logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

দর্শকদের দুয়োধ্বনি শুনলেন মেসিরা

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৪ মে ২০১৯, ১৫:০০
ছবি- সংগৃহীত
৯০ মিনিটে যে কত কিছু বদলে যায় তার প্রমাণ লিভারপুল-বার্সেলোনার ম্যাচটি। চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে এই ম্যাচের পরবর্তী সময়ে এমটা হতে পারে তা স্প্যানিশ দলটি কল্পনাও করতে পারেনি। 

মাত্র একটা গোল বদলে দিতে পারত বার্সার ভাগ্য, যা ৯০ মিনিটে করতে ব্যর্থ লিওনেল মেসি নেতৃত্বাধীন দলটি। প্রথম লেগে ৩-০ গোলে পিছিয়ে থাকা লিভারপুল দ্বিতীয় লেগে ৪-৩ গোলে জিতে নেয়া। ফলে গেল মৌসুমের পর ফের ফাইনালে নিশ্চিত করে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবটি।

গেল সপ্তাহে অ্যানফিল্ডের হতাশার অনেক রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে বার্সেলোনা সমর্থকদের। স্বপ্নের কাছে পৌঁছেও স্বপ্নকে না ছুঁতে পারার হতাশা যেন তাড়া করে বেড়াচ্ছে ঐতিহাসিক দলটির সমর্থকদের। 

আর তাই তো লা লিগার ম্যাচে বার্সার ঘরের মাঠ বার্নাব্যুর এই হালত! স্টেডিয়ামের মোট আসন সংখ্যা ৯৯ হাজার ৩৫৪ জনের। গড় উপস্থিতি ৭৭ হাজার। তবে গেল রোববার গেটাফের বিপক্ষের নিয়ম রক্ষার ম্যাচে মাত্র ৫৭ হাজার ৮৮ জন উপস্থিত ছিলেন।   

শুধু কী তাই? বার্সেলোনা ক্যাম্প ন্যুতে যখন মাঠে নামে গেটাফের পক্ষ থেকে গার্ড অব অনার দেয়া হয় মেসিদের। সেই সময় দর্শকদের কাছ থেকে শুনতে হয়েছে দুয়োধ্বনি লা লিগার চ্যাম্পিয়নদের।

অথচ চলতি মৌসুমে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় ৪৮ ম্যাচ খেলে ৪৮ গোল করেছে আর্জেন্টাইন মহারাজ। পাশাপাশি ২২টি গোল করতে সহায়তায় করেছেন বার্সা অধিনায়ক। তবু ইউরোপ সেরার শিরোপার খুব কাছে গিয়েও ফেরত আশায় মন জয় করতে সক্ষম হননি ব্লাউগ্রানা সমর্থকদের।

এদিন ব্রাজিলিয়ান তারকা ফিলিপে কুতিনহো যখন প্রথমবার বল পায়ে লাগান ঠিক তখনই গ্যালারি থেকে উপহাস করছিল বার্সার দর্শকরা। ঠিক এমনটাই হয়েছে সার্জিও বাসকুয়েটের ক্ষেত্রেও। পর পর দুই বার গোল পোস্টের সামনে থেকে বার্সা ডিফেন্ডার যখন বল ক্লিয়ার করছি গ্যালারি থেকে তার উদ্দেশ্যে উড়ে আসছিল শব্দ। 

যদিও ঘরের মাঠ ফাঁকা থাকলেও ম্যাচটি জিতে নেয় কাতালানরা। আগামী ১৯ মে এইবারের বিপক্ষে স্প্যানিশ লিগের শেষ ম্যাচে মাঠে নামার কথা রয়েছে বার্সার। এ ছাড়া ২৫ মে ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে কোপা দেল রে’র ফাইনালে মুখোমুখি হবে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আর সেটিই হচ্ছে মৌসুমে দলটির শেষ ভরসা।

ওয়াই

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়