• ঢাকা রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬

চ্যাম্পিয়নস লিগে আয়াক্স ও টটেনহ্যামের ফাইনালে ওঠার লড়াই

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ৩০ এপ্রিল ২০১৯, ১১:৪৫ | আপডেট : ৩০ এপ্রিল ২০১৯, ১২:১০
ছবি- সংগৃহীত
চ্যাম্পিয়নস লিগ ফুটবলের প্রথম সেমিফাইনালের প্রথম লেগ আজ। প্রতিপক্ষ ইংলিশ ক্লাব টটেনহ্যাম হটস্পার ও পর্তুগিজ ক্লাব আয়াক্স। পরিসংখ্যানে টটেনহ্যাম এগিয়ে থাকলেও এক জায়গায় উভয় দলই একবিন্দুতে। আর সেটা হচ্ছে একদল প্রায় দুই যুগ ও আরেকদল প্রায় পাঁচযুগ পর চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনাল খেলছে। কিন্তু দূর্ভাগ্যক্রমে এদের একজনকে সেমিতেই থেমে যেতে হবে। কিন্তু কে থামবে তার জন্য অপেক্ষায় থাকতে হবে ফুটবলপ্রেমীদের।

whirpool
পরিসংখ্যান হিসেবে টটেনহ্যাম এগিয়ে থাকলেও অন্যদিক দিয়ে ঐতিহ্যে অনেক এগিয়ে আয়াক্স। টটেনহ্যাম এবারই প্রথম খেলছে চ্যাম্পিয়নস লিগ সেমিফাইনাল। সেখানে আয়াক্স এই টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন চারবার ১৯৭০-৭১, ১৯৭১-৭২, ১৯৭২-৭৩ ও ১৯৯৪-৯৫ মৌসুমে। এ ছাড়া ফাইনাল খেলেছে ১৯৬৮-৬৯ ও ১৯৯৫-৯৬ মৌসুমে। তাই এবার তাদের শিরোপার পেন্টা মিশন। যার নেতৃত্ব দিচ্ছেন ফ্রেঙ্কি দ্য জং। কেউ কেউ তাকে বলছেন নতুন ইয়োহান ক্রুইফ।

আয়াক্সের খেলার ধরনে অনেকে ইয়োহান ক্রুইফের টোটাল ফুটবলের ছায়া খুঁজে পান। তবে এই আয়াক্স ঠিক ৪-৩-৩ ফরমেশনে খেলে না। তাদের ফরমেশন ৪-২-৩-১। ১৯৯৬ সালের পর প্রথম ফাইনাল খেলতে ডাচ লিগ কর্তৃপক্ষও সাহায্য করছে আয়াক্সকে। লিগে আয়াক্স বিরতি পেয়েছে ১০ দিনের বেশি। তাই টটেনহ্যাম কোচ আফসোস করে বলেন, ‘আমরা টানা খেলার মধ্যে থেকে ক্লান্ত। আর ওরা খেলবে সতেজ হয়ে। এটা বাড়তি সুবিধা আয়াক্সের।’

আয়াক্স তাদের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের দলে পেলেও টটেনহ্যাম পাচ্ছে না তাদের সেরা দুই তারকাকে। চোট ও নিষেধাজ্ঞা থাকায় হ্যারিকেন, সের্জে অরিয়ের, এরিক লামেলা, হ্যারি উইঙ্কস ও নেই সন হিউং মিন। এমন ম্যাচের আগে আয়াক্সকে উৎসাহ যোগাতে উদ্বুদ্ধ করেছেন আয়াক্সের সাবেক এবং এক সময়ে বিশ্বের সেরা স্ট্রাইকার প্যাট্রিক ক্লুইভার্ট।

ক্লুইভার্ট বলেন, যখন তোমরা রিয়াল মাদ্রিদ ও জুভেন্টাসকে ছিটকে দিয়েছ, তখন আর কাউকে নিয়ে নার্ভাস হওয়ার নেই। আয়াক্সে খেলোয়াড়দের বলব, সাহসী হও। নিজেদের শক্তি অনুযায়ী খেলো। মাথায় কোনও চিন্তা রেখো না। ঝুঁকি নাও। আর সবচেয়ে বেশি ম্যাচটা উপভোগ কর।

এএ/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়

আজকের প্রশ্ন :

  • হ্যাঁ
    ক্লিক করুন
  • না
    ক্লিক করুন
  • মন্তব্য নেই
    ক্লিক করুন
মোট ভোট সংখ্যা : ৮৯