smc
logo
  • ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭

ভয়ঙ্কর মাদক অ্যামফিটামিনের রুট যখন বেনাপোল

  আরটিভি নিউজ

|  ১৪ অক্টোবর ২০২০, ১৫:৩১
amphetamine, benapol
ছবি- সংগৃহীত
বিভিন্ন সীমাবদ্ধতার কারণে বাংলাদেশকে মাদক চোরাচালানের রুট হিসেবে ব্যবহার করছে আন্তর্জাতিক মাদক চোরাচালান ব্যবসায়ীরা। বিশ্বে দামি মাদকগুলোর মধ্যে অ্যামফিটামিন অন্যতম। এই মাদকের রুট হিসেবে এখন বাংলাদেশকে ব্যবহারের অনুশীলন করে যাচ্ছে অসাধুরা। সম্প্রতি এমনই একটি ঘটনা অনুসন্ধানে নেমে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উদঘাটন করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।

ভারতীয় চক্রের সঙ্গে যোগসাজশে ১২ কেজি ৩২০ গ্রাম অ্যামফিটামিন পাউডার পাচারের জন্য সীমান্ত এলাকা বেনাপোল দিয়ে বাংলাদেশে আমদানী করেছিলো গ্রেপ্তার আবুল কালাম আজাদ বান্টি।

আমদানীর পর বান্টি এসব অ্যামফিটামিন জুনায়েদ ইবনে সিদ্দিকী (৩৩) ও নজরুল ইসলামের কাছে বিক্রি করে। বাংলাদেশকে রুট হিসেবে ব্যবহার করে এসব অ্যামফিটামিন মালেয়শিয়া হয়ে অস্ট্রেলিয়া পাচারের জন্য তারা কিনেছিলেন। 

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের হাতে অ্যামফিটামিন আমদানী ও বিক্রি চক্রের মুলহোতা আবুল কালাম আজাদ বান্টি গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে এসব তথ্য জানিয়েছে। 

বুধবার দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) মোহাম্মদ আহসানুল জাব্বার। 

তিনি বলেন, বিমানবন্দর রপ্তানী কার্গো ভিলেজ থেকে ১২ কেজি ৩২০ গ্রাম অ্যামফিটামিন পাউডার উদ্ধারের ঘটনায় বিভিন্ন সময় ৬ আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে গত ৭ অক্টোবর রাজধানীর মিটফোর্ড এলাকার মাহমুদা ম্যানশনের কালাম ট্রেড ইন্টারন্যানালের স্বত্তাধীকার আবুল কালাম আজাদ বান্টিকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

তিনি বলেন, গ্রেপ্তারের পর আবুল কালাম আজাদ জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, জুনায়েদ ইবনে সিদ্দিকী (৩৩) এবং মো. নজরুল ইসলাম (৪৭)কে অ্যামফিটামিন পাউডার সরবরাহ করেছিল। তাদের সাথে যোগাযোগ ও মাধ্যমপক্ষ হিসেবে দীন ইসলাম ও সাইফুল নামে ২ জন ব্যক্তি কাজ করে আসছিল। সে এসব মাদকদ্রব্য পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের কেমিক্যাল ব্যবসায়ী হাবিব মাস্টারের মাধ্যমে চোরাইপথে অবৈধভাবে সংগ্রহ করতো। তিনি আরও জানিয়েছেন, যে কেমিক্যাল ব্যবসায়ী হাবিব মাস্টারের সহযোগী হিসেবে রাজখান মাদকদ্রব্য সীমান্ত পার করিয়ে দেয়া এবং ট্রিমল্যান্ড, করতোয়া ইত্যাদি কুরিয়ারের মাধ্যমে ঢাকা পৌঁছানোর ব্যবস্থা করতো।

আসামী দীন ইসলাম ও সাইফুলকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

গ্রেপ্তার জুনায়েদ ও নজরুল জানায়, তারা ভারত থেকে অ্যামফিটামিন সংগ্রহ করে তৈরি পোশাকের কার্টুনের মধ্যে বিশেষ প্রক্রিয়ায় কার্বনের লেয়ার দিয়ে ক্যাভিটি তৈরি করে মাদকদ্রব্য মালয়েশিয়া হয়ে অস্ট্রেলিয়া পাচারের চেষ্টা করছিল।

কেএফ/ওয়াই

RTVPLUS
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৩৯০২০৬ ৩০৫৫৯৯ ৫৬৮১
বিশ্ব ৪,০৩,৮২,৮৬২ ৩,০১,৬৯,০৫২ ১১,১৯,৭৪৮
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বাংলাদেশ এর সর্বশেষ
  • বাংলাদেশ এর পাঠক প্রিয়