Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১০ বৈশাখ ১৪২৮

ডমিঙ্গোর কাছেও ব্যাপারটা নতুন

রাসেল ডমিঙ্গো

এই রোদ, এই বৃষ্টি। এমন অনেক কিছুই দেখা যায় নেপিয়ারে। যদিও বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচটা হয়েছে সন্ধ্যায় ফ্লাড লাইটের আলোয়।

ম্যাচ শুরুর আগেই বৃষ্টি হবে হবে বলে আভাস দিচ্ছিল নেপিয়ারের আকাশ। আগে ব্যাট করতে থাকা নিউজিল্যান্ডের যখন ১৭.৫ ওভারে ৫ উইকেটে ১৭৩ রান, তখনই বৃষ্টি নামে। তাতেই বন্ধ হয়ে যায় খেলা। এরপর নিউজিল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ের সুযোগ দেয়া হয়নি পুনরায়।

খানিক বিরতির পর ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। তখন জানা যায় ১৬ ওভারে ১৪৮ রান করতে হবে জয়ের জন্য। সেই লক্ষ্যেই খেলছিল লিটন দাস ও নাঈম শেখ।

কিন্তু ইনিংসের ১.৩ ওভারের সময় আবারও খেলা বন্ধ, আলোচনা চলে নতুন লক্ষ্য নিয়ে। দেখা যায়, ম্যাচ রেফারির সঙ্গে আলাপ করতে রাসেল ডমিঙ্গোকে।

খানিক বাদে ঘোষণা আসে, জিততে হলে বাংলাদেশকে নিতে হবে ১৬ ওভারে ১৭০ রান! এখানেই শেষ নয়, মাঝে আবারও জানানো হয় ১৭১ রান করতে হবে বাংলাদেশকে। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ ২৮ রানে হেরে এক ম্যাচ আগেই ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হারে কিউইদের কাছে।

এমন ঘটনায় ক্রিকেটার থেকে শুরু করে তোলপাড় গণমাধ্যমেও। ম্যাচ শেষে টাইগার কোচ রাসেল ক্রেইগ ডমিঙ্গো জানিয়েছেন, তার ক্ষেত্রে এমন ঘটনার সম্মুখীন এই প্রথমবার।

‘আমার জানা মতে এই ঘটনা এবারই প্রথম ঘটল আমার সামনে। এমন একটা ম্যাচ হলো, যেখানে ব্যাটসম্যানরা জানে না তারা কত রান তাড়া করতে নামছে। আমাদের কোনো ধারণা ছিল না, পাওয়া-প্লেতে কত রান নিতে হবে আমাদের। ব্যাপারটা মোটেই ভালো ছিল না।’

তবে লক্ষ্য চূড়ান্ত আগে কেন ব্যাটিংয়ে নেমেছিল বাংলাদেশ? ডমিঙ্গো এর ব্যাখ্যা দিলেও মানতে পারছেন না এমন ভুল।

‘বৃষ্টি আইনে বাংলাদেশ কত লক্ষ্য পেল এই কাগজ প্রিন্ট করতে দেরি হচ্ছিল, হিসাব-নিকাশ চলছিল বিধায়। এমনটা হলেও অপেক্ষা করতে পারছিল না খেলা শুরুর। এমনি তে বৃষ্টি, তার উপর সময় কম। সব মিলে আমরা সবাই হতাশ।’

ডমিঙ্গো আরও জানান, ‘তারা আমাকে আশ্বাস দিচ্ছিল, এক-দুই বল খেলা হতে হতে আনুষ্ঠানিক ভাবে জানিয়ে দেবে। কিন্তু এর পরও হচ্ছিল না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এমন ঘটনা সত্যিই হতাশার। তাছাড়া বৃষ্টি মাথায় বোলিং করতে হয়েছে আমাদের। বল ভেজা ছিল, মাঠ পিচ্ছিল ছিল। এই ঘটনাটাও আমার কাছে নতুন।’

ম্যাচে যে এর প্রভাব পড়েছে সেটা ম্যাচ শেষে জানিয়েছেন টাইগার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

‘আমরা জানতাম না বৃষ্টি আইনে কত রানের লক্ষ্য পেয়েছি। হুট করে স্কোর বোর্ড পরিবর্তন হওয়ায় আমরা বিভ্রান্ত হয়েছি। তবে এটা খেলারই অংশ।’

এমন খবরে কিউই অল-রাউন্ডার জিমি নিশাম টুইট করেন, ‘কত রান তাড়া করতে হবে এটা না জেনেই খেলা শুরু, এটা কীভাবে সম্ভব! পাগলাটে ব্যাপার।’

এমআর/

RTV Drama
RTVPLUS