Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

গণপরিবহন চালু নিয়ে পরিবহন শ্রমিকদের মন্তব্য

গণপরিবহন চালু নিয়ে পরিবহন শ্রমিকদের মন্তব্য

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকারের ঘোষিত লকডাউনে গণপরিবহন দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার খুলে দেয়ার ঘোষণা আসায় স্বস্তি ফিরেছে শ্রমিকদের মাঝে।

শিকড় পরিবহনের বাস চালক নিজামুদ্দিন বলেন, যখন গাড়ি চালাই তখনই আমরা খেতে পারি। আমরা কারো কাছ থেকে কোনো প্রকার সাহায্য সহযোগিতাও পাইনি। কোম্পানিও কোনো ধরনের সাহায্য সহযোগিতা করেনি। ধার-দেনা করে লকডাউনে চলেছি।

কোম্পানির বাস চালক মো. সবুজ বলেন, গণপরিবহন বন্ধ থাকায় সংসার চালানো কষ্ট কর হয়ে পড়েছে। বাকি কয়দিন বসে থাকতে হবে। যদি সরকার আবার গণপরিবহন বন্ধের ঘোষণা দেয় তখন চুরি-ছিনতাই করা ছাড়া আর কোনো পথ থাকবে না।

টেম্পু চালক নূর ইসলাম বলেন, ফের গণপরিবহন চলাচল বন্ধের নির্দেশনা এলে আত্মহত্যা করা বা চুরি করা ছাড়া আমার আর কোনো উপায় থাকবে না।

পরিস্থান পরিবহনের বাস চালক সিরাজ মোল্লা বলেন, রাস্তায় গাড়ি চললে পুলিশকে চাঁদা দিতে হয়। কিন্তু লকডাউনে গাড়ি বন্ধ থাকায় কোনো পুলিশ সদস্য এই পরিবহন শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ায়নি। আর কয়েকটা দিন পরেই ঈদ। বউ বাচ্চাকে কি কিনে দিবো। মা-বাবাকেও কি বা দিবো। নিজের কথা না হয় বাদই দিলাম। সবাই ঈদ করতে পারবে কিন্তু পরিবহন শ্রমিকরা ঈদ করতে পারবেনা।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে শর্তসাপেক্ষে আগামী ৬ মে থেকে জেলার ভেতরে গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে। যেমন- ঢাকা জেলার মধ্যে থাকতে হবে। লঞ্চ এবং ট্রেন বন্ধ থাকবে। যেহেতু ওগুলো এক জেলা থেকে আরেক জেলায় যায়। সুতরাং বন্ধ থাকবে।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS