• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

সেপটিক ট্যাংকে কাজ করতে গিয়ে প্রাণ গেলো ৩ জনের

নরসিংদী প্রতিনিধি
|  ০৬ আগস্ট ২০১৮, ১৮:১২ | আপডেট : ০৬ আগস্ট ২০১৮, ১৮:২৮
নরসিংদীতে নির্মাণাধীন একটি বাড়ির সেপটিক ট্যাংকে কাজ করতে গিয়ে ৩ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও ১ শ্রমিক।

সোমবার দুপুর সাড়ে তিনটার দিকে শহরের বিলাসদী ব্যাংক কলোনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন ঠিকাদার সিরাজুল ইসলাম (৩৫), শ্রমিক রমিজ (১৭) ও রাকিব (২২)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, এক প্রবাসী বিলাসদি ব্যাংক কলোনি এলাকায় নতুন একটি বাড়ি নির্মাণ করছিলেন। কয়েক দিন আগে সেপটিক ট্যাংকের ছাদের ঢালাই দেয়া হয়।

আজ দুপুরে ট্যাংকের ভেতরের কাঠ ও বাঁশ খোলার জন্য প্রথমে রমিজ নামের এক শ্রমিক ভেতরে প্রবেশ করে। বেশ কিছুক্ষণ হয়ে গেলেও তার কোনও সাড়া-শব্দ পাওয়া যাচ্ছিল না।

পরে রাকিব নামে আরও এক শ্রমিককে পাঠানো হয়। সেও ফিরে না আসলে, বাড়ির ঠিকাদার সিরাজুল ইসলাম ট্যাংকির ভেতর নামে। তিনজনের কেউ ফিরে না আসলে কামাল নামে এক শ্রমিক ভেতরে মাথা দিয়ে দেখতে গেলে সে অসুস্থ হয়ে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়া হয়।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : নাটোরে স্কুলের সিলিং ফ্যান খুলে ৩ শিক্ষার্থী আহত
-------------------------------------------------------

কিন্তু ট্যাংকের মুখ সরু ও অন্ধকার হওয়ায় আটকে পরাদের উদ্ধার করা যাচ্ছিল না। পরে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট যৌথভাবে ট্যাংকের ছাদ ভেঙে তিনজনকে বের করে নিয়ে আসে। পরে  গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নেয়া হলে, কত্যর্বরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। তবে তিন শ্রমিক নিহত হলেও বাড়ির মালিককে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

নরসিংদী ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক মো.শফিকুর ইসলাম বলেন, ধারণা করা হচ্ছে নির্মাণাধীন বন্ধ ট্যাংকটিতে প্রচণ্ড মিথেনাইল গ্যাস হয়ে গিয়েছিল। তাই তারা ভেতরে ঢুকার সঙ্গে সঙ্গেই অজ্ঞান হয়ে যায়।  

হাসপাতালের আবাসিক কর্মকর্তা আরএমও ডা. এম এন মিজানুর রহমান আরটিভি অনলাইনকে বলেন, হাসপাতালে আনার পর তাদের তিনজনকেই মৃত হিসেবে পাওয়া যায়। ধারণা করা হচ্ছে অক্সিজেনের অভাব ও বিষাক্ত গ্যাসের কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।

আরও পড়ুন : 

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়