logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট

  ০৫ জানুয়ারি ২০২০, ১৮:১৭
আপডেট : ০৫ জানুয়ারি ২০২০, ১৮:৫১

বিশ্বকাপ তারকার একক নৈপুণ্যে ফেডারেশন কাপ বসুন্ধরার

bashundhara kings
ছবি- সংগৃহীত
প্রথমবারের মতো ফেডারেশন কাপের শিরোপা নিজেদের করে নিলো বসুন্ধরা কিংস। শনিবার ফাইনালে রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস অ্যান্ড সোসাইটির বিপক্ষে ২-১ গোলে জয় পেয়েছে গেলবারের রার্নাস-আপরা। দলের হয়ে দুটি গোলই করেছেন কোস্টারিকান বিশ্বকাপ তারকা ডেনিয়েল কলিন্ড্রেস। অন্যদিকে প্রতিপক্ষের হয়ে গোল করেন গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড মমদো বাহ।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটে কলিনড্রেসের উড়ন্ত কর্নারে বখতিয়ারের ড্রপ হেড বার ছুয়ে চলে যায়। ৭ মিনিটের মাথায় লিনড্রেসের কর্নাওে নিকোলাস দেলমন্তের হেড গোললাইন থেকে ফেরান রহমতগঞ্জের সুহেল মিয়া। ১৫ মিনিটে নিশ্চিত গোল মিস করে রহমতগঞ্জ। মমদো বাহর ডিফেন্স চেরা পাস বক্সেও মধ্যে খুঁজে নেন সুহেল মিয়াকে। তার সামনে ছিলেন শুধুই বসুন্ধরা গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো। ডান পায়ের যে শর্ট নেন সুহেল তা জিকোর গাঁয়ে লেগে ফিরে আসে।

দু’দলের খেলোয়াড়রা মাঝেমাঝে মেজাজ হারিয়ে ফেলেন। হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েছিলেন। ২০ মিনিট-সতীর্থের কাছ থেকে বল পেয়ে যে শর্ট নেন সুহেল মিয়া তা পোস্টের অনেক বাইরে দিয়ে চলে যায়।

ম্যাচের ৩৯ মিনিটে চোটের কারণে মাঠ থেকে বের হয়ে যান রহমতগঞ্জের তাজিকিস্তান ডিফেন্ডার অ্যাকপোপভ অ্যাসরোরভ। ৪১ মিনিটে বসুন্ধরার গোলের আনন্দ। ডান প্রান্ত থেকে বিশ্বনাথের উড়ন্ত ক্রস লাফিয়ে ওঠে হেডের মাধ্যমে গোল করেন কলিনড্রেস। রাশিয়া বিশ্বকাপ খেলা কোস্টারিকান এই ফরোয়ার্ডেও উচ্চতার কারণেই মূলত মার খেয়ে যান রহমতগঞ্জের ডিফেন্ডাররা।

৬৪ মিনিটে সমতা আনে রহমতগঞ্জ। শাহেদুল আলমের কর্নারে লাফিয়ে ওঠেন অধিনায়ক মমদো বাহর হেড চলে যায় জালে। ৬৮ মিনিটে মতিন মিয়ার মাইনাসে বল পেয়ে মাহবুবুর রহমান সুফিলের শর্ট রহমতগঞ্জ গোলরক্ষকের গ্লাভসে।

৭৬ মিনিটে বসুন্ধরাকে গোল উপহার দেন রহমতগঞ্জ গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ লিটন। কামারা ইয়ুনুসের ব্যাক পাসে বল পান লিটন। শর্ট না মেরে কলিনড্রেসের সঙ্গে ড্রিবলিং করতে গিয়ে বলের নিয়ন্ত্রণ হারান তিনি। বল পেয়ে ঠাণ্ডা মাথায় গোল কওে কিংসকে আবারও এগিয়ে নেন এ বিশ্বকাপার।

ওয়াই

RTVPLUS