Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

‘মানুষের মতো বাঁচার’ মজুরির দাবিতে বিক্ষোভ

ছবি : সংগৃহীত

সব কর্মক্ষম ব্যক্তির স্বাস্থ্যসম্মত কর্মসংস্থান করা ও কর্ম অক্ষম ব্যক্তিদের দায়িত্ব নেওয়া এবং শ্রমিকদের ‘মানুষের মতো বাঁচার’ মজুরি দেওয়াসহ ৭ দফা দাবি জানিয়ে সড়কে বিক্ষোভ করেছে শ্রমজীবী সংঘ নামের একটি সংগঠন।

শুক্রবার (১১ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে এসব দাবি জানায় তারা।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, দিন দিন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য চাল, ডাল, তেল, চিনিসহ জীবন ধারণের জন্য সব কিছুর দাম বেড়েই চলছে। অথচ শ্রমিকদের যে মজুরি তা দিয়ে বেঁচে থাকাই দায়। এখন অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে শ্রমিকদের জীবন। এ অবস্থায় চুপ থাকার সময় আর নেই। এর জন্য ধনী-শ্রেণি ও সরকার দায়ী। তারা মিলেমিশে আমাদের বেঁচে থাকার অধিকার অনিশ্চয়তার মধ্যে ফেলে দিয়েছে।

সমাবেশে জানানো দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- সবার স্বাস্থ্যসম্মত বাসস্থান নিশ্চিত করা; চিকিৎসা বাণিজ্য বন্ধ করা ও শ্রমিকসহ সবার বিনামূল্যে আধুনিক চিকিৎসা নিশ্চিত করা; বিনামূল্যে বিজ্ঞানভিত্তিক একমুখী শিক্ষাব্যবস্থা চালু করা ও শিক্ষা নিয়ে বাণিজ্য বন্ধ করা; নারী-পুরুষ, ধর্মীয় ও জাতিগত বৈষম্য দূর করা; শ্রমিক শ্রেণি ও মেহনতি মানুষকে রেশন দেওয়ার ব্যবস্থা করা। চাল, ডাল, তেল, চিনিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য রেশনে প্রতি কেজি ১০ টাকা দরে দেয়া।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন শ্রমজীবী সংঘের সভাপতি আব্দুল আলি, সাধারণ সম্পাদক মোদাচ্ছের বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক রুবেল শিকদারসহ অনেকে।

বক্তারা আরও বলেন, বাংলাদেশের সাংবিধানিক অধিকার ও দেশের সব মানুষের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করা রাষ্ট্রের দায়িত্ব। গত ৫০ বছর ধরে যেসব সরকার রাষ্ট্রের ক্ষমতায় ছিল, তারা এখনও আছে, প্রত্যেক সরকার শুধু ধনীদের স্বার্থ দেখেছে। তারা শোষণ আগের চেয়ে বাড়িয়ে দিয়েছে। ৮ ঘণ্টার অধিক কাজ করতে বাধ্য করছে, কম মজুরি দিয়ে নিজেদের অধিক মুনাফা নিশ্চিত করছে।

অপরদিকে চাল, ডালসহ জীবন ধারণের মতো দ্রব্যের দাম বেড়েই চলছে। এ পরিস্থিতি শ্রমিক শ্রেণির ও মেহনতি মানুষের ‘মানুষের মতো বেঁচে থাকার’ জন্য নিজেদের সংগঠিত হয়ে প্রতিবাদ সংগ্রাম করা ছাড়া আর কোনো পথ নাই বলে হুশিয়ার করে দেন সমাবেশ থেকে।

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS