• ঢাকা শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৬

ভিকারুননিসার শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে পাঁচ সদস্যের কমিটি

এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:৫৫ | আপডেট : ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ২০:৩৯
ভিকারুননিসা নূন স্কুলের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিত্রী চৌধুরী কেন আত্মহত্যা করেছেন- এর কারণ খুঁজতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের কমিটিকে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দেন।

western কমিটিতে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপসচিবের নিচে নয় এমন একজন প্রতিনিধি, একজন শিক্ষাবিদ, একজন মনোবিদ ও একজন আইনবিদকে রাখতে বলা হয়েছে। এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধের উপায় নির্ণয় করে একটি জাতীয় নীতিমালা প্রণয়নের বিষয়েও এই কমিটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনার সংবাদের বিষয়টি আদালতের নজরে আনেন ব্যারিস্টার অনীক আর হক, জ্যোতির্ময় বড়ুয়া, আইনুন্নাহার সিদ্দিকা ও জেসমিন সুলতানা।

এ ব্যাপারে ব্যারিস্টার অনীক আর হক সাংবাদিকদের জানান, ‘এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে একটি জাতীয় নীতিমালা প্রণয়নে অতিরিক্তি শিক্ষা সচিবের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছেন আদালত। এক মাসের মধ্যে এই কমিটিকে দুটি প্রতিবেদন দিতে বলেছে আদালত। সেগুলোর মধ্যে জাতীয় নীতিমালা প্রণয়নে একটি ও অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার কারণ অনুসন্ধান করে আরেকটি প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি আদালত সরকারের প্রতি রুলও জারি করেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘অরিত্রী অধিকারী আত্মহত্যার ঘটনার মতো এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধের উপায় নির্ণয় করে একটি জাতীয় নীতিমালা প্রণয়নের পদক্ষেপ নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে। সরকারসহ সংশ্লিষ্টদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।’

গতকাল সোমবার দুপুরে রাজধানীর শান্তিনগরে শিক্ষিকারা স্কুলে ডেকে নিয়ে বাবাকে অপমান করায় অরিত্রী অধিকারী (১৫) নামে ভিকারুননিসা নূন স্কুলের নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করে। এ ঘটনার পর আজ শিক্ষামন্ত্রী ভিকারুননিসা স্কুলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে পড়েন।

এই ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন প্রধান শিক্ষক নাজনীন ফেরদৌস। আজ মঙ্গলবার স্কুলে তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সামনে তিনি হাত জোর করে ক্ষমা চান।

এসময় নাজনীন ফেরদৌস বলেন, যে ঘটনা ঘটেছে তা অনাকাঙ্ক্ষিত। ঘটনাটি যে এতদূর গড়াবে তা অনুধাবন করতে পারিনি। এরই মধ্যে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর কি ব্যবস্থা নেওয়া হবে তা মন্ত্রণালয় নির্ধারণ করে দেবে। আত্মহত্যার ঘটনায় আমি সবার কাছে ক্ষমা চাচ্ছি।

প্রসঙ্গত, ইতোমধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং ভিকারুননিসা নূন স্কুল ও কলেজ কর্তৃপক্ষ দুটি তদন্ত কমিটি করেছে। দুই কমিটিকে তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়