• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

নিরপরাধ শিক্ষার্থীদের রিমান্ডে পৈশাচিক নির্যাতন করা হচ্ছে: রিজভী

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৯ আগস্ট ২০১৮, ১৪:৪১ | আপডেট : ০৯ আগস্ট ২০১৮, ১৫:০৪
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন- রাজধানীর ১৮ থানায় ৩৫টি মামলা দেয়া হয়েছে, যে মামলায় অজ্ঞাতনামা হাজার হাজার শিক্ষার্থীদের জড়িত করা হবে। এমনকি নিরপরাধ শিক্ষার্থীদের আটক করে রিমান্ডে পৈশাচিক নির্যাতন করা হচ্ছে।

আজ বৃহস্পতিবার নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে তিনি একথা বলেন।

রিজভী বলেন- কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে সরকারের করুণামাখা কথা ও সহানুভূতি ছিল ছলনামাত্র। মূলত এর অন্তরালে ছাত্রলীগ-যুবলীগ দিয়ে আন্দোলন দমানোর জনা প্রস্তুতি চলছিল। ছাত্রলীগের আক্রমণকারীদের দেখতে গেলেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী আক্রান্ত শিশু-কিশোর ও সাংবাদিকদের দেখতে গেলেন না।

রিজভী আরও বলেন- কোমলমতি ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলন ন্যায্য ও বিবেক জাগানিয়া। তারা গোপন কিছু করেনি। তাদের আন্দোলন প্রকাশ্য ও জনসমর্থিত। সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে প্রায় সবাই বলেছেন কোমলমতি ছাত্রছাত্রীদের দাবি ন্যায়সঙ্গত। তাহলে এখন তাদের ওপর এই সহিংসতা কেন?

-----------------------------------------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : আওয়ামী লীগ ফের ক্ষমতায় এলে গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আসবে : কাদের
-----------------------------------------------------------------------------------------

তিনি বলেন, জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সংস্থা ও মিডিয়া, উন্নয়ন সহযোগী দেশ শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের ওপর ছাত্রলীগের এ সশস্ত্র হামলাকে সহিংস হামলা হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। ছাত্রলীগ আন্তর্জাতিকভাবে টেরোরিস্ট হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ও ওবায়দুল কাদের সেই ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের বাঁচাতেই হাসপাতালে ভর্তি দেখিয়ে তামাশা করছেন। তাদের বাঁচানোর পাঁয়তারা করছেন। কিন্তু এরা রেহাই পাবে না। তাদের এ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ভিডিও ও ছবি পরিচয়সহ দেশি-বিদেশি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে উচ্চ আদালত চিকিৎসার নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু সরকারি প্রতিষ্ঠান বিএসএমএমইউ সরকারের হুকুমে তাকে ভর্তি নেয়নি।

রিজভী আহমেদ বলেন, গতকাল সকল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন শিক্ষামন্ত্রী। বৈঠকে উপাচার্যরা সকল শিক্ষার্থীদের মুক্তি দাবি করেছে কিন্তু শিক্ষামন্ত্রী তা নাকচ করে দিয়েছেন। ক্ষমতাপিপাসা কতো তীব্র হলে শিক্ষামন্ত্রী মাসুম শিশু-কিশোরদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে পারেন। এখন চলছে র‌্যাব-পুলিশ দিয়ে বর্বর ক্র্যাক-ডাউন।

এসময় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবিরসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন : 

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়