logo
  • ঢাকা রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬
evaly

ফেসবুক থেকে তামিমের পেজ উধাও

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ০৬ জুলাই ২০১৯, ১৫:০৮ | আপডেট : ০৬ জুলাই ২০১৯, ১৫:২০
BANvIND- rtvonline
ভারতের বিপক্ষের রোহিত শর্মার ক্যাচ মিস করেন তামিম ইকবাল || ছবি- সংগৃহীত
ভারতের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি বাংলাদেশ। টস জেতার পর ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিলো ভারত। ম্যাচের পঞ্চম ওভারের বল করছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। চতুর্থ বলে ডিপ স্কয়ার লেগে বড় কিছু করার চেষ্টায় ছিলেন রোহিত শর্মা। যদিও ডান-হাতি এই ওপেনারের শটটি ছিল দুর্বল। দৌড়ে এসে হাতের নাগালে বলটি নিয়েও শেষপর্যন্ত সেটি রাখতে ব্যর্থ হলেন ফিল্ডার তামিম ইকবাল। ৯ রানে নতুন জীবন পেয়ে গেলেন রোহিত। গেল ২ জুলাই এজবাস্টনে ভারতের সহ-অধিনায়ক থামলেন ১০৪ রান করে। দলীয় সংগ্রহ দাঁড়াল নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ৩১৪ রান। তামিমের ওই ভুলের মাশুল দিতে গিয়ে শেষপর্যন্ত বাংলাদেশ করতে সক্ষম হয় সব উইকেট হারিয়ে ২৮৬ রান। ব্যাট হাতেও বড় কিছু উপহার দিতে পারেননি টাইগার ওপেনার। ফলাফল ২৮ রানে হারতে হলো মাশরাফি বিন মুর্তজার দলকে। তার থেকে বড় বিষয়টি হচ্ছে সেমি-ফাইনালের দৌড় থেকেই ছিটকে যেতে হয় বাংলাদেশকে।

এই ম্যাচের মাধ্যমে বাংলাদেশের অনেক ক্রিকেট সমর্থক কাঠগড়ায় দাঁড় করান তামিমকে। নিজেদের টাইমলাইন ছাড়াও বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে সেরা এই ব্যাটসম্যানের ফেসবুক পেজ, ইনস্টাগ্রাম ও টুইটারে অনেকেই বাজে মন্তব্য করতে থাকেন ব্যবহারকারীরা। 

এর আগেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বাংলাদেশ দলের অনেক খেলোয়াড়দের হেনস্তা করতে দেখা গেছে। বাদ যায়নি তাদের পরিবারের সদস্যরাও। স্ত্রী থেকে শুরু করে সন্তানদের নিয়েও বাজে মন্তব্য করেছেন অনেকেই।

তামিমের ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা তার ছেলে আরহাম ইকবালের ভিডিওতে ভারতের বিপক্ষে তামিমের ক্যাচ ফেলা নিয়ে বাজে মন্তব্য করতে দেখা গেছে অনেক ব্যবহারকারীকে।

শনিবার সকাল থেকে ফেসবুকে থাকা তামিমের অফিশিয়াল পেজটি আর পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে ফেসবুকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। কেউ কেউ বলছেন তামিমের পেজটি রিপোর্ট করে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। অনেকেই লিখেলেন প্রচণ্ড বাজে মন্তব্য আশায় পেজটি আপাতত বন্ধ রাখা হতে পারে।

তামিমের পারফরম্যান্স নিয়ে এর আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছিলেন বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডস। কোচের দাবি চেষ্টা করেও নিজের সেরাটা দিতে পারেননি তামিম। রোডস বলেন, ‘আমি বলব, তামিমের পারফরম্যান্সে আন্তরিকতা ছিল। নিজের সেরা চেষ্টাটা করেছে। 

ক্যাচ মিস ক্রিকেটেরেই অংশ। যদিও বাংলাদেশের অন্যতম সেরা ফিল্ডার হিসেবে তামিম নিজেকে আগেই প্রমাণ করেছেন। আর ব্যাটসম্যান তামিম তো টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি তিন ফরম্যাটে সবচেয়ে সেরা।

ওয়ানডেতে ৬ হাজার ৮৭১ , টেস্টে ৪ হাজার ৩২৭ ও টি-টোন্টিতে ১ হাজার ৬১৩ রান রয়েছে ৩০ বছর বয়সী এই তারকা। চলতি বিশ্বকাপটা ভালো জায়নি তার সব মিলিয়ে ৮ ইনিংসে ব্যাট করে ২৮.৮৭ গড়ে ২৩১ রান সংগ্রহ করেন।

যদিও বাংলাদেশ কোচ রোডস ও অধিনায়ক মাশরাফি দুই জনই মনে করেন- আগামী বিশ্বকাপ পর্যন্ত দলের হয়ে খেলার সামর্থ্য রয়েছে তামিমের। ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে নিজের সেরাটা দিতে পারেননি। তবে ২০২৩ সালের ভারত বিশ্বকাপে ঠিকই জ্বলে উঠবেন বাংলাদেশের অনত্যম সেরা এই ক্রিকেটার। 

ওয়াই/সি

evaly
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়