smc
logo
  • ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭

সিলেটে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি

  আরটিভি নিউজ

|  ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪:৩৮ | আপডেট : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:৩০
ommittee of Investigation, of the Ministry of Education, rtv news
শিক্ষা মন্ত্রণালয়
শিক্ষা মন্ত্রণালয় সিলেট এমসি কলেজে গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। কমিটিকে তিন দিনের মধ্যে প্রাথমিক রিপোর্ট এবং সাত দিনের মধ্যে চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় গতকাল সোমবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সিলেটের মুরারিচাঁদ কলেজ (এমসি) ক্যাম্পাসে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় কলেজ কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনায় কোনও ঘাটতি ছিলো কিনা তা সরজমিনে তদন্ত করে ও সংশ্লিষ্ট সকলের দায়-দায়িত্ব নিরুপন করে সুপারিশসহ প্রতিবেদন পাঠানোর জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির মধ্যে রয়েছেন, পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন), মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, ঢাকা (আহ্বায়ক), উপ-পরিচালক (কলেজ), মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা সিলেট অঞ্চল, সিলেট (সদস্য), সহকারী পরিচালক (কলেজ-১), মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, ঢাকা (সদস্য-সচিব)

এদিকে সিলেট এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের মামলায় রনি, রাজন ও আইনুলের ৫দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দ্বিতীয় আদালতের বিচারক সাইফুর রহমান তাদের এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে বেলা পৌনে ১২টায় তাদের কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্য দিয়ে আদালত চত্বরে হাজির করে সিলেট মহানগর পুলিশের শাহপরাণ (র.) থানা পুলিশ। পরে তাদের আদালতে তুলে এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করা হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। শুনানি শেষে আদালত সকলের পাঁচদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এপিপি খোকন কুমার দত্ত এ তথ্য নিশ্চিত করে আরটিভি নিউজকে বলেন, আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ৭দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত ৫দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গতকাল একই মামলায় আরও তিন আসামি সাইফুর, অর্জুন ও রবিউলকে পাঁচদিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হন এক তরুণী। রাত সাড়ে ৮টার দিকে এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় তরুণীর স্বামীর দায়ের করা মামলায় আসামিরা হলেন- সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার উমেদনগরের রফিকুল ইসলামের ছেলে তারেকুল ইসলাম তারেক (২৮), হবিগঞ্জ সদরের বাগুনীপাড়ার মো. জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে শাহ মো. মাহবুবুর রহমান রনি (২৫), জকিগঞ্জের আটগ্রামের কানু লস্করের ছেলে অর্জুন লস্কর (২৫), দিরাই উপজেলার বড়নগদীপুর (জগদল) গ্রামের রবিউল ইসলাম (২৫) ও কানাইঘাটের গাছবাড়ি গ্রামের মাহফুজুর রহমান মাসুম (২৫)। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও তিনজনকে আসামি করা হয়।

আরও পড়ুন 

জেবি/এম 

RTVPLUS
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ৩৯৪৮২৭ ৩১০৫৩২ ৫৭৪৭
বিশ্ব ৪,১৫,৭০,৮৩১ ৩,০৯,৫৮,৫৪৬ ১১,৩৭,৭০৩
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বাংলাদেশ এর সর্বশেষ
  • বাংলাদেশ এর পাঠক প্রিয়