logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

বিশ্বকাপে পাক-ভারত ম্যাচ না হলে ক্ষতি ১৭০ কোটি টাকা!

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ০২ মার্চ ২০১৯, ১১:২৯ | আপডেট : ০২ মার্চ ২০১৯, ১১:৫৭

বিশ্ব ভালবাসা দিবসে পুলওয়ামায় জঙ্গিদের আত্মঘাতী হামলায় ভারতের সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) ৪৪জন সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনায় আইসিসি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ বয়কটের দাবি তুলেছে ভারতীয়রা। আর এমন দাবিকে নৈতিক সমর্থন জানিয়েছে বিসিসিআই। আর এ দাবী বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে বোর্ড কর্মকর্তারাও। 

পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ বাতিলেই তারা সন্তুষ্ট নন। বিশ্বকাপ থেকে পাকিস্তানকে বাদ দিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) কাছে প্রস্তাব করেছে ভারত। এমনকি বিশ্ব ক্রিকেটেও পাকিস্তানকে একঘরে করার দাবি জানানো হয়েছে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) বরাবর একটি চিঠিও দিয়েছে বিসিসিআই।

কিন্তু আইসিসি বিসিসিআইয়ে দাবিতে সাড়া না দিয়ে খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা বাড়ানোর কথা বলেছে। এদিকে আইসিসি যদি পাকিস্তানকে বাদ তাহলে সবচেয়ে বড় ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে তাদেরই। তাদের বাদ দেয়ায় সেই ক্ষতি হতে পারে প্রায় ১৭০ কোটি টাকা!

কিন্তু আইসিসি চাইছে ম্যাচটি যাতে সময়মতোই অনুষ্ঠিত হয় অপরদিকে ম্যাচ বর্জনে তোড়জোড় শুরু করেছে বিসিসিআই। ক্রিকেট বিশ্বের বোর্ডগুলোর সমর্থন আদায়ে কূটনৈতিক লড়াই শুরু করেছে বোর্ড।

আইসিসির তথ্যমতে, পাক-ভারত ম্যাচের টিকিট বিক্রি থেকেই আসতে পারে ৩০-৪০ কোটি টাকা। ১৩০ কোটি টাকা আয় হতে পারে টিভি সম্প্রচার, বিজ্ঞাপন এবং অন্যান্য সত্ত্ব থেকে। সবমিলিয়ে ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচ থেকে ১৭০ কোটি টাকা লাভ হতে পারে। নিয়মানুযায়ী, সব অর্থই জমা হওয়ার কথা আইসিসির ভাণ্ডারে। তাই ম্যাচটি বাতিল করে বড় ধরনের লোকসানের মুখে অবশ্যই পড়তে চাইবে না আইসিসি।

অন্যদিকে পাক-ভারত পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে ম্যাচ আয়োজন করে লোকসানে পড়বে আইসিসি ও বিসিসিআই। কারণ, তখন ভারতীয় ভূখণ্ডে ম্যাচের টিভি সম্প্রচারে বিজ্ঞাপনী আয়ে ২০০ শতাংশ জিএসটি (পণ্য-পরিষেবা কর) বসাতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার। সেক্ষেত্রে বেসরকারি টিভি চ্যানেলের পাশাপাশি আইসিসি এবং বোর্ডও ম্যাচ আয়োজন করলেও প্রবল ক্ষতির মুখে পড়তে পারে। সব মিলিয়ে ম্যাচ ঘিরে লাভ-লোকসানের এর হিসাব বেড়েই চলেছে।

এএ/এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়