• ঢাকা বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৮ ফাল্গুন ১৪২৫

আর কখনও কি বিপিএল মাতাতে আসবেন ওয়ার্নার?

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২০ জানুয়ারি ২০১৯, ১৮:০৭ | আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০১৯, ১৮:৪৭
বর্তমান সময়ে বিশ্ব ক্রিকেটে সবচেয়ে বড় নামগুলোর একটি ডেভিড ওয়ার্নার। দলকে জেতানোরে জন্য যেকোনো কিছুই করতে পারা ওয়ার্নার ক্যাপটাউনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচে জড়িয়ে পড়েন বল টেম্পারিং কাণ্ডে। স্বীকার করেছিলেন, সেটিও দলওকে জেতানোর জন্য। যার কারণে সতীর্থ স্মিথসহ নিষিদ্ধ হোন এক বছরের জন্য।

নিষেধাজ্ঞায় পড়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আর দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলতে না পারা এই দুই তারকা ক্রিকেটার ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেট খেলেছেন কানাডা গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি লিগ, ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ হয়ে প্রথমবারের মতো খেলতে আসেন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল)।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের হয়ে দুই ম্যাচ খেলে চোটে পড়ায় বিদায় নিয়েছেন স্টিভ স্মিথ। সিলেট সিক্সার্সের হয়ে ডেভিড ওয়ার্নার খেলেছেন সাত ম্যাচ। দুইজনই ছিলেন নিজের দলের দলনেতা, আবার দুজনই দেশে ফিরেছেন একই কারণে।

গতকাল শনিবার রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে চলতি আসরের শেষ ম্যাচ খেলে ফেলেন ওয়ার্নার।

বিপিএলকে বিদায় বলার আগে অধিনায়কত্বগুণ আর নিজের পারফরম্যান্স দিয়ে মুগ্ধ করেছেন, জায়গা করে নিয়েছেন বাংলাদেশের কোটি ক্রিকেট সমর্থকের মনে।

প্রথমবার বিপিএলে এসে কেমন ছিল ওয়ার্নারের পারফরম্যান্স?

একটা দলকে কিভাবে গুছিয়ে রাখা যায় তার কম চেষ্টা করেননি এই অস্ট্রেলীয় তারকা। তাই সাফল্যও পেয়েছে দলটি। দলের সঙ্গে ওয়ার্নার মেলে ধরেছিলেন নিজেকে।

আসরে নিজের প্রথম ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের বিপক্ষে ১৩ বলে ১৪ রান করে শুরু করেছিলেন বিপিএলের ক্যারিয়ার। পরের ম্যাচে চিটাগাং ভাইকিংসের বিপক্ষে খেলেছিলেন ৫৯ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। তৃতীয় ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে করেছিলেন ৩ বলে ৭ রান।

ঢাকা পর্ব শেষ করে সিলেটে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে শূন্য রানে সাজঘরে ফেরেন স্বাগতিক দর্শকদের হতাশ করে। দ্বিতীয় ম্যাচেই রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে ওয়ার্নার খেলেন ৬১ রানের ম্যাচ জেতানো ইনিংস।

পরের ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে টানা দ্বিতীয় অর্ধশতক তুলে নেন সিক্সার্স অধিনায়ক। ৪৩ বলে খেলেন ৬৩ রানের ইনিংস।

সিলেটে সবশেষ ম্যাচে রংপুরের বিপক্ষে ১৯ রান করে ইতি টানেন প্রথমবারের বিপিএল আসর।

সাত ম্যাচে পাঁচটি ছয় আর উনিশ চারে ৩টি অর্ধশতকসহ করেন মোট ২২৩ রান। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ফিল্ডিংয়েও দেখা গেছে দুর্দান্ত এক ওয়ার্নারকে। এই সাত ম্যাচে ক্যাচ নিয়েছেন ৩টি।

শেষে একটা আক্ষেপ থেকেই যায়, নিজের প্রথম আসরে সবমিলে দূর্দান্ত ফর্মে থাকা ওয়ার্নার কি বাংলাদেশে আসবেন আবার বিপিএলে অংশ নিতে? নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে অস্ট্রেলিয়া দলে ফিরলে যে আবারও ব্যস্ত হয়ে পড়বেন এই বিশ্বসেরা! তখন কি আর সময় হবে বিপিএলে খেলতে আসার?

তবে যাবার বেলায় ওয়ার্নার কৃতজ্ঞতা জানান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড আর নিজের দল সিলেট সিক্সার্সকে। কেননা, তার খারাপ সময়ে ক্রিকেটে ফেরার এমন সুযোগ করে দেয়ায়। 

আরো পড়ুন:

এমআর/এস