logo
  • ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

আরটিভি নিউজ

  ০৫ অক্টোবর ২০২০, ১৫:১৩
আপডেট : ০৫ অক্টোবর ২০২০, ১৫:৪৯

বখাটেদের প্রস্তাবে রাজি ছিলেন না ওই নারী, তাই ভিডিও ছেড়ে দেয়

‘অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ভিডিও ছেড়ে দেয় ওরা’
নারী নির্যাতন
বিবস্ত্র করে ভিডিওর মাধ্যমে গৃহবধূকে ব্লাক মেইলিং করে আসছিলো নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের সেই বখাটেরা। অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিবস্ত্র করে শারিরীক নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। ভুক্তভোগী নারী (৩৭) তার দায়ের করা মামলার এজাহারে এমনটিই উল্লেখ করেছেন।

গত সেপ্টেম্বর মাসের শুরুর দিকের এই ঘটনায় ওই নারী গতকাল রোববার বেগমগঞ্জ থানায় ২টি মামলা দায়ের করেন। একটি মামলা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে, অন্যটি পর্ণগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে। দুই মামলাতেই ৯ জনকে আসামি করা হয়।

এই চাঞ্চল্যকর ঘটনা নিয়ে আজ সোমবার (৫ অক্টোবর) হাইকোর্ট মন্তব্য করে বলেছেন, ‘ফেসবুকে না আসলে বেগমগঞ্জের ঘটনাতো গোপনই থেকে যেত’।

আজ সকালে নির্যাতনের বিষয়টি আইনজীবী আব্দুল্লাহ আল মামুন হাইকোর্টের নজরে আনলে এ বিষয়ে জানতে চান বিচারপতি মুজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীম। এ সময় জঘন্য ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নিতে আদালতকে অনুরোধ করেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি এএম আমিন উদ্দিন।

এদিকে গতকাল রোববার রাতে দায়ের করা মামলার এজাহারের ওই নারী অভিযোগ করেন, তার স্বামীকে বেঁধে রেখে আসামিরা তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। তারা এ ঘটনার ভিডিওচিত্র ধারণ করেন। গত ১ মাস যাবত তারা এই ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার কথা বলে তাকে অনৈতিক প্রস্তাব দিচ্ছিলেন। তিনি এই অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তারা ফেসবুকে ভিডিওটি ছেড়ে দেন।

সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের এক সদস্য গণমাধ্যমে জানান, ভুক্তভোগী নারী ১৮ বছর আগে বিয়ে হয়। তার স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় কয়েক বছর আগে তিনি বাবার বাড়ি চলে আসেন। তার এক ছেলে ও মেয়ে আছে। মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। বাড়িতে ওই নারী ছেলে ও এক ভাইয়ের সঙ্গে থাকতেন। সম্প্রতি তার স্বামী তার কাছে আসা-যাওয়া করতে শুরু করেন। এ নিয়ে কয়েকজন যুবক আপত্তি জানিয়ে সেদিন ওই নারীকে নির্যাতন করেন। ঘটনার দিন ওই নারী তার স্বামীর সঙ্গেই ছিলেন। নির্যাতনকারীরা তার স্বামীকেও আটক করে নিয়ে যায়। পরে ওই নারীর ভাই পনেরশো টাকা দিয়ে তাকে ছাড়িয়ে আনেন। ওই নারীর মা নেই। বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করে অন্যত্র থাকেন।

আরও পড়ুনঃ

নোয়াখালীতে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের দুই মামলায় আসামি যারা

গৃহবধূকে শ্লীলতাহানির ভিডিও সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের

স্কুলছাত্রীকে নৌকায় তুলে বিলে নিয়ে গণধর্ষণ

বাসায় কেউ না থাকায় শিশুকে একাধিকবার ছাদে নিয়ে ধর্ষণ

জেলা পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পরই তারা বিষয়টি জানতে পারেন। এবং তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নেন। নির্যাতনের শিকার নারীকে উদ্ধার করা হয়েছে। তার বক্তব্য অনুযায়ী আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে এ ঘটনার প্রধান আসামি বাদলসহ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাদলকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। এ ছাড়া এই ঘটনায় দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ারকেও অস্ত্রসহ নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর আগে গতকাল রোববার বিকেলে মো. রহিম (২০) ও রাত ১০টার দিকে রহমত উল্লাহ (৪১) নামের ২ জনকে গ্রেপ্তার করে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ। দুই মামলায় সকল আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো।

কেএফ/ এমকে

RTVPLUS