• ঢাকা শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo
সহপাঠীর উত্ত্যক্তে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা
বসতঘরে পড়েছিল গৃহবধূর মরদেহ, স্বামী পলাতক
মুন্সীগঞ্জে পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক স্বামীর বিরুদ্ধে।  বুধবার (১৫ মে) সকাল ৯টার দিকে মুন্সীগঞ্জের খাসকান্দি এলাকার বসতঘর থেকে ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত গৃহবধূর নাম জিয়াসমিন আক্তার (২৫)। তিনি ওই এলাকার মোহাম্মদ শাহজালালের স্ত্রী। নিহত জিয়াসমিনের পৈতৃক বাড়ি কিশোরগঞ্জের ভৈরবে বলে জানা গেছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন মুন্সীগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খায়রুল হাসান। তিনি বলেন, ‘স্থানীয়রা খবর দিলে দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে পুলিশ নিহত গৃহবধূর ক্ষতবিক্ষত মরদেহ ঘর থেকে উদ্ধার করে। ধারণা করা হচ্ছে, স্বামী শাহজালাল মঙ্গলবার রাতের কোনো এক সময় তাকে হত্যা করেছে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ও মাথায় গুরুতর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার স্বামী পলাতক।’ তিনি আরও বলেন, ‘স্ত্রী হত্যায় অভিযুক্ত শাহজালাল এলাকার চিহ্নিত চোর এবং ফৌজদারি মামলার আসামি। কিছুদিন আগে একটি ফৌজদারি মামলায় ছয় মাস সাজাভোগ করেছে সে। তাকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশের টিম কাজ করছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।’
বজ্রপাতে পদ্মা সেতুর টোলপ্লাজায় ত্রুটি, তীব্র যানজট
মুন্সীগঞ্জে সড়কে প্রাণ গেল একই পরিবারের ৩ জনের
মুন্সীগঞ্জে পুকুরে ডুবে ভাই-বোনের মৃত্যু
দিনমজুর ও পথচারীদের মাঝে ছাতা বিতরণ
পদ্মায় রেল ও ব্যাংক কর্মকর্তার মরদেহ উদ্ধার, স্কুলছাত্র নিখোঁজ
মুন্সীগঞ্জে পদ্মায় গোসল করতে নেমে নিখোঁজ তিনজনের মধ্যে রিয়াদ আহমেদ রাজু ও মো. জুয়েলের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন স্কুলছাত্র রামিন আরিদ। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ফায়ার তাদের মরদেহ উদ্ধার করে সার্ভিসের সদস্যরা। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন দিঘিরপাড় পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ আনসার উজ্জামান। তিনি জানান, মো. জুয়েল (৪০) ও রিয়াদ আহমেদ রাজু (৪৫) নামে দুজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মো. জুয়েল ঢাকা ব্যাংকের কর্মকর্তা ও রাজু বাংলাদেশ রেলওয়ের কর্মকর্তা ছিলেন। তিনি আরও জানান, এখনো নিখোঁজ রয়েছেন ওই রেলওয়ের কর্মকর্তার ছেলে রিয়াদ রামিন আরিদ (২০)। তাকে উদ্ধারে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরি দল। এর আগে শুক্রবার বিকেলে ট্রলারে করে ঢাকা থেকে আসা ৩০-৩৫ জন মিলে দিঘিরপাড় ইউনিয়নের ধানকোড়া এলাকায় পদ্মার শাখা নদীতে ঘুরতে বের হন। পরে বেশ কয়েকজন ট্রলার থেকে গোসল করতে নামেন। এ সময় রামিন নদীর স্রোতে ভেসে যেতে থাকলে তার বাবা রিয়াদ আহমেদ রাজু ও খালু মো. জুয়েল উদ্ধার করতে গিয়ে তারাও স্রোতে ভেসে নিখোঁজ হন।
পদ্মায় ব্যাংক কর্মকর্তার মরদেহ উদ্ধার, ছেলেসহ প্রকৌশলী নিখোঁজ
