• ঢাকা শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

বাংলাদেশ-লাওস পাচ্ছে আলাদা দুটি ট্রফি

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৩ মে ২০১৯, ২০:৪৯ | আপডেট : ০৩ মে ২০১৯, ২১:০২
ফাইল ছবি
শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ মহিলা আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ ২০১৯ এর ফাইনাল বাতিল করা হয়েছে। ফাইনালের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশ ও লাওসকে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। শুক্রবার ম্যাচটি শুরু হবার কথা ছিল সন্ধ্যা ছয়টায়। চ্যাম্পিয়নদের হাতে ট্রফি তুলে দেয়ার কথা ছিল রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদের। সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও নির্ধারিত সময়ে ম্যাচটি শুরু হয়নি। ছয়টা ২০ মিনিটের দিকে জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের পক্ষ থেকে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের প্রেস বক্সের এসে উপস্থিত হন বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী এমপি।

whirpool
তিনি বলেন, লোকাল আয়োজক কমিটি এবং টুর্নামেন্ট কমিটি কর্তৃক সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ফাইনাল খেলাটি বাতিল করা হলো। যার জন্য বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন সংশ্লিষ্ট সবার কাছে আন্তরিক দুঃখপ্রকাশ করছে।

এ সময় সালাম মুর্শেদী জানান, টুর্নামেন্টর ফাইনাল খেলায় অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশ ও লাওস অনূর্ধ্ব-১৯ জাতীয় ফুটবল দলকে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হচ্ছে।

দুই দলকেই চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হলেও ট্রফি পাচ্ছে কারা? এমন প্রশ্নের উত্তরে টুর্নামেন্ট লোকাল কমিটি চেয়ারম্যান সালাম মুর্শেদী প্রাথমিকভাবে বলেছিলেন, আমরা লটারি করে ট্রফি প্রদান করবো।

যদিও এই সিদ্ধান্তটি শুক্রবার রাতে পাল্টানো হয়েছে। ফেডারেশন সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ জানিয়েছেন, চ্যাম্পিয়ন দুই দলকে দুটি আলাদা ট্রফি দেয়া হবে।

বাফুফের এই কর্মকর্তার কাছে জানতে চাওয়া হয় কিভাবে বাংলাদেশ ও লাওস ট্রফি দুটি পাচ্ছে?

আবু নাঈম সোহাগ বলেছেন, যেটি বাংলাদেশে রয়েছে সেটি স্বাগতিকদের জন্য রেখে দাওয়া হবে। অন্যদিকে নতুন একটি ট্রফি তৈরির পর লন্ডন থেকেই লাওসের জন্য সেটি পাঠিয়ে দেয়া হবে।

লন্ডনের বিখ্যাত ট্রফি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইনকারমেন্টের কাছে বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ মহিলা আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের ট্রফি তৈরি করা হয়েছিল। ৮ কেজি ওজনের এ ট্রফির উচ্চতা ২৭ ইঞ্চি।

টুর্নামেন্টের  প্রাইজমানি ছিল ২৫ হাজার মার্কিন ডলার এবং রানার্স-আপ দলের ১৫ হাজার মার্কিন ডলার। বাফুফের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ৪০ হাজার মার্কিন ডলার দুই দলের মধ্যে সমান ভাগ করে দেয়া হবে।

প্রথমবারের মতো আয়োজিত নারীদের নিয়ে আন্তর্জাতিক এই আয়োজনে অংশ নেয় ৬টি দেশ। ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশে সঙ্গে ছিল সংযুক্ত আরব আমিরাত ও কিরগিজস্তান। ‘এ’ গ্রুপে ছিল লাওস, তাজিকিস্তান ও মঙ্গোলিয়া।

‘বি’ গ্রুপ থেকে ফাইনালে উঠতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ। আর ‘এ’ গ্রুপ থেকে উঠে আসা লাওস। দুই দলই অপরাজিত  হিসেবে  টুর্নামেন্ট শেষ করে।

ওয়াই/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়