• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি শরণার্থী সংস্থাকে তহবিল দেবে না যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:৫৭ | আপডেট : ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৯:১২
ইউএনআরডব্লিউএ’র অর্থায়নে পরিচালিত একটি স্কুল (ফাইল ছবি)

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর জানিয়েছে, দেশটি জাতিসংঘের ফিলিস্তিনি শরণার্থী বিষয়ক সংস্থাকে সব তহবিল দেয়া বন্ধ করছে। তারা বলছে, জাতিসংঘের ত্রাণ ও কর্ম সংস্থা (ইউএনআরডব্লিউএ) ‘অবিশ্বাস্যভাবে ত্রুটিপূর্ণ’। খবর বিবিসির।

পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র হিদার নুয়ের্ট বলেছেন, মার্কিন প্রশাসন এই ইস্যু ‘সতর্কভাবে পর্যালোচনা’ করেছে এবং ‘ইউএনআরডব্লিউএ-তে অতিরিক্ত তহবিল দেবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের এমন পদক্ষেপের জবাবে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, এটি ফিলিস্তিনি জনগণের বিরুদ্ধে  একটি ‘হামলা’।

ওই মুখপাত্র নাবিল আবু রুদেইনা বলেন, এ ধরনের পদক্ষেপে এই বাস্তবতার পরিবর্তন হবে না যে এই অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের কোনও ভূমিকা নেই এবং একটি সমাধান প্রক্রিয়ার কোনও অংশ নয়।

তিনি আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের এই সিদ্ধান্ত ‘জাতিসংঘের প্রস্তাবনার বিরোধী’।

এদিকে ইউএনআরডব্লিউএ-র একজন মুখপাত্র ক্রিস গানস সিরিজ টুইট বার্তায় সংস্থাটির ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের দাবি নাকচ করে দিয়েছেন।

তিনি লিখেন, ইউএনআরডব্লিউএ’র স্কুল, স্বাস্থ্য কেন্দ্র এবং জরুরি সাহায্য কর্মসূচি ‘অবিশ্বাস্যভাবে ত্রুটিপূর্ণ’ এমন সমালোচনা দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান করছি।

এর আগে চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইউএনআরডব্লিউএ’র ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের নীতি বদলের ইঙ্গিত দেন। তখন এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প লিখেন, ওই অঞ্চলে আমরা এত বিপুল পরিমাণ তহবিল দিয়েও ‘কোনও প্রশংসা বা সম্মান’ পাচ্ছি না।

ইসরায়েলের সঙ্গে ফিলিস্তিনের আলোচনায় অনীহা রয়েছে এমন অভিযোগ তুলে একই মাসে ইউএনআরডব্লিউএ’তে তহবিল কমিয়ে দেয়া হুমকি দিয়েছিলেন ট্রাম্প।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের এমন পদক্ষেপের মধ্যেই শুক্রবার জার্মান জানিয়েছে, তারা ইউএনআরডব্লিউএ’র জন্য তহবিল বৃদ্ধি করবে।

উল্লেখ্য, ১৯৪৮ সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের কারণে বাস্তুচ্যুত হওয়া হাজার হাজার ফিলিস্তিনিকে প্রয়োজনীয় সহায়তা দিতে ইউএনআরডব্লিউএ’ গঠন করা হয়।

এ/ এমকে 

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়