logo
  • ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ৩ মাঘ ১৪২৭

প্রস্তাবিত বাজেটে আরোপিত ভ্যাট-ট্যাক্স নিয়ে সন্তুষ্ট নন ব্যবসায়ীরা (ভিডিও)

New fiscal year, proposed budget, VAT, dissatisfaction of traders
ফাইল ছবি।
করোনাকালে নতুন অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে আরোপিত ভ্যাট-ট্যাক্স নিয়ে সন্তুষ্ট নন ব্যবসায়ীরা। তাই এ নিয়ে এনবিআরসহ অর্থ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠক করতে চান তারা। বিশ্লেষকরাও বলছেন, রাজস্বের খড়গ ব্যবসায়ীদের ওপর চাপিয়ে দেয়ার আগে তাদের মতামত নেয়া জরুরি।

প্রতি বছর বাজেট পেশের আগে ও পরে ব্যবসায়ীদের মতামত জানতে প্রাক ও পোস্ট বাজেট আলোচনার আয়োজন করে এনবিআর ও অর্থ মন্ত্রণালয়। কোভিড মহামারি কারণে এবার প্রাক-বাজেট আলোচনা শুরু করা হলেও পরে তা এগোয়নি। বাজেট প্রস্তাবের পরও নেয়া হচ্ছে না ব্যবসায়ীদের মতামত।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, করোনায় বিপর্যস্ত অর্থনীতির মধ্যে দেয়া নতুন অর্থবছরের বাজেটে তাদের বেশির ভাগ দাবি-দাওয়ারই প্রতিফলন নেই। তাই বাজেট পাশের আগেই এর সমাধান চান তারা। 

এ বিষয়ে বিপিজিএমই' এর সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, এবারের বাজেটে ভ্যাটের কতগুলো বিষয় পরিবর্তন করা হয়েছে, যা পরিবর্তন করা উচিৎ হয়নি। এটা স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনা করা ছাড়া সম্ভব না। আমি মনে করি এই ধরণের আইনগুলো আলোচনা না করে করলে আমরা ভুক্তভোগী হবো। করোনা পরিস্থিতিতে যেন কোনো ব্যবসায়ীর ওপর চাপ না দেয়া হয় সেদিকে খেয়াল করতে হবে।  

আনোয়ার গ্রুপ অব ইন্ডাসস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা একজন আরেক জনকে যদি না শুনি তাহলে তো বৈষম্য হবে। আপনি যা চাপিয়ে দিচ্ছেন তাই আমাকে গ্রহণ করতে হচ্ছে। এখনও সময় আছে, জুমে হয়তো মিটিং করা যেতে পারে। সবার থেকে শুনে একটা সিদ্ধান্ত নিলে সবার জন্য উপকৃত হবে। 

বাজেটের অর্থায়ন নির্ভর করে যেহেতু ব্যবসায়ীদের করের ওপর, তাই তাদের সুবিধার দিকটিও বিবেচনা নিতে হবে বলছেন বিশ্লেষকরা।

এনবিআর এর সাবেক চেয়ারম্যান মো. আবদুল মজিদ বলেন, সব সময় আলাপ আলোচনার ভিত্তিতে একটি সহনশীল ও পালনযোগ্য একটি পরিস্থিতি যদি তৈরি করা যায় তাহলে রেভিনিউ উপার্জন বাড়ে ও বাজেটের কার্যক্রম ব্যবসাবান্ধব হতে পারে। 
  
এনবিআর সদস্য (ভ্যাট) মাসুদ সাদিক বলেন, ব্যবসায়ীরা উদ্যোগ নিলে, আলোচনা হতে পারে। এরপর একটা সমাধানে আসা যায়।

জিএ 

RTV Drama
RTVPLUS