• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

রাশিয়া বিশ্বকাপ-২০১৮

পিজ্জির হাত ধরে নতুন মিশনে নামবে সৌদি

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ১২ মার্চ ২০১৮, ১৬:৪১ | আপডেট : ১২ মার্চ ২০১৮, ১৭:১০
সৌদি আরব মধ্যপ্রাচ্যের একটি সার্বভৌম আরব রাজ্য। আয়তনের দিক দিয়ে পশ্চিম এশিয়ার সবচেয়ে বড় আরব দেশ যার আয়তন ২১,৫০,০০০ বর্গ কিমি। আলজেরিয়ার পরে আরব বিশ্বে দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। 

সৌদি আরব মূলত চারটি স্বতন্ত্র অঞ্চল হেজাজ, নজদ, আল হাসা পুর্বাঞ্চলীয় আরব এবং আসির দক্ষিণাঞ্চলীয় আরব নিয়ে গঠিত। দেশটি পুরোপুরি রাজতান্ত্রিক পদ্ধতিতে পরিচালিত হয় এবং আইনের ক্ষেত্রে ইসলামি আইনের অনুসরণ করা হয়। ইসলামের দুই পবিত্র মসজিদ মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববীর কারণে এই দেশটাকে দুই পবিত্র মসজিদের দেশ বলা হয়। পৃথিবীর এক নাম্বার তেল উৎপাদনকারী ও রপ্তানিকারক দেশ এবং পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম হাইড্রোকার্বন মজুদকারি। 

১৯৯২ সালে রাজকীয় ফরমানের মাধ্যমে চালু করা মৌলিক আইন অনুযায়ী বাদশাহকে অবশ্যই শরিয়ার প্রয়োগ করতে হবে এবং এতে কুরআন ও সুন্নাহকে রাষ্ট্রের সংবিধান হিসেবে গ্রহণ করা হয়। সংবিধান হিসেবে কোরআনকে গ্রহণ করা হলেও এখানে রাজতন্ত্রই বিদ্যমান। প্রথা অনুযায়ী ঐতিহ্যবাহী গোত্রীয় সম্মেলন মজলিসে প্রাপ্তবয়স্ক যে কোনো ব্যক্তি বাদশাহর কাছে আবেদন করতে পারে। 

১৯৯৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে প্রথম অভিষেক হয় সৌদি আরবের। প্রথমবারই বাজিমাত করে দেশটি। গ্রুপ পর্বে নেদারল্যান্ডস ও মরক্কোকে হারিয়ে নকআউট পর্বে নাম লেখায় সৌদি। ১৬ দলের লড়াইয়ে সুইডেনের কাছে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয় তারা। এরপর ১৯৯৮, ২০০২ এবং ২০০৬ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকেই বাদ পড়ে সৌদি আরব। ২০১০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ২০১৪ সালে ব্রাজিলের মাটিতে খেলাই হয়নি আরব দেশটির। অবশেষে জাপানকে ১-০ গোলে হারিয়ে ১২ বছর পর বিশ্বকাপের টিকিট কাটলো সৌদি আরব।

বর্তমান দল কেমন
সর্বশেষ দুই বিশ্বকাপ ছাড়াও বেশ কয়েকটি টুর্নামেন্টে ছিল না সৌদি আরবের নাম। ২০০৭ সালে এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠেও শিরোপা জেতা হয়নি তাদের। এরপর ২০১১ এবং ২০১৫ এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বই পার হতে পারেনি দেশটি। দিন যত যায়, ততই যেন ধার কমতে থাকে সৌদি ফুটবলের। শেষ পর্যন্ত রাশিয়া বিশ্বকাপের টিকিট পেয়ে স্বস্তিতে দেশটির ফুটবলপ্রেমীরা। সবাই মনেপ্রাণে চাচ্ছে এবার অনন্ত ভালো কিছু করবে সৌদি। বর্তমান দলে বেশ কিছু ফুটবলার আছেন-ওসামা, তাইসির আল জাসিম, মুহান্নাদ, নওয়াফ, ফাহাদ আল মুয়াল্লাদ, ইব্রাহিম মোহাম্মদ, নাসের আল সামরানি, নায়েফ হাজী। এই কয়েকজন ফুটবলার রাশিয়া বিশ্বকাপে আলো ছড়াতে পারেন।

প্রধান কোচ
আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের কোচ হওয়ার দৌড়ে বাদ পড়া জুয়ান এন্তোনিও পিজ্জিকে প্রধান কোচের দায়িত্ব দিয়েছে সৌদি আরব। অবশ্য এর আগে মেসিদের কোচিং করানো এদগার্দো বাউজা ছিলেন সৌদি আরবের কোচ।

ডাকনাম

:

গ্রিণ ফেলকনস

অ্যাসোসিয়েশন

:

সৌদি আরব ফুটবল ফেডারেশন

কনফেডারেশন

:

এএফসি

সাব কনফেডারেশন

:

ডব্লিউএএফএফ

হেড কোচ

:

জুয়ান এন্তোনিও পিজ্জি

অধিনায়ক

:

ওসামা হাওশামী

সর্বাধিক ম্যাচ

:

মোহাম্মদ আল দায়ী (১৭৮)

সর্বাধিক গোলদাতা

:

মাজেদ আবদুল্লাহ (৭১)

হোম ভেন্যু

:

 

বর্তমান র‌্যাংকিং

:

৬৪

বেস্ট রেজাল্ট

:

১৯৯৪ বিশ্বকাপে নক আউট পর্ব

বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ

:

১৯৯৪, ১৯৯৮, ২০০২, ২০০৬, ২০১৮

সেরা খেলোয়াড়

:

 

আরও পড়ুন:

এএ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়