logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭

নীল কাগজে সই নিয়ে শারীরিক সম্পর্ক শেষে বাড়িতে পাঠানো হলো তরুণীকে

শেরপুর×আরটিভি×নিউজ×ধর্ষণ×কাজী×অস্বীকার×পড়াননি×চাইলে×
ছবি সংগৃহীত

শেরপুরে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রলোভন ও নীল কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার যুবকের নাম নাঈম নাসান রুবেল।

গতকাল দিনগত রাতে সদর উপজেলার কামারিয়া ইউনিয়নের গোলকামারিয়া এলাকাস্থ নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ধর্ষক রুবেল স্থানীয় ভাঙারি ব্যবসায়ী রুহুল আমিন।

আরও পড়ুন : রাত তিনটায় লেচুবাগানে গিয়ে স্কুলছাত্রী দেখলো প্রেমিক নয় লাবু দাঁড়িয়ে আছে

মামলা সূত্রে জানা যায়, শেরপুর সদর উপজেলার ধলা ইউনিয়নের বাসিন্দা এক তরুণীকে (১৯) এর সঙ্গে পার্শ্ববর্তী এলাকার নাঈম হাসান রুবেল প্রেমের সম্পর্ক ছিলো।

একপর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গেলো বছরের ১১ আগস্ট ওই তরুণীকে ধলা ইউনিয়নের কাজী আব্বাছ উদ্দিন আহমদের অফিসে নিয়ে একটি নীল কাগজে স্বাক্ষর নেয় এবং নোটারি পাবলিক অফিসে গিয়ে এফিডেভিট করে বিয়ের ঘোষণা দেয়। পরে ওই তরুণীকে রুবেল তার বাসায় নিয়ে ১৮ দিন শারীরিক মেলামেশা করে। পরে ওই তরুণীকে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় রুবেল।

আরও পড়ুন : মেয়েটিকে কয়েক দফা ধর্ষণ শেষে মার্কেটের দোতলায় আটকে রাখা হয়

এ ঘটনা জানতে পেরে ওই তরুণীর বাবা কাজী অফিসে গিয়ে বিয়ের কাবিননামা চাইলে কাজী আব্বাছ উদ্দিন বিয়ে পড়াননি বলে অস্বীকার করেন।

পরে ওই তরুণী বাদী হয়ে গেলো ২৪ জানুয়ারি শেরপুরের আদালতে নাঈম হাসান রুবেলের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা করেন।

আরও পড়ুন : ইউল্যাব শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ ও হত্যা: দুই বন্ধু রিমান্ডে

এদিকে নীল কাগজে স্বাক্ষর নেয়ার অভিযোগের বিষয়ে ধলা ইউনিয়নের কাজী আব্বাছ উদ্দিন বলেন, তারা আমার কাছে এসেছিল। আমি ওই বিয়ে পড়াইনি। নোটারি পাবলিক অফিসে তারা কিভাবে বিয়ের ঘোষণা দিয়েছে সেটা তাদের বিষয়।

শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ হান্নান মিয়া গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : মজা কিনে দেওয়ার কথা বলে নাতনিকে ঘরে নিয়ে গেলো নানা

জেবি

RTV Drama
RTVPLUS