smc
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৫ কার্তিক ১৪২৭

বিশ্বব্যাংককে নিয়ে চিন্তা করে সময় নষ্ট করা যাবে না (ভিডিও)

  সেলিম মালিক

|  ১৬ অক্টোবর ২০২০, ১১:৪২ | আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২০, ১৫:৫০
জিডিপি প্রবৃদ্ধি
করোনাকালে দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি নিয়ে বিপরীতমুখী পূর্বাভাস দিয়েছে এশিয় উন্নয়ন ব্যাংক এডিবি ও বিশ্বব্যাংক। বৈশ্বিক মন্দার প্রভাব বিবেচনা করে এই পূর্বাভাস তৈরি করেছে বিশ্বব্যাংক। সরকার ও অর্থনীতিবিদরা বলছেন, কোনো সংস্থা কী ধারণা দিলো সেদিকে না তাকিয়ে ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার আর কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে পারলে শঙ্কট কাটিয়ে ওঠা সম্ভব।

চার দশকের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে বিশ্বব্যাংক ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক এডিবি। দুই সংস্থার বাংলাদেশ কার্যালয়ের মধ্যে দূরত্ব কেবল একটি প্রাচীরের। সরকারের সঙ্গে সংস্থা দুটির যোগসূত্র এবং তথ্যের উৎসও সমপর্যায়ের, তারপরও দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি নিয়ে এই দুই সংস্থার প্রতিবেদনে বিস্তর ফারাক।

করোনা মহামারির মধ্যেও দেশের উৎপাদন ও রপ্তানি বাড়ছে মূল্যস্ফীতি সহনশীল থাকার পাশাপাশি বাণিজ্য ঘাটতি কমে আসবে এমন প্রক্ষেপণকে সামনে রেখে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৬ দশমিক ৮ শতাংশ হওয়ার পূর্বাভাস দিয়েছে এডিবি। বিপরীতে বিশ্বব্যাংক বলছে প্রবৃদ্ধি হতে পারে মাত্র ১ দশমিক ৬ শংতাশ।

বিশ্বব্যাংকের বাংলাদেশ এর কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি টেম্বন বলেন, করোনার সময় বিশ্বব্যাপী যে মন্দা চলছে  এর প্রভাব বাংলাদেশও এড়িয়ে চলতে পারে না। তবে এ মন্দা মোকাবেলায় দেশটির সরকারের পদক্ষেপ আশাব্যঞ্জক।

বিশ্বব্যাংকের প্রক্ষেপণকে রক্ষণশীল মনে করেন পরিকল্পনা কমিশনের সিনিয়র সচিব শামসুল আলম। তিনি আরও বলেন, অর্থনীতি কেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠান থেকে এ ধরনের প্রার্থক্য কখনো কাম্য নয়। এ রকম কার্যক্রমে বিশ্বব্যাংকের দক্ষতা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে পারে।

আর পরিকল্পমন্ত্রী এম এ মান্নান জানান, কারো বিভ্রান্তিকর তথ্যে কান দিচ্ছে না সরকার। তিনি আরও বলেন, ভয়ের কারণ দেখছি না। আমাদের কাজটি আমাদেরকেই করতে হবে, বিশ্বব্যাংক বললেই কী বা না বললেই কী। এটি নিয়ে ভেবে যদি কাজ না করি তাহলে ক্ষতি আমাদের হবে।

মহামারির বৈশ্বিক মন্দায় প্রবৃদ্ধির দিকে না তাকিয়ে, ব্যবসার সুযোগ ও কর্মসংস্থান বাড়ানোর তাগিদ অর্থনীতিবিদদের।

পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, দেশে যাতে আমরা কাজটি শুরু করতে পারি। সেই পরিবেশটি ভালোভাবে দেশে সৃষ্টি করতে হবে।  এটি করতে পারলে  দেশের প্রবৃদ্ধি একসময় আসবেই অন্যদিকে জনগণকে কাজের পরিবেশ সৃষ্টি করে দিবে হবে। তাহলে প্রবৃদ্ধি নিয়ে ভাবতে হবে না।

এদিকে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য-উপাত্ত থেকে অতিমারির মধ্যেও চলতি অর্থ বছরে ৮ দশমিক ২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে চায় সরকার।

জিএম/এম/এমকে  

RTVPLUS
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ৪০৩০৭৯ ৩১৯৭৩৩ ৫৮৬১
বিশ্ব ৪,৪৩,৫৭,৬৭১ ৩,২৫,০৫,১৫৫ ১১,৭৩,৮০৮
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বাংলাদেশ এর সর্বশেষ
  • বাংলাদেশ এর পাঠক প্রিয়