• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

শরবত বিক্রেতা থেকে ক্ষমতাধর প্রেসিডেন্ট

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক
|  ২৫ জুন ২০১৮, ২২:৩২ | আপডেট : ২৫ জুন ২০১৮, ২২:৪২
তরুণ বয়সে ছিলেন শরবত বিক্রেতা। আর এখন হয়েছেন আধুনিক তুরস্কের সবচেয়ে ক্ষমতাধর প্রেসিডেন্ট। আধুনিক তুরস্কের জনক হিসেবে পরিচিত মুস্তাফা কামাল আতাতুর্কের পর তুরস্কের রাজনীতিতে এতোটা পরিবর্তন অন্য কোন নেতা আনতে পারেননি।

এরদোয়ানের জন্ম ১৯৫৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। তার বাবা ছিলেন তুরস্ক কোস্ট গার্ডের একজন সদস্য। এরদোয়ানের বয়স যখন ১৩ বছর তখন তার বাবা ইস্তাম্বুলে আসেন। উদ্দেশ্য ছিল পাঁচ সন্তানকে ভালো লেখাপড়া শেখানো। তরুণ বয়সে তিনি বাড়তি উপার্জনের জন্য লেবুর শরবত এবং বিভিন্ন খাবার বিক্রি করতেন। তবে লেখাপড়ায় পিছিয়ে পড়েননি এই নেতা। তিনি ইস্তাম্বুলের মারমারা ইউনিভার্সিটি থেকে ব্যবস্থাপনা বিষয়ে পড়াশুনা করেন। এর আগে তিনি একটি ইসলামিক স্কুলে পড়াশুনা করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনার সময় পেশাদার ফুটবলও খেলেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট।

তুরস্কের রাজনীতিতে রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান এখন এক শক্তিমান নেতা হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন।  তুরস্কের নতুন সংবিধান অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট হিসেবে এরদোয়ান একচ্ছত্র আধিপত্য ভোগ করবেন। রোববার অনুষ্ঠিত নির্বাচনের মাধ্যমে এরদোয়ানের ক্ষমতা আরও পাকাপোক্ত হয়েছে।   

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: মুর্শিদাবাদের আম, এতো দাম!
--------------------------------------------------------

তুরস্কের রাজনীতিতে ১৯৬০'র দশক থেকে চারবার সামরিক হস্তক্ষেপ হয়েছে। তবে সর্বশেষ ২০১৬ সালের সামরিক অভ্যুত্থান নস্যাৎ করে দিয়ে এরদোয়ান তাতে ক্ষমতার উপর তার অবস্থান আরও পাকাপোক্ত করেছেন।  

এরদোয়ানের সমর্থকরা মনে করেন, তিনি দেশটির ডুবন্ত অর্থনীতিকে টেনে তুলেছেন। কিন্তু সমালোচকদের দৃষ্টিতে তিনি একজন স্বৈরশাসক যিনি ভিন্নমতাবলম্বীদের নির্দয়ভাবে দমন করেন।

তুরস্কে একে পার্টি প্রতিষ্ঠিত হবার এক বছর পর ২০০২ সালে ক্ষমতায় আসেন এরদোয়ান। ২০১৪ সালে তুরস্কে অনুষ্ঠিত প্রথম সরাসরি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হবার আগ পর্যন্ত এরদোয়ান ১১ বছর প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তখন প্রেসিডেন্ট ছিল শুধুই একটি আনুষ্ঠানিক পদ। প্রেসিডেন্টের হাতে তেমন কোন ক্ষমতা ছিল না।

আরও পড়ুন:

এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়