DMCA.com Protection Status
  • ঢাকা বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬

অবসরের ঘোষণা চয়নের

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ৩১ আগস্ট ২০১৮, ২১:০৫ | আপডেট : ৩১ আগস্ট ২০১৮, ২১:১৯
আগামীকাল শনিবার নিজের শেষ ম্যাচটা খেলে ফেলবেন মামুনুর রহমান চয়ন। দীর্ঘ এক যুগের ক্যারিয়ারের ইতি টানছেন এই হকি তারকা। এশিয়ান গেমস ২০১৮ এর দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলেই লাল-সবুজের জার্সিটাকে আজীবনের জন্য তুলে রাখতে চান এই লাল-সবুজ জার্সির প্রতিনিধিত্বকারী।

তার আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের অতীত, বর্তমান আর ভবিষ্যৎ নিয়ে অনেক কিছুই তুলে ধরেন। সময় দিতে চান পরিবারকে। যে জন্যই তার এমন সিদ্ধান্ত।

চয়নের দেয়া ওই পোস্টে লেখা ছিল:

‘বাংলাদেশ জাতীয় হকি দলে দীর্ঘ ১২ বছরের বেশি সময় ধরে প্রতিনিধিত্ব করা আমার জন্য অনেক গর্বের এবং সম্মানের।

আমি জাতীয় দলে দীর্ঘদিন সহকারী অধিনায়ক তারপর অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছি।

আমার উপর আস্থা রাখার জন্য এবং বাংলাদেশ জাতীয় হকি দলের নেতৃত্ব প্রদানের সুযোগ দেয়ার জন্য বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের প্রতি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ।

হকি থেকে আমি অনেক কিছু পেয়েছি হকি আছে বলেই আজ আমি চয়ন।

আমার সকল ভক্ত, পরিবার এবং বন্ধুদের প্রতি অত্যন্ত কৃতজ্ঞ আমাকে সবসময় সমর্থন করার জন্য।

এই সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে কখনো ভালো খেলেছি কখনো খারাপ খেলেছি কখনো বাংলাদেশ দলের হয়ে গোল করতে পেরেছি কখনো পারিনাই কিন্তু আমি সবসময় চেষ্টা করেছি মাঠে আমার সর্বোচ্চ দেয়ার।

আমি আমার ভক্তদের সব সময় সব ম্যাচে খুশি করতে না পারার জন্য ক্ষমা চাইছি।

এই মুহূর্তে দল হিসেবে আমরা খুব ভাল খেলছি। আমাদের টিমের মধ্যে আত্মবিশ্বাস অনেক বেড়েছে। যে কোন দলকে আমরা গোল দেয়ার ক্ষমতা রাখি।

যদি বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সঠিক পরিকল্পনা থাকে তাহলে আমার বিশ্বাস আমরা একদিন ওয়ার্ল্ড কাপ খেলব আর সেদিন বেশি দূরে নয়।

আমি মনে করি বাংলাদেশ জাতীয় হকি দল থেকে অবসর নেয়ার এটাই আমার উপযুক্ত সময়।

কালকে কোরিয়ার সাথে ম্যাচ হবে আমার জাতীয় দলে খেলা শেষ ম্যাচ। আমার ফ্যামিলি সেটাই চায়। আমি আমার বাবা মার একমাত্র ছেলে।

আর আমারও একটাই ছেলে ওর বয়স তিন বছর। আমার ছেলেটা কিভাবে বড় হলো, কীভাবে হাঁটা শিখলো, কিভাবে কথা বলা শিখছে আমি কিছুই দেখতে পারি নাই সবকিছু ফোনে শুনতে হয়েছে। আর কত ঈদ যে দেশের বাইরে করেছি তার হিসেব নেই। এখন থেকে আমার পুরোটা সময় আমি আমার পরিবারকে কে দিতে চাই। আমার ছেলেকে দিতে চাই।

হয়তো বুকে আর জাতীয় পতাকা দৃশ্যমান থাকবে না, তবে দেশের প্রতি ভালোবাসা সব সময় থাকবে, হকির প্রতি ভালোবাসা সবসময় থাকবে।

অনেক মিস করবো আমার সাথে জাতীয় দলে খেলা সকল খেলোয়াড়দের।

কত যে মজার স্মৃতি আছে বলে শেষ করা যাবে না। অনেক মিস করবো খেলার আগে শুরু হওয়া আমাদের জাতীয় সংগীতকে।

অন্য দেশের মাটিতে দাঁড়িয়ে আমাদের নিজেদের জাতীয় সংগীত গাওয়ার অনুভূতি যে কি তা বলে বোঝানো যাবে না।

যাই হোক আপনারা সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন, আমি যেন আমার পরিবারকে নিয়ে ভালো থাকতে পারি এবং আমার কর্মস্থান বাংলাদেশ নৌ বাহিনী হকি দলকে সকল প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারি।

আমি মামুনুর রহমান চয়ন সজ্ঞানে স্বেচ্ছায় কারো প্রতি কোন অভিযোগ ছাড়া বাংলাদেশ জাতীয় হকি দল থেকে অবসর গ্রহণ করলাম। আসসালামু আলাইকুম।’

এমআর/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়