logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৭ ফাল্গুন ১৪২৬

‘খেলতে আসো বললে তারা বলতো, আগে শিখে আসো’

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৮:৩৯ | আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৮:৪২
‘খেলার কথা বললে বলত, আগে খেলা শিখে আসো’
নাজমুল হাসান পাপন
বিশ্বকাপ জয়ী দেশের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ। গতকাল সুপার সানডেতে পচফস্ট্রমে শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে ইতিহাস গড়ে বাংলাদেশ। দেশকে অনেক বড় সম্মান এনে দিয়েছে ১৯ বছরের যুবারা।

তাদের হার ধরেই বাংলাদেশ গর্ব করে বলতে পারবে, আমরাও বিশ্বকাপ জিতেছি। অথচ এই জায়গায় আসতে আকবর আলীদের করতে হয়েছে হাড়ভাঙা পরিশ্রম।

বাংলাদেশ জাতীয় দল ২০১৫ বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। ২০১৭ সালে আরেক ধাপ এগোয় টাইগাররা। চ্যাম্পিয়ন ট্রফির সেমি-ফাইনালে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশ।

দেশের ক্রিকেটের এই সোনালী সময়ে ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকাকে সিরিজে হারায় ঘরের মাঠে। অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডকে হারায় টেস্টে।

অথচ একটা সময় এই দেশগুলো বাংলাদেশকে খেলার জন্য আমন্ত্রণ জানাতো না। বিশ্বকাপ ছাড়া প্রতিপক্ষ হিসেবে এই দেশগুলোকে পাওয়া যেত না।

সেই হিসেব চুকিয়েছে মাশরাফী-সাকিবরা। তাদের হাত ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেট এখন অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গেছে। এবার তো যুবাদের হাত ধরে বিশ্বকাপটাই জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ।

আজ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) প্রাঙ্গণে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান শোনান না বলা এসব আক্ষেপের কথা। একটা সময় বাংলাদেশ তাদের সঙ্গে খেলতে চাইলে তারা না করে দিত।

‘আমি যখন বোর্ডের দায়িত্ব নিয়ে আইসিসিতে যাই, তখন একটা জিনিস বুঝতে পারি আমাদের সম্পর্কে তাদের ধারণা খুব একটা ভালো না। এমনকি অনেক দেশ আছে যারা আমাদেরকে ডাকে না। আমি যখন বলতাম, আট-নয় বছর হয়ে গেছে তোমরা আমাদের সঙ্গে খেলো না। তারা বলতো, তোমরা খেলা শিখে আসো। আর তোমাদের খেলা দেখতে কে আসবে। মাঠ খালি থাকবে। এটা অনেক বড় লস।’

তিনি আরও বলেন, এখন যেখানেই খেলা হোক না কেন মাঠের প্রায় অর্ধের বেশি দর্শক আমাদের দেশের। এখন সেসব দলও আমাদের সমীহ করে।

২০১৫ সাল থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একটা জায়গা করে নিয়েছে। যেকোনো দলকে হারানোর ক্ষমতা রাখে। এর পেছনের রহস্যটাও জানালেন পাপন।

‘তখন আমি চিন্তা করলাম, আমাদের কী করতে হবে। আমাদের জিততে হবে। যদি পারফরম্যান্স ভালো না হয় আমাদের, যত কিছুই করি না কেন লাভ হবে না। আমরা তখন নজর দিয়েছিলাম, ইমেজ বিল্ড-আপ এবং জিততে হবে। এর জন্য আমাদের যা যা করতে হবে সেসব করেছি। আল্লাহ’র রহমতে আমরা সফলও হয়েছি।’

এমআর/সি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • খেলা এর সর্বশেষ
  • খেলা এর পাঠক প্রিয়