• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

ফের আইভীর বাজিমাত

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট, নারায়ণগঞ্জ
|  ২২ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১:৩৭ | আপডেট : ২৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১০:৫৮
দ্বিতীয়বারের মতো নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) মেয়র নির্বাচিত হলেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানকে ৭৭ হাজার ৯০২ ভোটে পরাজিত করলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার মধ্যেই ১৭৪টি কেন্দ্রের সবগুলোর প্রাথমিক ফলাফল পাওয়া যায়। এতে আইভী পান ১ লাখ ৭৬ হাজার ৮২৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে সাখাওয়াত হোসেন খান পান ৯৬ হাজার ৬৭৪ ভোট।

এদিকে সব রাস্তার জনস্রোত এসে মিশেছে চুনকা বাড়ির দিকে। রাত সোয়া ৯টার দিকে আইভী বাসা থেকে বেরিয়ে জনতার মাঝে নামেন। এ সমসয় উল্লসিত জনতা তাকে অভিনন্দন জানাতে থাকলে হাসিমুখে বিজয় চিহ্ন দেখান আইভী। এ সময় গণমাধ্যম কর্মীরাও তাকে ঘিরে কথা বলতে চাইলেও হাসিমুখে ফিরিয়ে দেন।

সকাল থেকেই নারায়ণগঞ্জে ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় শুরু হয়ে বিরতিহীনভাবে ভোট চলে বিকেল ৪টায়। ১৭৪ ভোট কেন্দ্রের ১ হাজার ৩০৪টি ভোট কক্ষে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন ভোটাররা। এ সিটি করপোরেশনে মোট ভোটার ৪ লাখ ৭৪ হাজার ৯৩১ জন। যার মধ্যে পুরুষ ২ লাখ ৩৯ হাজার ৬৬২ এবং নারী ২ লাখ ৩৫ হাজার ২৬৯ জন।

রাতে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ফল প্রকাশের সঙ্গে আনন্দ উল্লাসে মেতে ওঠেন সমর্থকরা। জয়ের আভাস পেয়ে সন্ধ্যার পর থেকেই শহরের পাইকপাড়া দেওভোগে সেলিনা হায়াৎ আইভীর বাড়ির সামনে ভিড় করেন জনতা। মেতে ওঠেন উৎসবের আমেজে। সেই সঙ্গে চলে বাদ্যবাজনা, বিজয় স্লোগান আর আতশবাজি। নানান আলোকসজ্জায় সাজানো হয়েছে আইভীর বাড়ির আশপাশ।

সিটি করপোরেশন হিসেবে যাত্রা শুরুর পর নারায়ণগঞ্জে এটি দ্বিতীয় নির্বাচন। তবে এবারই প্রথম দলীয় প্রতীকে অংশ নেন মেয়র প্রার্থীরা। নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ায় ফলাফল যাই হোক জনতার রায় মেনে নেবেন, আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন সব দলের প্রার্থী।

এ নির্বাচনে ৭টি রাজনৈতিক দল থেকে ৭ মেয়র প্রার্থী, ২৭টি সাধারণ ওয়ার্ডে ১৫৬ সাধারণ কাউন্সিলর এবং ৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৩৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে দুই মেয়র প্রার্থী বিএনপির সাখাওয়াত হোসেন খানকে সমর্থন দেন।



এইচটি/ এস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়