• ঢাকা শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫

সরকারের মধ্যে এখন বিএনপিভীতি কাজ করছে: ফখরুল

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৮:১৫ | আপডেট : ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৮:৩১
আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারে সরকারের পরিকল্পনার প্রতিবাদ জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকারের মধ্যে এখন বিএনপিভীতি কাজ করছে। এই ভীতি থেকে বাঁচার জন্য তারা ইভিএম নিয়ে আসছে।

বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শনিবার দুপুর ২টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে আয়োজিত জনসভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ দাবি করত তাদের সঙ্গে তরুণ সমাজ আছে। এখন এই তরুণ-যুবকরা চায় এই দুঃশাসনের পাথর যেন তাদের বুকের ওপর থেকে সরে যায়। আওয়ামী লীগ রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গেছে। জনগণ এখন তাদের কাছ থেকে দূরে সরে গেছে।

সমাবেশ থেকে বৃহত্তর ঐক্যের ডাক দিয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এখন আর বিভেদ নয়, গণতন্ত্র রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। দেশ রক্ষায় বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। 

-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : নয়াপল্টনে বিএনপির ব্যাপক শোডাউন
-------------------------------------------------------

গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, বুকে সাহস নিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। গণতন্ত্রের মাতাকে আর কারাগারে দেখতে চাই না।

এসময় তিনি খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সব মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে গড়ে ওঠা আন্দোলন প্রসঙ্গে বিএনপি নেতা আরও বলেন, রাস্তায় ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা নেমেছিল। আপনারা দেখেছেন কীভাবে তাদের হেলমেট পরে নির্যাতন করা হয়েছে। রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে এ দেশে কোনও নির্বাচন হবে না। নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে, নিরপেক্ষ সরকার গঠন করতে হবে, সংসদ ভেঙে দিতে হবে, সেনা মোতায়েন করতে হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, আজ আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে, সব রাজনৈতিক দল, সংগঠনকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এ সরকারের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। জাতিকে মুক্তি দিতে হবে।

তিনি বলেন, তারেক রহমানকে নিয়ে আবার ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় তাকে সাজা দিতে চাইছে। রায়ের আগে আইনমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলে দিচ্ছেন, এ মামলায় তারেক রহমানের সাজা হবে। তাহলে কি আপনারা আগেই গণভবনে রায় লিখে রেখেছেন। কোনও ষড়যন্ত্রের রায় দেশের জনগণ মেনে নিবে না।

সরকারের উদ্দেশে বিএনপির এ নেতা আরও বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন, তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করুন। অন্যথায় কোনও পরিস্থিতি তৈরি হলে তার দায় আপনাদের নিতে হবে। দেশের জনগণ আপনাদের ক্ষমা করবে না।

এর আগে ট্রাকের ওপর নির্মিত অস্থায়ী মঞ্চে বক্তব্য দেন, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য, ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, যুগ্ম মহাসচিব ও সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্যরা। 

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, সহ প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিম।

এর আগে সকাল থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে বিএনপি ও অঙ্গ দলের নেতাকর্মীরা জনসভাস্থলে জড়ো হতে থাকেন। বেলা বাড়ার সাথে সাথে নেতাকর্মীদের নয়াপল্টনমুখী স্রোত তৈরি হয়েছে।

আরও পড়ুন : 

এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়