logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ঘরের মাঠে টেস্ট ক্রিকেটে ফিরছে পাকিস্তান!

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০:২৪ | আপডেট : ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০:৩১

২০০৯ সালের ৩ মার্চ লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের কাছে গাড়ি বোমা হামলার শিকার হয় সফরকারী শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটাররা। সে হামলায় অন্তত ছয়জন ক্রিকেটার গুরুতর আহত হয়। এরপর জরুরি ভিত্তিতে দেশে ফিরিয়ে নেয়া হয় লঙ্কান ক্রিকেটারদের। এরপর কেটে গেছে দশ বছর। কোনও দেশ আর পাকিস্তানে টেস্ট ক্রিকেট খেলতে যায়নি।

এরমধ্যে পাকিস্তানে জিম্বাবুয়ে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, বিশ্ব একাদশ ওয়ানডে খেললেও টেস্ট খেলতে আসেনি কোনও দেশ। অবশেষে পাকিস্তানে টেস্ট ক্রিকেট ফিরছে। প্রতিপক্ষ সেই শ্রীলঙ্কা। অবাক হওয়ার মতই তথ্য। এমনই এক তথ্য দিয়েছে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম এয়ারনিউজ।

তাদের খবর অনুযায়ী চলতি বছরে আইসিসির বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ খেলতে পাকিস্তান যাবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। 

উল্লেখ্য, চলতি বছরের জুলাইয়ে মাঠে গড়াবে এই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম আসর। এটির ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে ২০২১ সালের জুনে। 

এদিকে টেস্ট খেলুড়ে ১২ দল থাকলেও টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে খেলতে পারবে শুধু শীর্ষ ৯ দল। অর্থাৎ, জিম্বাবুয়েসহ নতুন স্ট্যাটাস পাওয়া আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ড অংশ নিতে পারছে না প্রথম আসরে।

শ্রীলঙ্কার পাকিস্তান সফরের সূচি না দিলেও, এরই মধ্যে দুই বোর্ডের মধ্যে কথা পাকাপাকি হয়ে গেছে বলে জানিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সূত্র। যদি দুই পক্ষ একমত হয় তাহলে দুই টেস্টের ভেন্যু হবে করাচি ও লাহোর।

আইসিসির বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম লেগে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা এবং অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলবে পাকিস্তান। যা শেষ হয়ে যাবে ২০২০ সালের মধ্যেই। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দুইটি সে দেশে গিয়ে খেললেও, বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ দুইটি শ্রীলঙ্কার মতোই ঘরের মাঠে খেলতে চাইছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে এমন কোনো প্রতিশ্রুতি বা চুক্তি করা হয়নি। তাই শুধুমাত্র শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দুইটিই হয়তো ঘরের মাঠে খেলতে পারবে পাকিস্তান। আর এমনটা হলে দীর্ঘ ১০ বছর পর নিজেদের মাটিতে টেস্ট ম্যাচ আয়োজন করার সুখস্মৃতি পাবে পাকিস্তানিরা।

উল্লেখ্য, লাহোর হামলার প্রায় ৬ বছর পর ২০১৫ সালে ১টি ওয়ানডে ও ২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে পাকিস্তান সফরে যায় জিম্বাবুয়ে। এরপর ২০১৭ সালের অক্টোবরে একমাত্র টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে পাকিস্তানে যায় ক্যারিবীয়রা। ২০১৮ সালের এপ্রিলে ৩ টি-টোয়েন্টির সিরিজ খেলতে ফের ক্যারিবীয়রা পাকিস্তান সফরে যায়। 

তবে পাকিস্তানের আশার পালে হাওয়া লাগিয়েছে পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল)। এই ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক লিগের দ্বিতীয় আসরের কয়েকটি ম্যাচ আর এবারের আসরের ফাইনাল ম্যাচে বিদেশি তারকা ক্রিকেটারদের উপস্থিতি পরিস্থিতি কিছুটা পাল্টে দিয়েছে।

এএ/এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • খেলা এর সর্বশেষ
  • খেলা এর পাঠক প্রিয়