logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

তিন সংস্করণে তিন অধিনায়ক আফগানদের

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:২৪ | আপডেট : ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৩৫
গুলবদিন নাইব, ওয়ানডে অধিনায়ক
যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তান যে ক্রিকেটে এত দ্রুত ভালো অবস্থানে পৌঁছে যাবে সেটা হয়তো কল্পনাও করেনি কেউ। দলটিতে বর্তমান কয়েকজন ক্রিকেটার আছেন যারা যেকোনো দলকে হারানোর ক্ষমতা রাখেন। ক্রিকেটের সবকটা সংস্করণেই তাদের বিচরণ চোখে পড়ার মতোই।

টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার পর দ্বিতীয় ম্যাচে এসেই আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে দেয়া। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে একের পর এক সাফল্য পাওয়া। একদিনের ক্রিকেটেও যেকোনো দলওকে ভয় ধরিয়ে দেয়া তাদের অভাবনীয় সাফল্যই বলা চলে।

রহমত শাহ (টেস্ট অধিনায়ক)

আসন্ন বিশ্বকাপের বাকি নেই দুই মাস। বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে আয়ারল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো দলগুলোকে হারিয়ে মূল পর্বে জায়গা করে নেয়াটাও এতটা সহজ ছিল না।

এত সব চমকের পর এবার চমক দেখাল অধিনায়কত্ব নির্বাচনে। তিন সংস্করণে তিন অধিনায়ক! ক্রিকেট খেলুড়ে অনেক দেশও এই সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি এখনও।

তাদের ওয়ানডে অধিনায়ক আসগর আফগানের নেতৃত্বে গত চার বছর যথেষ্টই সাফল্য পেয়েছে আফগানিস্তান। কিন্তু বিশ্বকাপের আগে তাকে সরিয়ে দেওয়াটাও হয়তো বড় চমক। আসগর আফগান দায়িত্বে ছিলেন তিন সংস্করণেই।

রশিদ খান (টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক)

এখন থেকে টেস্ট দলকে নেতৃত্ব দেবেন রহমত শাহ, ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্বে গুলবদিন নাইব আর টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক রশিদ খান।

গত ২০১৫ বিশ্বকাপের পর মোহাম্মদ নবীকে সরিয়ে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল আসগরকে। তার অধীনেই নিজেদের দ্বিতীয় টেস্টে প্রথম টেস্ট জয়ের স্বাদ পেয়েছে দলটি। এছাড়াও ৫৬ ওয়ানডের ৩১টি জিতেছে আফগানিস্তান, টি-টোয়েন্টি জিতেছে ৪৬ ম্যাচের ৩৭টিতেই।

বিশ্বকাপের আগে আগে এমন অধিনায়ক পরিবর্তন বেশ বিস্ময়কর হলেও দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান আজিজ উল্লাহ ফাজলি জানান, এমন পরিবর্তন বিশ্বকাপকে মাথায় রেখেই। বিশ্বকাপ আমাদেরকে সুযোগ করে দিচ্ছে, নয়টি টেস্ট খেলুড়ে দেশের সঙ্গে লড়াই করার। এজন্যই আমরা ভেবেছি, নেতৃত্বে পরিবর্তন আনার এখনই সময়।

এমআর/

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়