logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬

দেশে পুরুষের চেয়ে বিচ্ছেদে এগিয়ে নারীরা! (ভিডিও)

মাইদুর রহমান রুবেল, আরটিভি
|  ০২ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:১২ | আপডেট : ০২ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:৩৬
ঢাকায় প্রতি ঘণ্টা ভাঙছে একটি সংসার। বছর শেষ না হতেই দুই সিটিতে বিচ্ছেদের নোটিশ জমা হয়েছে ১০ হাজারের বেশি। হাতে গোনা কিছু সম্পর্ক টিকে গেলেও বেশিরভাগই ভেঙে যাওয়ার আশংকা আছে। বিচ্ছেদের পর, পুরুষ নতুন করে সংসার পাতলেও নারীর জন্য তা সহজ হচ্ছে না। এতে এক যন্ত্রণা থেকে মুক্তি মিললেও ভুগতে হচ্ছে নতুন যন্ত্রণায়। 

স্ত্রী নির্যাতনের ছবি এই সমাজে নতুন নয়। প্রতিনিয়তই ঘরে-বাইরে নির্যাতিত হচ্ছেন নারী। যুগ যুগ ধরে মুখ বুঝে সহ্য করা নারীরা এখন প্রতিবাদী। যদিও এর উল্টো চিত্রও আছে। তবে লোকলজ্জার ভয়ে তা গোপনই থাকে। 

গেল ১০ মাসে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে তালাকের নোটিশ জমেছে পাঁচ হাজারের বেশি। সংখ্যা আরও বাড়বে। উত্তর সিটি করপোরেশনও এই সংখ্যা পাঁচ হাজার ছুঁয়েছে। 

গেল ১০ বছরে দুই সিটিতে বিয়ে বিচ্ছেদ হয়েছে এক লাখের কাছাকাছি। রাজধানীর এমন চিত্রই বলে দেয় সারাদেশের চিত্র কতোটা ভয়াবহ। আশঙ্কার কথা হচ্ছে পুরুষের চেয়ে বিচ্ছেদে এগিয়ে নারীরা। ৭০ শতাংশ নারী তালাকের নোটিশ দিচ্ছেন। আর পুরুষ দিচ্ছেন ৩০ শতাংশ। 

---------------------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : চাকরি খুঁজতে আসা তরুণীকে ছাত্রাবাসে আটকে রেখে রাতভর গণধর্ষণ
---------------------------------------------------------------------

বিয়ে বিচ্ছেদে স্বামী-সংসারের বঞ্চনা থেকে হয়তো মুক্তি মেলে। কিন্তু বেঁচে থাকার সংগ্রামে নারীকে প্রতিনিয়ত মুখোমুখি হতে হয় নতুন পরিস্থিতির। 

মনোবিজ্ঞানীর মতে তালাক হওয়ার পর প্রায়ই দেখা যায় কিছু সুযোগসন্ধানী নারীর পিছু নেয়। এতে লাঞ্ছিত-অপমানিত হয়ে লোকলজ্জার ভয়ে অনেকেই আত্মহননের পথ বেছে নেন। 

স্বামী-সংসারের বঞ্চনা থেকে মুক্ত হয়ে নারী পড়ছেন অন্য কোন প্রবঞ্চকের খপ্পরে। ফলে সামাজিক সুরক্ষা তো বাড়ছেই না, উল্টো জড়িয়ে পড়ছে, অসামাজিকতার জালে।

বিচ্ছেদের পর কেউ কেউ টিকে গেলেও বেশিরভাগ নারীকে বেঁচে থাকতে হয়, ভিন্ন ধরণের যন্ত্রণা নিয়ে। 

এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বাংলাদেশ এর সর্বশেষ
  • বাংলাদেশ এর পাঠক প্রিয়