Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ১৭ জানুয়ারি ২০২২, ৩ মাঘ ১৪২৮

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭:৪২
আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭:৫৭
discover

ঢাকা টেস্ট

পঞ্চম দিনে কী অপেক্ষা করছে বাংলাদেশের সামনে?

ছবির মতোই ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের ব্যাটাররা ।। ছবি- ক্রিকইনফো

বাংলাদেশ দলের সমর্থকদের জন্য দিনটা নিশ্চয় শেষ হয়েছে দীর্ঘশ্বাস দিয়ে। টানা দুই দিন বৃষ্টির পরও এই ম্যাচটা বাঁচাতে পারবে কি না বাংলাদেশ সেটাই এখন বড় প্রশ্ন। চতুর্থ দিনে শেষ সেশনে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইন-আপ এলোমেলো করে দিয়েছেন সফরকারী স্পিনার সাজিদ খান।

স্বাগতিক ব্যাটারদের আচরণ এতটাই নাজুক ছিল তারা যেন স্বেচ্ছায় উইকেটটা দিয়ে আসতে পারলেই বাঁচে। অথচ একই দিনে ঘণ্টাখানেক আগে পাকিস্তানের ব্যাটাররা রান তুলেছে অনায়াসে ওয়ানডে মেজাজে।

বৃষ্টি বিঘ্নিত ঢাকা টেস্টে ৯৮.৩ ওভার ব্যাট করে ৪ উইকেটে ৩০০ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে পাকিস্তান। ইনিংস ঘোষণার আগে বাবর আজম খেলেন ৭৬ রানের ইনিংস। এ ছাড়া আজহার আলীর ৫৬, মোহাম্মদ রিজওয়ানের ৫৩, ফাওয়াদ আলমের ৫০, আবিদ আলীর ৩৯ ও আবদুল্লাহ শফিক করেন ২৫ রান।

আজহার-বাবরের জুটি থেকে আসে ২৪০ বলে ১২৩ রান। শেষে ফাওয়াদ-রিজওয়ানের জুটি থেকে আসে ১৮৪ বলে ১০৩ রান। প্রথম দিনের প্রথম সেশনে দুই ওপেনারকে বোল্ড করে ফেরান তাইজুল ইসলাম আর চতুর্থ দিনে বাবরকে ফেরান খালেদ আহমেদ, আজহার আলীকে ফেরান এবাদত হোসেন।

পাকিস্তানের প্রথম ইনিংসের জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের শুরুটা হয়েছে নড়বড়ে। সাদমান ইসলামের সঙ্গে ওপেন করতে আসেন অভিষিক্ত মাহমুদুল হাসান জয়।

প্রথম দুই ওভারে কোনো রান নিতে পারেননি দুজন। তৃতীয় ওভারে স্ট্রাইকে থাকা জয় পঞ্চম ওভারে এক পা এগিয়ে এসে খেলতে যান অফ ব্রেক বোলার সাজিদ খানের অফ স্টাম্পের বাইরে ঝুলিয়ে দেওয়া বল। তাতেই বিপদ ডেকে আনেন, স্লিপে থাকা বাবর আজমের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন রানের খাতা না খুলেই।

জয়কে দিয়েই শুরু করেন সাজিদ। এরপর একে একে তুলে নেন সাদমান ইসলাম, মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস, নাজমুল হোসেন শান্ত এবং মেহেদী হাসানকে।

জয়ের বিদায়ের পর নবম ওভারের শেষ বলে আরেক ওপেনার সাদমান ইসলামও (৩) সাজিদ খানের লাফিয়ে ওঠা বল খেলতে গিয়ে পয়েন্টে ক্যাচ দেন হাসান আলীর হাতে।

মাত্র ২০ রানে ২ উইকেট হারানোর পর ব্যাট করতে নামেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। তাকেও রান-আউট হয়ে সাজঘরে ফিরতে হয় মাত্র ১ রান করে। মুমিনুলের ফেরার পর দলের সেরা ব্যাটার মুশফিকুর রহিমও (৫) কাটা পড়েন সাজিদের বলে শর্ট মিড উইকেটে ফাওয়াদ আলমের হাতে ক্যাচ দিয়ে।

চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে শতক ও দ্বিতীয় ইনিংসে অর্ধশতক পাওয়া লিটন দাসও সাজিদের বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন ৬ রান করে। নাজমুল হোসেন শান্ত কিছুটা আশার আলো দেখালেও ৩০ রানে তাকেও এলবিডব্লুর ফাঁদে ফেলে সাজঘরে ফেরান সাজিদ।

দলের এমন অবস্থায় মেহেদী হাসান মিরাজও আত্মাহুতি দিয়েছেন ৫ উইকেট পাওয়া সাজিদের কাছে। মিরাজ বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরেছেন রানের খাতা খোলার আগেই।

চতুর্থ দিনে ৭৬ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে পঞ্চম দিনে ফলোঅন এড়ানোর লক্ষ্যে খেলতে নামবেন ২৩ রানে অপরাজিত থাকা সাকিব আল হাসান ও তাইজুল ইসলাম। পাকিস্তানের প্রথম ইনিংসে করা ৩০০ রান টপকাতে বাংলাদেশের দরকার আরও ২২৪ রান।

এম/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS