logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

প্রস্তুতি ম্যাচটি কাজে লাগাতে পেরেছি: ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মিরাজ

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:০১ | আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৫০
এশিয়া কাপের সব শেষ আসরে ইনজুরির কারণে সাকিব আল হাসান-তামিম ইকবালদের ছাড়াই পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলতে হয়েছিল বাংলাদেশকে। ম্যাচটি যারা দেখেছিলেন নিশ্চয়ই শোয়েব মালিককে ফিরিয়ে দিতে মাশরাফি বিন মুর্তজা যে ক্যাচটি ধরেছিলেন সেটি ভুলবেন না তারা। দুর্দান্ত ক্যাচটি তুলে নেয়ায় ম্যাচটি টাইগারদের পক্ষে চলে আসে। কিছুক্ষণের জন্য মাঠ থেকে বিশ্রামে যান অধিনায়ক মাশরাফি। প্রচণ্ড গরম থাকার কারণে ঠিক সেসময়টিতে মাহমুদু্ল্লাহ রিয়াদও ছিলেন মাঠের বাইরে। রিয়াদের মতো স্কোয়াডে থাকলেও ইনজুরির কারণে ফিল্ডিং করেননি মুশফিকুর রহিম। মাশরাফি বিশ্রামে যাওয়ায় ওই সময়টির জন্য মেহেদী হাসান মিরাজের ওপর দলের দায়িত্ব ছেড়ে দেয়া হয়েছিল। 

bestelectronics
সেতো ছিল ক্ষণিকের গল্প। এর আগেও নেতৃত্ব দেয়ার অভিজ্ঞতা রয়েছে মিরাজের। ২০১৬ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের হাল ধরেছিলেন তিনিই। টুর্নামেন্ট জুড়ে অলরাউন্ড পারফরমেন্সের জন্য হয়েছিলেন সেরা খেলোয়াড়ও।  

চলতি বছরের শুরুতে চমক দিয়ে রাজশাহী কিংসের অধিনায়ক হিসেবে মিরাজের নাম ঘোষণা করা হয়। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরে তারুণ্য নির্ভর দলটি জায়ান্ট কিলার হিসেবে খেতাব পেয়ে যায়। পাশাপাশি অধিনায়কত্ব ও বোলিং পারফরমেন্সের কারণেও সুনাম পান ২৫ বছর বয়সী এই তারকা।

বিপিএল শেষ না হতেই নিউজিল্যান্ড সফর করছে বাংলাদেশ জাতীয় দল। প্লে-অফে অংশ নেয়ায় ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি, সহ অধিনায়ক তামিমসহ অন্যরা ঢাকা ছেড়েছেন শনিবার। তার আগে বিপিএলের সেরা চারে উত্তীর্ণ না হওয়ায় নিউজিল্যান্ড পৌঁছেছিলেন মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদসহ স্কোয়াডে থাকা অন্যরা। 

রোববার নিউজিল্যান্ড একাদশের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ দল। ওয়ানডে স্কোয়াডের সবাইকে না পেলেও টেস্ট স্কোয়াড থেকে খেলোয়াড় নিয়ে একাদশ সাজানো হয়েছিল। 

লিনক্লোনের এই ম্যাচে মুশফিক-রিয়াদরা মাঠে উপস্থিত থাকলেও এদিন দলের অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মিরাজ। যদিও শেষ পর্যন্ত দুই উইকেটে হারতে হয়েছে সফরকারীদের।

তবে বেশ কয়েকদিন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলে ওয়ানডে ম্যাচের প্রস্তুতি বেশ ভালোই হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত এই অধিনায়ক। তবে নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে খাপ খাওয়াতে পারাটাই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন মিরাজ।

তিনি বলেন, গত তিন চার দিন আমরা প্র্যাকটিস করেছি। নিউজিল্যান্ডে আমাদের তিনটা ওয়ানডে ও তিনটা টেস্ট রয়েছে। কন্ডিশনের সঙ্গে তাল মেলানোর চেষ্টা চলছে। এখানে আসার পর আমাদের খেলোয়াড়টা অনেক কঠোর পরিশ্রম করেছেন।

প্রস্তুতি ম্যাচ নিয়ে এই স্পিনিং অলরাউন্ডার বলেন, টি-টোয়েন্টি থেকে বের হয়ে ৫০ ওভারের ম্যাচটি খেলতে পারায়  বেশ সুবিধা হয়েছে আমাদের। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটিতে ব্যাটসম্যান-বোলাররা নিজেদের মানিয়ে নিতে চেষ্টা করেছেন। এটা আমাদের কাছে পরবর্তী ম্যাচগুলোতে ভালো করার জন্য বড় সুযোগ ছিল। আর সেটিকে কাজে লাগাতে পেরেছি বলে আমার মনে হয়। 

ওয়াই

bestelectronics bestelectronics
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়