মুন্সীগঞ্জের পদ্মায় গোসল করতে নেমে নিখোঁজ তিনজনের মধ্যে জুয়েল রানা নামে একজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন দুই জন। তারা সম্পর্কে বাবা-ছেলে। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা জুয়েলের মরদেহ উদ্ধার করেছে। বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন দিঘিরপাড় পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ আনসার উজ্জামান। তিনি জানান, জুয়েল রানা (৪০) নামে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি ঢাকা ব্যাংকের কর্মকর্তা। আরও দুজন নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের উদ্ধারে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরি দল। এছাড়া নিখোঁজ রয়েছেন ঢাকার মোহাম্মদপুরের সলিমুল্লাহ রোডের রিয়াদ আহমেদ রাজু (৪৫)। তিনি বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী। তার ছেলে রিয়াদ রামিন আরিদ (২০)। রিয়াদ মাইলস্টোন স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র। এর আগে বিকেলে ঢাকা থেকে বেড়াতে আসা ৩০-৩৫ জন ট্রলার নিয়ে পদ্মা নদী ঘুরতে বের হন। এ সময় ধানকোড়ার কাছে পদ্মায় গোসলে নামেন ১০-১২ জন। এদের মধ্যে তিনজন তলিয়ে নিখোঁজ যান।
পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় নিহত ১
পদ্মা সেতুতে দ্রুতগতির মোটরসাইকেলের ধাক্কায় মোহাম্মদ তৈয়ব আলী (৩৪) নামের এক যুবক মারা গেছেন। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করা হয়েছে।  শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১০টায় পদ্মা সেতুর মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তের ১১ ও ১২ নম্বর পিলারের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত তৈয়ব আলী গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী থানার বাগিয়া এলাকার মো. বেলায়েত শেখের ছেলে। তিনি পেশায় একজন মাইক্রোবাসচালক। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে পুলিশ জানায়, আজ সকালে মুন্সীগঞ্জ সদরের সিপাহীপাড়া এলাকা থেকে যাত্রী নিয়ে একটি মাইক্রোবাস গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে যাওয়ার পথে পদ্মা সেতুর ওপর চাকা ফেটে নষ্ট হয়ে যায়। পরে মাইক্রোবাসচালক তৈয়ব আলী গাড়ি থেকে নেমে চাকা মেরামতের চেষ্টা চালান। এ সময় পেছন থেকে দ্রুতগতির একটি মোটরসাইকেল তৈয়ব আলীকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।  পুলিশ আরও জানায়, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে মোটরসাইকেল চালক আজমীর হোসেন (২৮) ও তার স্ত্রী শ্রাবণী ইসলামকে (২৭) আটক করে পুলিশ। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন মাওয়া ট্রাফিক পুলিশের ইন্সপেক্টর এএসএম জিয়াউল হায়দার। তিনি জানান, তৈয়ব আলীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। আইনগত প্রক্রিয়া শেষে নিহতের স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। উল্লেখ্য, এ দুর্ঘটনায় পদ্মা সেতুতে যানবাহন চলাচলে কোনো বিঘ্ন ঘটেনি। বর্তমানে যানবাহন চলাচল পুরোপুরি স্বাভাবিক রয়েছে। 
মেঘনায় ৮০০ যাত্রী নিয়ে লঞ্চ বিকল
মুন্সীগঞ্জে মেঘনা নদীতে প্রায় ৮০০ যাত্রী নিয়ে বিকল হয়ে পড়েছে একটি লঞ্চ। ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা লঞ্চটি বরিশালের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। সোমবার (৮ এপ্রিল) দিবাগত রাত ১০টায় গজারিয়া উপজেলার ষোলআনি এলাকায় বিকল হলে লঞ্চটি নোঙর করা হয়। মঙ্গলবার (৮ এপ্রিল) সকালে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন গজারিয়া নৌপুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা। তিনি বলেন, বরিশালগামী আল-সাফিন সাত্তার খান-১ নামে লঞ্চটি প্রায় ৮০০ যাত্রী নিয়ে ঢাকার সদরঘাট থেকে সন্ধ্যায় ছেড়ে আসে। গজারিয়ায় এসে লঞ্চটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। তবে যাত্রীদের কোনো সমস্যা হয়নি। তিনি আরও বলেন, আল-সাফিন কোম্পানির আরও একটি লঞ্চ ঢাকা থেকে রওনা হয়েছে। লঞ্চটি পৌঁছালে যাত্রীদের নিয়ে গন্তব্যে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করা হবে। ততক্ষণ পর্যন্ত যাত্রীদের নিরাপত্তা দেবো।
