• ঢাকা সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১
logo

‘খুন করে কানাডায় এসে আসলেই কি বেঁচে আছি?’

আরটিভি নিউজ

  ০৬ জুন ২০২৪, ১২:৫৮
‘খুন করে কানাডায় এসে আসলেই কি বেঁচে আছি?’
পারভীন আক্তার। ফাইল ছবি

‘খুন করে কানাডায় চলে এসেছি। তাই অনেকে ভাবতে পারে, বেঁচে গেছি। আসলেই কি আমি বেঁচে আছি?’ ঠিক এভাবেই একটি গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপচারিতায় জাপানপ্রবাসী আরিফুল ইসলামকে খুনের পর নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করছিলেন এই মুহূর্তে কানাডায় অবস্থান করা পারভীন আক্তার।

সেই পারভীন আক্তার, যিনি সম্প্রতি কানাডা থেকে দেশে এসে রাজধানীর ভাটারায় বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে আরিফুল ইসলাম নামে এক জাপানপ্রবাসীর সঙ্গে ওঠেন মাটি প্রপার্টিজ নামে একটি অ্যাপার্টমেন্ট বিল্ডিংয়ে। এরপর গত ১ জুন তাদের ভাড়া করা অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার হয় আরিফের অর্ধগলিত মরদেহ। সঙ্গে মেলে একটি চিরকুট। তারপরই বের হয়ে আসে, আরিফকে খুন করে ফের কানাডায় চলে গেছেন পারভীন। কানাডায় গিয়ে হত্যাকাণ্ডের কথা নিজেও স্বীকার করেন ওই নারী।

বুধবার (৬ জুন) গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপচারিতায় কানাডা থেকে পারভীন বলেন, ‘আমার সংসার তছনছ করে দিয়েছিল আরিফুল। দিনের পর দিন শারীরিক-মানসিক নির্যাতন ও ধর্ষণ করেছে। গোপন ভিডিও করে তা আমার স্বামী ও পরিবারের সদস্যদের কাছে পাঠানোর হুমকি দিয়ে মাসে মাসে টাকা নিত সে। আমাকে এটিএম বুথের মতো ব্যবহার করেছে সে। দফায় দফায় ১০–১২ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে আমার কাছ থেকে। আত্মহত্যা করার পরিকল্পনা করে যখন কানাডা থেকে প্লেনে উঠছিলাম, তখনও জানতাম না– আরিফুল জাপান থেকে ফিরে আসবে। দেশে ফেরার পরপরই আমাকে ফোন করে সে। তখন সে জানতে পারে, আমি দেশে এসেছি। নিজেকে শেষ করার জন্য যে ছুরি কানাডা থেকে নিয়ে এসেছিলাম, সেটা দিয়ে ওকে শেষ করেছি।’

পারভীন জানান, ১৮ মে আরিফকে হত্যার পর কানাডায় উড়াল দেন তিনি। বাংলাদেশে পরিবারের সদস্যদের না জানিয়ে ১৬ মে ঢাকায় এসেছিলেন কানাডাপ্রবাসী এ নারী।

গত ১ জুন দিবাগত রাতে আরিফের মরদেহটি উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠায় ভাটারা থানা পুলিশ।

নিহত আরিফ ও পারভীন দুজনেরই পৈত্রিক বাড়ি নরসিংদীতে। জাপানি এক তরুণীকে বিয়ে করে বছরখানেক ধরে সেখানেই বাস করছিলেন আরিফ। আর স্বামীর সঙ্গে সংসার করতে এ বছরের ২ এপ্রিল কানাডায় যান পারভীন। পারভীনের দাবি, পাঁচ বছর ধরে আরিফ তাকে অত্যাচার করছিল। সবশেষ গত ১৭ মে তারিখেও বসুন্ধরার ভাড়া ফ্ল্যাটে ওঠার পরপরই জোর করে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে আরিফ।

পুলিশ জানায়, গত ১৭ মে আরিফুল ইসলাম ও পারভীন আক্তার স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে মাটি প্রপার্টিজ নামে ওই অ্যাপার্টমেন্ট বিল্ডিংয়ের দ্বিতীয় তলায় একটি অ্যাপার্টমেন্ট অনলাইনের মাধ্যমে ভাড়া নেন। ৭ দিনের পেমেন্ট অগ্রিম করেছিলেন তারা। শনিবার (১ জুন) রাতে মরদেহের খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক বাড্ডা জোন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং সিআইডির ক্রাইমসিন ঘটনাস্থলে গিয়ে আলামত সংগ্রহ করে। পরে, সিআইডির ক্রাইমসিন জানায়, নিহতের বুকে ও গলায় ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

ওই অ্যাপার্টমেন্টের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, ১৮ মে ভোর ৬টা ৩১ মিনিটে বাসা থেকে একা বেরিয়ে যাচ্ছেন পারভীন আক্তার।

মন্তব্য করুন

daraz
  • বাংলাদেশ এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
খুনের প্রমাণ নষ্টের জন্য যত টাকা ধার নেন অভিনেতা
যাত্রাবাড়ীতে দম্পতি খুনের ঘটনায় মামলা
কানাডা ম্যাচে সৌদির বিপক্ষে হারের কথা মনে পড়ছিল স্কালোনির
যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে গরম খুন্তির ছ্যাঁকা, আটক ৩