logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড সিরিজ

নিউজিল্যান্ডে ভরাডুবি, তরুণদের কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন জাবেদ ওমর

ছবি- ক্রিকইনফো

৩-০ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজে হারের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজেও একই দশা। নিউজিল্যান্ড সফরের সবশেষ ম্যাচ, শেষ টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ দলে ছিল না পঞ্চপাণ্ডবদের একজনও। প্রায় ১৫ বছরে এমনটা হয়েছে বাংলাদেশ দলের একাদশে। তারা থাকাকালীনও হেরেছিল বাংলাদেশ তবে দলে তরুণদের আধিক্য বাড়ার পরও সেই পুরনো চেহারা।

পঞ্চপাণ্ডব খ্যাত মাশরাফী, সাকিব, তামিম, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহকে ছাড়া কেমন খেলে বাংলাদেশ দল সেটারও একটা প্রমাণ হয়েছে অকল্যান্ডে।

নিউজিল্যান্ডে টাইগারদের এমন হতচ্ছাড়া পারফরম্যান্সের কারণ জানিয়েছেন সাবেক ওপেনার জাবেদ ওমর বেলিম।

দলে যারা তরুণ ক্রিকেটার বলে পরিচিত তাদের অনেকেই সাত-আট বছর ধরে খেলছেন জাতীয় দলে। তবু কেন সাকিব-মাশরাফীদের অভাব হয় দলে?

আরটিভি নিউজকে জাবেদ ওমর বলেন, ‘এই সময়ে এসে সাকিব-তামিমের অভাববোধ করাটা দুঃখজনক। আমরা যাদের পঞ্চপাণ্ডব বলি, তারা কেন ভালো খেলছে ওয়ানডেতে। ওরা ধারাবাহিক পারফর্ম করেছে। একইভাবে আমাদের লিটন, সৌম্য, মোসাদ্দেক, মিরাজ যারা আছে তারা কিন্তু ধারাবাহিক পারফর্ম না করার ফলেই কিন্তু আজকে আমরা সাকিব, মাশরাফীদের খুঁজছি। এরা ভালো খেললে হতাশাটাও কমে আসবে।’

নিউজিল্যান্ড সফরে দুই-তিনজন ছাড়া প্রায় সবাই নিয়মিত মুখ দলের। অনেকের বিশ্বকাপ খেলার মতো অভিজ্ঞতা রয়েছে। এরপরও কেন নিজেদের প্রমাণ করতে পারেনি?

জাবেদ ওমর বলেন, ‘দলে দুই চার জন প্লেয়ার বাদ দিলে সবাই অন্তত ৮-১০ বছর বাংলাদেশের হয়ে খেলতেছে। তামিমের প্রায় ১৪ বছর হয়ে গেছে। কিন্তু আমার মনে হয়, বাংলাদেশ টিম স্টিল যেখানে অবস্থান করছে... বলছি আমরা ওয়ানডেতে ভালো খেলি, একটা ম্যাচে জয়ের সুযোগও আসছিল। ওটা জিতলে আজকে এত বেশি সমালোচনা হতো না। তরুণদের দায়িত্ব নিতে হবে, সুযোগ আসলে সেটা লুফে নেয়া। একইভাবে টি-টোয়েন্টিতেও সুযোগ আসছিল। সেটাও একই ভাবে হেরেছি।’

দলে তরুণ বলতে পেসার শরিফুল ইসলাম, হাসান মাহমুদ আর ব্যাটসম্যান নাঈম শেখ ছিলেন। বল হাতে হাসান, শরিফুল কখনও কখনও জ্বলে উঠেছিলেন ঠিকই, নাঈম শেখ টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ভালো খেলেছেন।

‘আমি মনে করি তাদের অভিষেকটা একটু হয়ে গেছে। তবে তারা অনেক ট্যালেন্টেড। শরিফুল অনূর্ধ্ব-১৯ দলে দারুণ খেলেছে, হাসান মাহমুদও ঘরোয়া ক্রিকেটে পরীক্ষিত। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও তারা ভালো খেলবে, সেটা ধীরে ধীরে হয়ে যাবে। দুই বছর পর যখন ওদের ওপর দায়িত্ব আসবে, তখন বোঝা যাবে আসলে যে আমি সঠিক সময়ে বলটা করতে হবে, স্লগ ওভার, পাওয়ার প্লেতে কীভাবে বল করতে হবে। আমি মনে করি তাদের দারুণ সম্ভাবনা রয়েছে।’

ওয়ানডে সিরিজ খেলে টি-টোয়েন্টি সিরিজে আর খেলেননি তামিম ইকবাল। তার বদলে ওপেনিংটা নিয়মিত করেছেন নাঈম শেখ। জাবেদ ওমর মনে করেন, নাঈম এখানে ভালোই দায়িত্ব সামলে নিয়েছেন।

‘নাঈম আগেও কয়েকটা টপ ইনিংস খেলেছে। কিন্তু আমাদের সমস্যা হচ্ছে, আমাদের বেশ কয়েকজন টপ প্লেয়ার রয়েছে। যদি বলি আমি লিটন দাস, সৌম্য সরকার। তবে হ্যা তারা ভালো খেলেছে কিন্তু ধারাবাহিক না। তো নাঈম যখন সাকিব-তামিমের মতো ধারাবাহিক হবে তখনই আমরা স্ট্রাগলিং থেকে বের হতে পারব।’

এমআর/

RTV Drama
RTVPLUS