• ঢাকা সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩ পৌষ ১৪২৬

ইব্রাহিমোভিচের ড্রিম টিমে মেসি, নেই রোনালদো

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:১০ | আপডেট : ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:২২
অ্যায়াক্স, জুভেন্টাস, ইন্টার মিলান, বার্সেলোনা, প্যারিস সেন্ট জার্মেইর (পিএসজি) মতো দলগুলোর হয়ে খেলেছেন জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ। সুইডেনের জাতীয় দলের হয়ে খেলা ছেড়ে দিয়েছেন অনেক দিন আগেই। ৩৭ বছর বয়সী এই স্টাইকার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে বর্তমানে এলএ গ্ল্যাক্সির হয়ে মাঠ মাতাচ্ছেন। সম্প্রতি নিজের বই ‘আইএম ফুটবল’ প্রকাশ করার ঘোষণা দিয়েছেন ইব্রাহিমোভিচ। এই বইয়ের একটি আকর্ষণীয় অংশ নিজের ইন্সট্রাগ্রামে প্রকাশও করেছেন। সেটি হচ্ছে নিজের ‘ড্রিম টিম’। অর্থাৎ সুইডিশ এই তারকা নিজের সেরা একাদশ সাজিয়েছেন। এতে জায়গা করে নিয়েছেন বর্তমান যুগের সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি। যদিও আর্জেন্টাইন মহাতারকার চীরপ্রতিদ্বন্দ্বি ক্রিশ্চিয়ানো বাদ পড়েছেন এতে। তবে এর স্পষ্ট কারণও রয়েছে, ইব্রা এই একাদশ বেছেছেন নিজের সতীর্থদের নিয়েই। পর্তুগালের ফুটবল মহারাজ রোনালদোর সঙ্গে কখনও খেলেননি তিনি। আর তাই দলেও রাখা হয়নি সিআর সেভেনকে।

মজার বিষয়টি হচ্ছে স্বপ্নের একাদশে চার জন বদলি ফুটবলারও বেশ ‘হেভিওয়েট’। ব্রাজিলিয়ান গোলকিপার জুলিও সিজার, স্প্যানিশ মিডফিল্ডার আন্দ্রে ইনিয়েস্তা, ইতালিয়ান ডিফেন্ডার ফাবিও ক্যানেভারো ইতালিয়ান ডিফেনসিভ মিডফিল্ডার জেন্নরো গাট্টুসো ও নেদারল্যান্ডোর  মিডফিল্ডার ক্লারেন্স সিড্রফ বেঞ্চ গরম করবেন।

western গোলরক্ষক

ইব্রার স্বপ্নের একাদশের ‘লাস্ট লাইন অব ডিফেন্স’ থাকছেন ইতালিয়ান কিংবদন্তি গোলরক্ষক জিয়ানলুইগি বুফন। জুভেন্টাসে পর পর দুই বছর একসঙ্গে খেলেছিলেন ইব্রা ও বুফন। ইন্টার মিলান গোলরক্ষক জুলিও সিজার। সিজারের নাম তিনি লিখেছেন, ম্যানচেস্টার ইউয়ের গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়া’র নাম কেটে।

রক্ষণভাগ 

চারজনের রক্ষণে রয়েছেন লিলিয়ান থুরাম, থিয়াগো সিলভা, আলেসান্দ্রো নেস্তা ও ম্যাক্সওয়েল। পিএসজিতে ২০১২ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত একসঙ্গে খেলেছিলেন জ্লাটাত ও সিলভা। পর পর চারবার লিগ ওয়ান ট্রফি জেতেন। ২০১০-১২ দুই বছর ইব্রা-নেস্তা খেলেছেন এসি মিলানে। 

বার্সার পাঁচজন সতীর্থ রয়েছেন তার দলে। তাদের প্রথমজন হলেন ফ্রেঞ্চ ডিফেন্ডার থুরাম। অন্যদিকে ব্রাজিলিয়ান লেফট ব্যাক ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে তিনি একসঙ্গে খেলেছেন ৪টি ক্লাবে- আয়াক্স, ইন্টার, বার্সেলোনা ও পিএসজি।

মাঝমাঠ 

মাঝমাঠে ইব্রা বেছে নিয়েছেন জাভি, প্যাট্রিক ভিয়েরা ও পাভলো নেদভেদকে। যে কোনও স্ট্রাইকারই জাভিকে সেন্ট্রাল ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডে পেলে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করবেন। জুভেন্টাস ও ইন্টার দুই ক্লাবে ফ্রেঞ্চ মিডফিল্ডার ভিয়েরার সঙ্গে খেলেছেন তিনি। ২০০৬ থেকে ২০১০ সালের মধ্যে তারা ৪টি লিগ খেতাব জিতেছিলেন। চেকপ্রজাতন্ত্রের নেদভেদ ১৩ বছর ধরে ফুটবলের সর্বোচ্চ পর্যায়ে সমানভাবে খেলে গিয়েছেন। ইব্রা তাকে পেয়েছিলেন জুভেন্টাসে।

আক্রমণভাগ

দুই প্রান্তে আক্রমণভাগে রাইট উইংয়ে জ্লাতান রেখেছেন লিও মেসিকে। বার্সায় যে বছর এসেছিলেন জ্লাতান সেই বছরই প্রথম মেসি এক মৌসুমে ৩০ গোল করেছিলেন। অনেকে মনে করেন, মেসির ওই উত্থানেই বার্সায় বেশিদিন খেলা হয়নি সুইডিশ ফরোয়ার্ডের। কিন্তু স্পপ্নের একাদশে ডানপ্রান্তে তাঁর উপরই ভরসা রেখেছেন জ্লাটান। 

মেসি ছাড়া অতীতে একমাত্র রোনালাদিনহোরই প্রশংসা শোনা গিয়েছে ইব্রাহিমোভিচের মুখে। ইন্টার মিলানে তার সঙ্গে খুব অল্পদিনই খেলার সুযোগ পেলেও ইব্রা। তবু রোনালদিনহোকেই রেখেছেন ডান প্রান্তে।

স্ট্রাইকার 

স্ট্রাইকার পজিশনে ইব্রার বাছাই তিনি নিজেই। কারণ এই জায়গায় নিজের চোখে সবসময়ই সেরা ছিলেন এই গোল মেশিন।

মূল একাদশ

জিয়ানলুইগি বুফন, লিলিয়ান থুরাম, থিয়াগো সিলভা, আলেসান্দ্রো নেস্তা ও ম্যাক্সওয়েল, জাভি, প্যাট্রিক ভিয়েরা, পাভলো নেদভেদ, লিওনেল মেসি, রোনালদিনহো, জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ।

সাইড বেঞ্চ

জুলিও সিজার, আন্দ্রে ইনিয়েস্তা, ফাবিও ক্যানেভারো, জেন্নরো গাট্টুসো ও ক্লারেন্স সিড্রফ।

আরও পড়ুন : 

ওয়াই

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়