Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

‘চৈত্র মাসেও এত গরম লাগেনি’

‘চৈত্র মাসেও এত গরম পড়েনি’
ফাইল ছবি

আশ্বিন মাসে শীত অনুভূত হয়ে থাকে। প্রবাদে বলে আশ্বিন মাসে শীত আসি আসি করে। কিন্তু চিরায়ত প্রবাদের ছন্দ পতন ঘটছে। অসময়ের অসহনীয় গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন। গত কয়েক দিনে স্বাভাবিকের থেকে তাপমাত্রা বেড়েছে অনেক।

গরমে অতিষ্ঠ শ্রমজীবী মানুষ। সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন তারা। কাজের জন্য যারা বাইরে বের হয়েছেন তারা বলছেন, এবার চৈত্র মাসেও এত গরম পড়েনি। যারা গণপরিবহণে যাতায়াত করছে তাদের অবস্থা আরও খারাপ।

আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ বলেন, সাগরে লঘুচাপের কারণে গরম বেড়েছে। তবে সামনে বৃষ্টির জন্য তাপমাত্রা কিছুটা কমতে শুরু করবে।

আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী, শুক্রবার দুপুরে রাজধানী ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫ দশমিক শূন্য ৯ সেলসিয়াস। আর সারা দেশের মধ্যে সিলেটে সর্বোচ্চ ৩৭ দশমিক ২ সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

আবহাওয়া অফিসের দেওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আজ সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় একই রকম থাকতে পারে।

বৃষ্টিপাতের তথ্যে বলা হয়েছে, আগামী দুদিন বৃষ্টির প্রবণতা থাকতে পারে। আগামী ৫ দিনে পরিস্থিতি সামান্য পরিবর্তন হতে পারে।

আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়েছে, পূর্ব মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপের সৃষ্টি হয়েছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত। এটি পশ্চিম উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

এদিকে, দক্ষিণপশ্চিম মৌসুমি বায়ু দেশের উত্তরাঞ্চল থেকে বিদায় নিয়েছে। মৌসুমি বায়ু দেশের অন্যত্র কম সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে দুর্বল অবস্থায় বিরাজ করছে।

এসএস

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS