• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

উনি কঠোর ব্যবস্থা নেবেন, আমরা সহায়তা করবো: নৌমন্ত্রী

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০১ আগস্ট ২০১৮, ১৬:২১ | আপডেট : ০১ আগস্ট ২০১৮, ১৭:০৭
বুধবার সচিবালয়ে বৈঠকের পর নৌমন্ত্রী শাজাহান খান
সড়ক ও পরিবহন ব্যবস্থা নিয়ন্ত্রণে সরকার যে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে তা বাস্তবায়নে শ্রমিক ও মালিক পক্ষ সহায়তা করবে বলে জানিয়েছেন এ খাতের নেতা ও নৌমন্ত্রী শাজাহান খান।

রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর বাসের ধাক্কায় শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় ঢাকা ও ঢাকার বাইরে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক বৈঠকের পর শ্রমিক ফেডারেশনের প্রধান এ কথা বলেন।

ওই বৈঠকে নৌমন্ত্রী ছাড়াও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ও পরিবহন মালিক- শ্রমিকদের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

দুই শিক্ষার্থীর নিহতের ঘটনায় চতুর্থ দিনের মতো রাজধানীজুড়ে বিক্ষোভ করছেন বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা।

মিরপুর, ফার্মগেট, বাংলামোটর, শাহবাগ, সায়েন্সল্যাব, উত্তরা ও যাত্রাবাড়ীতে বিক্ষোভ চলছে। শিক্ষার্থীদের ভাঙচুর ও মোবাইল কোর্টের অভিযান এড়াতে রাজধানীর প্রায় সব রুটেই বাস চলাচল প্রায় বন্ধ রয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে আজ বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সরকারের তিন মন্ত্রী এ বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন মন্ত্রীরা।

এসময় নৌমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন- ঢাকা শহরে অপ্রাপ্ত বয়স্কদের হাতে গাড়ির স্টিয়ারিং অথচ তাদের লাইসেন্স নেই- এ ধরনের চালকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। আপনি (শাজাহান) আপনার ফেডারেশনের পক্ষ থেকে কী ব্যবস্থা নেবেন?

জবাবে মন্ত্রী হাস্যোজ্জ্বল মুখে বলেন, ইতিমধ্যে মাননীয় মন্ত্রী বলেছেন, স্বরাষ্টমন্ত্রী বলেছেন, আমিও বলেছি তার সঙ্গে- (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দিকে ইংগিত করে) উনি কঠোর ব্যবস্থা নেবেন, আমরা (পরিবহন মালিক ও শ্রমিক) তাকে সহায়তা করবো।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এসময় সবাইকে ট্র্যাফিক আইন মেনে চলার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সকল দাবি পর্যায়ক্রমে মেনে নেয়া হবে। ঢাকায় কোনও ফিটনেসবিহীন, লাইসেন্সবিহীন গাড়ি চলাচল করতে দেয়া হবে না। আন্দোলনের সময় গাড়ি ভাঙচুর ও পোড়ানোর সঙ্গে স্বার্থন্বেষী মহল জড়িত।

---------------------------------------------------------------
আরও পড়ুন  : লাইসেন্স নেই, তাই আধঘণ্টা পুলিশের গাড়ি আটকে রাখল শিক্ষার্থীরা
---------------------------------------------------------------

তিনি বলেন, দেশের প্রত্যেক স্ট্যান্ডে মালিক সমিতি, শ্রমিক সমিতি ও প্রশাসনের লোকজন গাড়ি থেকে যখন বের হবে তখন টার্মিনাল থেকে চেক করে বের করবে। এসময় তাদের ফিটনেস, ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং গাড়ির লাইসেন্স ঠিক আছে কিনা তা চেক করতে হবে। যদি কাগজপত্র ঠিক না থাকে তাহলে গাড়ি স্ট্যান্ড থেকে বের হতে পারবে না, তা বাসই হোক কিংবা ট্রাকই হোক।

এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়