logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

বিগ ব্যাশে কেন খেলতে পারবেন না সাকিব?

Why can't Shakib play in Big Bash?
ছবি- সংগৃহীত
দীর্ঘ এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষ করে সাকিব আল হাসানের অপেক্ষা ক্রিকেটে ফেরার। জাতীয় দলের খেলা না থাকায় যেকোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলতে সমস্যা নেই সাকিবের। তবে ব্যতিক্রম ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তথা বিগ ব্যাশ।

তার নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষের সময়ে অস্ট্রেলিয়ান ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি লিগ বিগ ব্যাশের একটি দল তাকে নেয়ার জন্য অফার করে। কিন্তু সেটি আঁটকে দিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার নীতি পুলিশ বিভাগ।

বিগ ব্যাশে কোন খেলোয়াড়কে দলে নিতে হলে সবার আগে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার নীতি পুলিশের ছাড়পত্র দরকার হয়। সাকিব সেটি পাননি।

তাই অস্ট্রেলিয়ার ফ্র্যাঞ্চাইজি আসর বিগ ব্যাশের দরজা আপাতত বন্ধই রয়েছে এই বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডারের জন্য। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার নীতি পুলিশ বিভাগ সাকিবকে বিগ ব্যাশে খেলাতে আপত্তি জানিয়েছে। এমনটাই জানিয়েছে অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যম।

নীতি অনুযায়ী শাস্তি পাওয়া ক্রিকেটারকে বিগ ব্যাশে খেলতে অনুমতি দেয় না ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার নৈতিক পুলিশ বিভাগ। তিনবার জুয়াড়ির প্রস্তাব পাওয়া সাকিব এসব গোপন করায় এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট থেকে। সেটাই বিগ ব্যাশের পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে সাকিবের।

অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমে সাকিবের একটি বক্তব্য ব্যবহার করেছে যা কদিন আগে সাকিব তার ইউটিউব চ্যানেলে বাংলাদেশি সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের উত্তরে বলেছিলেন।

‘সন্দেহ, অবিশ্বাস তৈরি হতেই পারে। সেটা কখনোই অস্বীকার করি না। তবে আমার সবার সঙ্গে যোগাযোগ ছিল, আমি কখনও এটা অনুভব করিনি। আশা করি, তারা যেভাবে আমাকে বিশ্বাস করত, এখনও সেভাবেই করবে। তবে অবিশ্বাস করাটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। মনের কোনায় সন্দেহ জাগতেই পারে। ঘটনাটাই এমন, যে কারও মনে সন্দেহ জাগতে পারে।’

নিষেধাজ্ঞা শেষ হবার পর ওয়ানডের অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষস্থান ফিরে পেয়েছেন সাকিব। এরপর টি-টোয়েন্টি অল-রাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়েও রয়েছেন দুই নম্বরে।

তাই স্বাভাবিক ভাবেই সাকিবকে দলে পেতে চাইবে যেকোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। তেমনটা চেয়েছিল বিগ ব্যাশেরও একটি দল।

এমআর/

RTVPLUS