• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

জিততে হলে নিজেদের সেরাটা দিতে হবে: মাহমুদুল্লাহ

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৮:৪১ | আপডেট : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৯:০৪
সবশেষ তিনবারের এশিয়া কাপে দুইবারই রানার-আপ বাংলাদেশ। ২০১২ সালের এশিয়া কাপের ফাইনাল ম্যাচে হারার দৃশ্যটা উইকেটে দাঁড়িয়েই দেখছিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ফাইনাল ম্যাচ জিততে হলে শেষ বলে যখন চার রান দরকার, স্ট্রাইকে ছিলেন শাহাদাত হোসেন। শাহাদাত সেদিন হিরো হতে আর পারেননি চার মেরে।

২০১২ সালের এশিয়া কাপে চ্যাম্পিয়ন হবার সহজ সুযোগটা খুব কাছে পেয়েও হাতছাড়া করার পর পর আবারও সেই সুযোগ আসে ২০১৬ এশিয়া কাপে।

আবারও সেই ঘরের মাঠ। এবারের ফাইনাল ম্যাচের প্রতিপক্ষ ভারত। আবারও হতাশা। ভারতের কাছে হারতে হয়েছিল ৭ উইকেটে।

দুই বছর বাদে আবারও ফিরেছে এশিয়া কাপ। এবার আর ঘরের মাঠ নয়। বদলেছে ভেন্যু, বেড়েছে দল।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে ১৪তম এশিয়া কাপের আসর।

------------------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : মেসি-রোনালদোর পার্থক্য তুলে ধরলেন তেভেজ
------------------------------------------------------------------

সেখানকার কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে প্রায় সপ্তাহ খানেক আগেই পৌঁছেছে মাশরাফি বিন মর্তুজার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজে ক্যারিবিয়ান লিগ খেলে দলের সঙ্গে নির্দিষ্ট সময়ে যোগ দিয়েছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদও। ২০১২ এশিয়া কাপের সেই দুঃসহ স্মৃতিও নিশ্চয় মনে পড়ছে আরেকটা এশিয়া কাপ শুরুর আগে।

আসরের প্রথম ম্যাচই আবার প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ এদিন শুধু শ্রীলঙ্কার ১১ জনই নয়, আছে টাইগারদের সাবেক কোচ হাতুরু সিংহে আর গত মার্চের ১৬ তারিখে নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে উঠার তপ্ত স্মৃতিও।

সব মিলিয়ে কি ভাবছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ?

'নিদাহাস ট্রফিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ভালো স্মৃতি আছে আমাদের। কিন্তু তারা বেশ ভালো দল। ওদেরকে হারাতে হলে নিজেদের সেরাটা খেলতে হবে আমাদের। আমাদের প্রস্তুতিতেও কমতি নেই। আশা করি আমরা ভাল কিছু করতে পারব।'

দলের ভালো কিছুর সঙ্গে নিজের কথাটাও ভাবছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। এই টুর্নামেন্টেও কিছু করে দেখাতে চান বাংলাদেশ দলের মিডল অর্ডারের আস্থার প্রতীক।

'এশিয়া কাপেও ব্যক্তিগতভাবে কিছু করার চেষ্টা করব। নিজের জন্য কিছু করতে গেলে সেটা দলের জন্য ভালো। নিজের ভালোর সঙ্গে যদি দলের ভালোটা মিলে যায় সেখানে আনন্দটা আরও বেড়ে যায়। এখানে প্রতিটা ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদেরও সেভাবে খেলতে হবে।'

রিয়াদের ভাবনায় আরব আমিরাতের কন্ডিশন নিয়েও। সেখানকার আবহাওয়া অনেক গরম থাকায় খেলতে কিছুটা কষ্ট হলেও পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে মানিয়ে নেয়া ছাড়া উপায় দেখছেন না রিয়াদ।

তবে রিয়াদও সাকিবের মতো আহ্বান জানান প্রবাসী বাংলাদেশিদের। যেন মাঠে এসে সমর্থন জানায় দলকে।

আরও পড়ুন  :

এমআর/

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়