• ঢাকা শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১
logo

আন্তর্জাতিক পরিসরে এমপি আনার হত্যা তদন্তের পদক্ষেপ

আরটিভি নিউজ

  ০১ জুন ২০২৪, ১৭:২৬
ছবি : সংগৃহীত

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করতে কলকাতা থেকে এখন নেপালের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের একটি দল।

শনিবার (১ জুন) সকালে ন্যাশনাল সেন্ট্রাল ব্যুরোর (এনসিবি) একজনসহ মোট চার সদস্যের একটি দল নেপালের উদ্দেশে রওনা দেয়। নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, এটা প্রথম কেস, যেখানে বাংলাদেশ সংশ্লিষ্ট সবকয়টি দেশকে যুক্ত করে সুষ্ঠু তদন্ত নিশ্চিত করার উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে।

শনিবার (১ জুন) সকালে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের টার্মিনাল-২ গেটে সাংবাদিকদের বলেন, ‘সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী আক্তারুজ্জামান শাহীনের সহকারী সিয়াম নেপালে আটক হয়েছেন বলে শুনেছি। এ ছাড়া হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হওয়ার পর অন্য আসামিরাও নেপালে যাওয়া সম্ভাবনা আছে। সবদিক বিবেচনা করে আমরা সেখানে যাচ্ছি।’

মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানান, এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত অনেকেই নেপালের কাঠমান্ডুতে অবস্থান করছেন, সেটি নিয়েই তদন্ত করতে যাচ্ছে তার দল। ইন্টারপোলকে ইতিমধ্যে চিঠি দেওয়া হয়েছে, কাঠমান্ডু পুলিশের সঙ্গেও তথ্য আদানপ্রদান চলছে।

এমপি আজীমের হত্যার খবর ছড়িয়ে পড়ার পরে কলকাতা পুলিশের সঙ্গে নিয়েমিত যোগাযোগের মাধ্যমে একদিনের মাথায় আটক করা হয় বেশ কয়েকজন সন্দেহভাজনকে। বেরিয়ে আসে কলকাতায় যে বাসায় ছিলেন আজীম সেই বাসিার সিটিটিভি ফুটেজ। ভিনদেশে েএরকম একটি ঘটনার পরপরই বাংলাদেশের গোয়েন্দা সংস্থাদের সঙ্গে তাদের পারস্পারিক তথ্য আদানপ্রদানের এই অগ্রগতি আগামীতে অপরাধ দমনে কাজে লাগবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। এদিকে কলকাতায় গিয়ে কী করলো বাংলাদেশের পুলিশ সে প্রশ্নের জবাবে ডিবি প্রধান হারুন অর রশীদ বলেছেন, ‘আমাদের উদ্দেশ্য ছিল কলকাতা পুলিশ বিশেষ করে সিআইডিকে সহযোগিতা করা। এছাড়া কলকাতায় জাহিদ নামে যে আসামি রয়েছে তার দেওয়া তথ্যের সঙ্গে বাংলাদেশে গ্রেপ্তার হওয়া মূল ঘাতকের দেওয়া তথ্য মিলিয়ে নেওয়া। এক্ষেত্রে আমি মনে করি, আমরা যে কাজে কলকাতায় এসেছিলাম তা পুরোপুরি সফল।’

তিনি বলেন, ‘সিয়াম নামের এক আসামি কাঠমান্ডুতে রয়েছে। আরেক আসামি রয়েছে আমেরিকাতে। কলকাতার অনেক পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। কলকাতার কমিশনার, আইবি ও সিআইডি প্রধানের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। বিশেষ করে মামলাটি যেহেতু সিআইডি তদন্ত করছে এজন্য সিআইডির সঙ্গে আমাদের একাধিবার বিষয়ে কথা হয়েছে।’

এদিকে কলকাতা থেকে ফেরত আসার পরপরই সিয়ামের নেপালে আটকের খবর পাওয়া যায়। ডিবি সূত্র জানায়, সিয়ামকে দেশে ফেরাতে কাজ শুরু হয়েছে। সিয়াম এমপি আনার হত্যার প্রধান মাস্টারমাইন্ড আক্তারুজ্জামান শাহীনের অন্যতম সহযোগী হিসেবে কাজ করতো। শাহীন নেপাল হয়ে আমেরিকায় পালিয়েছে বলে তথ্য রয়েছে ডিবির কাছে। এসব বিষয়ে খোঁজ নিতেই নেপাল যাচ্ছে দলটি।

এর আগে, গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য কলকাতায় যান আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার। পরে তার খোঁজ পাওয়া না গেলে ১৮ মে ভারতে একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন এমপি আনারের পরিচিত ও ভারতের বরানগরের বাসিন্দা গোপাল বিশ্বাস। এরপর এমপি আনারের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে কলকাতা পুলিশ। কলকাতার একটি ফ্ল্যাটে এমপি আনারকে হত্যা করা হয়েছে বলে গত বুধবার জানায় ভারতীয় পুলিশ। তারপর থেকে বেরিয়ে আসছে নানা তথ্য।

মন্তব্য করুন

  • বাংলাদেশ এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
জিহাদ ও সিয়ামের ফের ১৪ দিনের জেল হেফাজত
তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ পেছাল 
এমপি আনার হত্যা: এবার ফয়সালের দায় স্বীকার
এমপি আনার হত্যায় এবার স্বীকারোক্তি দিচ্ছেন মোস্তাফিজ