logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬
evaly

ভারতের জয়ে দ. আফ্রিকার টানা তৃতীয় হার

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ০৫ জুন ২০১৯, ২৩:৩৪ | আপডেট : ০৫ জুন ২০১৯, ২৩:৪৫
ছবি- সংগৃহীত
বরাবরের মতোই ভারত যে শক্তিশালী দল নিয়ে বিশ্বকাপ খেলতে এসেছে সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না। ফেভারিটের তালিকায়ও আছে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের পরেই। শুরুটাও হলো ফেভারিটের মতো।

evaly
সাউদাম্পটনে আজ দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হয় বিরাট কোহলিরা। একদিকে ভারতের বিশ্বকাপ শুরু আর অন্যদিকে টানা দুই ম্যাচে হেরে ন্যুব্জ প্রোটিয়ারা। প্রথমে ইংল্যান্ড পরে বাংলাদেশ। আজ ভারতের কাছে হেরে শঙ্কা জেগেছে লিগ পর্ব থেকেই বিদায় নেয়ার। যদিও বাকি আছে আরও ৬ ম্যাচ। সেমিফাইনালে খেলতে হলে অন্তত পাঁচ ম্যাচ তো জিততে হবে!

রোজ বোলে টস জিতে প্রোটিয়া অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি সিদ্ধান্ত নেন ব্যাটিংয়ের। ডু প্লেসির এই সিদ্ধান্ত শেষপর্যন্ত সুখকর হয়নি মোটেও শুরু থেকেই ভারতীয় বোলারদের উইকেট দিতে হয়েছে নিয়মিত বিরতিতে।

যুজবেন্দ্র চাহাল, জাসপ্রিত ভুমরাহরা বেশিক্ষণ উইকেটে টিকতে দেয়নি ডু প্লেসি-মিলারদের।

দুই ওপেনার হাশিম আমলা এবং কুইন্টন ডি ককের জুটি ভাঙে ১১ রানের মাথায়। দুই ওপেনারকেই সাজঘরে ফেরান জাসপ্রিত ভুমরাহ।

তিন নম্বরে ব্যাট করতে এসে ডু প্লেসি করেন ৫৪ বলে ৩৮ রান। প্লেসিকে ফেরান চাহাল। ভ্যান ডার ডুসেনকে ২২ আর ডেভিড মিলারকেও ৩১ রানে ফেরান চাহাল।

জেপি ডুমিনির ব্যাটে আসে ৩ রান। ৩৪ রান করা অ্যান্ডিল ফেলুকাওকে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলে সাজঘরের পথ দেখান মহেন্দ্র সিং ধোনি। ক্রিস মরিস আর কাগিসো রাবাদার ঝড়ো ব্যাটিং প্রোটিয়াদের খানিক আশা দেখালেও ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২২৭ রান পর্যন্ত তুলতে পারে দক্ষিণ আফ্রিকা। মরিস করেন ৩৪ বলে ৪২ আর রাবাদা করেন ৩১ রান।

ভারতের হয়ে ৪ উইকেট নেন চাহাল, ২টি করে উইকেট নেন ভুবনেশ্বর কুমার ও জাসপ্রিত ভুমরাহ। ১টি উইকেট নেন কুলদীপ যাদব।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারতীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ান সাজঘরে ফেরেন মাত্র ৮ রান করে কাগিসো রাবাদার বলে ক্যাচ দিয়ে। দুই নম্বরে ব্যাট করতে নেমে বিরাট কোহলিও টিকতে পারেননি বেশিক্ষণ। তিনি প্রোটিয়া বোলারদের সঙ্গে লড়াই করে ৩৪ বলে ১৮ রান করে ফেরেন অ্যান্ডিল ফেলুকাওয়ের বলে।

লোকেশ রাহুলের ব্যাটে আসে ৪২ বলে ২৬ রান। মহেন্দ্র সিং ধোনিও আজ কম রানের লক্ষ্য পেয়ে ম্যাচটা শেষ করে আসতে পারেননি। মাঝে ওপেনার রোহিত শর্মা তুলে নেন দ্বাদশ বিশ্বকাপে নিজের প্রথম শতক।

শেষে হার্ডিক পান্ডিয়াকে সঙ্গে নিয়ে ৬ উইকেট হাতে রেখে ৪৭ ওভার ৩ বলে খেলা শেষ করে আসেন শর্মা। শর্মা অপরাজিত থেকে যান ১২২ রানে।

এই হারে বিশ্বকাপে টানা তিন হারের লজ্জা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হলো প্রোটিয়াদের।

এমআর/কে

evaly
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়