২৪ ঘণ্টায় পদ্মা সেতুতে যত টাকা টোল আদায়
ঈদযাত্রাকে কেন্দ্র করে ২৪ ঘণ্টায় পদ্মা সেতুতে ২ কোটি ৮৮ লাখ ৮২ হাজার ৭০০ টাকা টোল আদায় হয়েছে।  সোমবার (৮ এপ্রিল) সেতুর সাইট অফিসের অতিরিক্ত পরিচালক আমিরুল হায়দার চৌধুরী এ তথ্য জানান।  তিনি বলেন, শনিবার (৬ এপ্রিল) রাত ১২টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় এই টোল আদায় হয়। এর মধ্যে মাওয়া প্রান্তে ১ কোটি ৫৩ লাখ ১৬ হাজার ৯০০ টাকা এবং আর জাজিরা প্রান্তে টোল আদায় হয়েছে ১ কোটি ৩৫ লাখ ৬৫ হাজার ৮০০ টাকা। এ সময়ে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্ত দিয়ে ১৩ হাজার ৫২৯টি গাড়ি এবং জাজিরা প্রান্ত দিয়ে ৯ হাজার ৭৭৭টি পরিবহন পারাপার হয়েছে। এদিকে বঙ্গবন্ধু সেতু‌তে রোববার (৭ এপ্রিল) সকাল ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় ২৯ হাজার ৭৮০ যানবাহন পারাপার হয়েছে এবং টোল আদায় হয়েছে দুই কোটি ৫০ লাখ ৮৯ হাজার ২০০ টাকা। এরমধ্যে টাঙ্গাইলের বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব অংশে ১৫ হাজার ৮৫ যানবাহন পারাপারে টোল আদায় হয়েছে এক কোটি ৮৫ লাখ ৪০ হাজার ৫০ টাকা এবং সিরাজগঞ্জের সেতু পশ্চিম অংশে ১৪ হাজার ৬৯৪ যানবাহন পারাপারে টোল আদায় হয়েছে এক কোটি ৩২ লাখ ৩৫ হাজার ১৫০ টাকা।  
মুন্সীগঞ্জে ১১ ঘণ্টা পর সুপার বোর্ড কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে 
মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দি ইউনিয়নের মেঘনা নদীর পাড়ে প্লাই বোর্ড তৈরির কারখানার গুদামে লাগা আগুন প্রায় ১১ ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে এনেছে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট। রোববার (২৪ মার্চ) দুপুরে এই আগুনের সূত্রপাত। মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি, আরটিভি সোমবার (২৫ মার্চ) দৃশ্যমান আগুন নিভে গেছে। তবে গুদামে মজুত করা পাটখড়ি ও প্লাই বোর্ডে আগুনের ফুলকি আছে। বর্তমানে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি  ইউনিটের  ৫৭ জন কর্মী কাজ করছেন।  ফায়ার সার্ভিস ও কারখানা-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রোববার (২৪ মার্চ) বেলা সোয়া ১টার দিকে গুদামে মজুত করা পাটখড়িতে আগুন ধরে গেলে শ্রমিক ও স্থানীয় লোকজন নেভানোর চেষ্টা করেন। তবে বাতাসের কারণে আগুনের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় তারা ব্যর্থ হন। গুদামের পাশেই নদীতে পাটখড়িবোঝাই তিনটি ট্রলার মালামালসহ পুড়ে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হয়। প্রথম দিকে গজারিয়া ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট, এরপর নারায়ণগঞ্জের আরও চারটি ইউনিট আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়। আগুনের তীব্রতা বেশি হওয়ায় কুমিল্লা, ঢাকা থেকেও ফায়ার সার্ভিসের আরও কয়েকটি দল আসে। রাত সাড়ে আটটায় আগুনের ভয়াবহতা কমতে শুরু করে।  গজারিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কোহিনুর আক্তার গণমাধ্যমকে বলেন, রোববার (২৪ মার্চ) দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত গজারিয়া, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা ও কুমিল্লা ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট আগুন নেভাতে টানা কাজ করেছে। দৃশ্যমান আগুন নিভে গেছে। তবে গুদামের মজুত করা পাটখড়ি ও প্লাই বোর্ডে আগুনের ফুলকি আছে। বর্তমানে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট কাজ করছে। পাটখড়ি ও প্লাই বোর্ডের ওপরের স্তরে ফুলকি আছে। পানি ছিটিয়ে একটি একটি করে আগুন নির্বাপণ করে মালামাল সরানো হচ্ছে। এ ঘটনায় কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।