জরিমানা করা হবে। আর ওমরা এজেন্সি অনিয়ম করলে তারা নিবন্ধন হারানোর সঙ্গে সর্বোচ্চ ১৫ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানার মুখে পড়বে। এছাড়া জামানত বাজেয়াপ্ত, নিবন্ধন স্থগিত, সতর্কীকরণ ও তিরস্কারের শাস্তি রয়েছে।

বিলে বলা হয়েছে, কোনো এজেন্সি পরপর দুইবার তিরস্কৃত হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তার নিবন্ধন দুই বছরের জন্য স্থগিত হয়ে যাবে। কোনো এজেন্সির নিবন্ধন বাতিল হলে ওই এজেন্সির অংশীদার বা স্বত্বাধিকারীরা পরে কখনও হজ বা ওমরা এজেন্সির নিবন্ধন পাবে না। অন্যকোনো এজেন্সির কাজেও সম্পৃক্ত হতে পারবে না।

এতে বলা হয়েছে হজ এজেন্সিগুলো স্বত্ত্ব পরিবর্তন করতে চাইলে নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে। হজ ব্যবস্থাপনার সঙ্গে সম্পৃক্ত মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও অন্যান্য সরকারি সংস্থাগুলোর দায়-দায়িত্ব আইনি বিধি-বিধান দ্বারা সুস্পষ্ট করা হলে তা হজ ব্যবস্থাপনাকে আরও দক্ষ ও গতিশীল করতে সহায়ক হবে।

এফএ

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS