• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

সফল মানুষদের সকালের রুটিন

লাইফস্টাইল ডেস্ক
|  ২৯ জানুয়ারি ২০১৮, ১০:২২ | আপডেট : ২৯ জানুয়ারি ২০১৮, ১০:৪২
আমাদের প্রত্যেকেরই সকালে কিছু না কিছু করার থাকে, কেউবা জিমে যান, কেউবা পড়েন পত্রিকা, কেউবা কফির কাপে চুমুক দিতে দিতে সকালের সোনারোদ উপভোগ করেন, আবার কেউ ঘুম থেকে উঠে বিছানায়ই আরেকটু জিরিয়ে নেন। অনেকেই হয়তো জানেন না সকাল বেলার রুটিনের উপরই আপনার দিনটি কতটা সফলতার সঙ্গে কাটবে সেটা নির্ভর করে। টাইম ম্যাগাজিন স্লিপি পিপল ডট কম নামক একটি ওয়েবসাইটের বরাত দিয়ে বিশ্ববিখ্যাত মানুষদের সকালের রুটিনের কথা জানাল। চলুন জেনে নিই।

বারাক ওবামা

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সকালে ওঠেই জিমে হানা দিতেন। তারপর এসে তার জায়া-কন্যাদের সঙ্গে সকালের নাস্তা করে কন্যাদের স্কুলে পাঠাতেন। তারপর শুরু হতো তার পৃথিবী সামলানোর পালা।

বিল গেটস

মাইক্রোসফটের সহ প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসের দিনটি শুরু হত শরীরচর্চার মধ্য দিয়ে। তিনি তার শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখার জন্য বিভিন্ন ধরনের শিক্ষণীয় ভিডিও দেখে থাকেন। 

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: আপনি যেভাবে দাঁত ব্রাশ করেন তা কি সঠিক?
--------------------------------------------------------

মার্ক জাকারবার্গ

ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ প্রায়ই ঘুমাতে যেতেনই না। তাকে ফেসবুক কর্মচারীদের সঙ্গে সকাল ছয়টা পর্যন্ত ও কাজ করতে দেখা গেছে। ৩৪ বছর বয়স্ক এই হার্ভার্ড ড্রপআউট বেশিরভাগ সময়ই পড়ে থাকেন একটি ধূসর টিশার্ট, এ সম্পর্কে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, যত বেশি কম সিদ্ধান্ত নেয়া যায় ততই ভাল।

জেফ বেজোস

বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি আমাজান প্রধান জেফ বেজোস দীর্ঘ সময় নিয়ে নিজের স্ত্রী ও চার সন্তানদের সঙ্গে নাস্তা খেতে পছন্দ করেন। তিনি খুব ভোরে উঠার পক্ষপাতী না। বরং দৈনিক আট ঘণ্টা ঘুমের ব্যাপারটি তার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

স্টিভ জবস

সাবেক অ্যাপল সিইও স্টিভ জবস সকালে উঠেই নিজেকে মোটিভেশনাল স্পিচ দিতেন। সকালে ঘুম থেকে উঠেই তিনি আয়নার সামনে গিয়ে নিজেকে বলতেন, আজকের দিনটিই যদি আমার শেষ দিন হয়, তাহলে আজ আমি যা করতে যাচ্ছি সেটাতে কি আমি খুশি হতাম?

ডেভিড ক্যামেরন

সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন সকালে টিভি দেখাকে এড়িয়ে চলতেন। তার দিনটি শুরু হত সকাল ছয়টায় এবং তখন থেকে আটটা পর্যন্ত করতেন গুরুত্বপূর্ণ সরকারি কাজ। এরপর তিনি তার পত্নী সামান্থা ও তিন সন্তান আর্থার, ন্যান্সি এবং ফ্লোরেন্সের সঙ্গে নাস্তা করতেন। এছাড়াও ক্যামেরুন মিডিয়া কাভারেজ খুব অনুসরণ করতেন এবং প্রতিদিন সকালে খবরের চোখ বুলাতেন।

উইনস্টন চার্চিল

অপরদিকে সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল সকাল বেলার পাখি ছিলেন না বলা চলে। ঘুম থেকে উঠতেন সকাল সাড়ে সাতটায় ঠিকই কিন্তু বিছানা ছেড়ে উঠতেনই না এগারটা পর্যন্ত। এতটা সময় বিছানায় কি করতেন? বিছানায় বসেই তিনি সেরে নিতে নাস্তা, যেহেতু তখন ফেসবুক ছিল না পত্রিকায় চোখ বুলিয়ে নিতেন এবং সেই সাথে তার অসংখ্য সেক্রেটারিদের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে নোট নিতে বলতেন।

হাওয়ার্ড শুলঝ

বিশ্ববিখ্যাত কফি চেইন স্টারবাকস এর সিইও হাওয়ার্ড শুলঝের সকালটি শুরু হতো এক কাপ কফি দিয়েই। তিনি প্রতিদিন সকাল সাড়ে চারটায় ঘুম থেকে উঠে তার পোষা কুকুরদের নিয়ে হাটতে বের হতেন। তারপর বাড়ি এসে তিনি নিজের ও নিজের স্ত্রীর জন্য কফি বানাতেন।

আরও পড়ুন: 

কেএইচ/ এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়