logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

ক্রীড়া প্রতিবেদক, আরটিভি নিউজ

  ২১ অক্টোবর ২০২০, ২৩:২১
আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২০, ২৩:২৪

তামিমদের হারে ফাইনালে নাজমুলদের সঙ্গী মাহমুদউল্লাহরা

Mahmudullah XI is Nazmul's partner in the final at the rate of Tamim
ছবি- বিসিবি
জিতলো নাজমুল একাদশ, ফাইনালে উঠলো মাহমুদউল্লাহ একাদশ। বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের লিগ পর্বের শেষ ম্যাচের দিকে তাকিয়ে ছিল মাহমুদউল্লাহরা। কেন না, তামিমরা হারলেই কেবল ফাইনালে উঠবে তারা।

বাঁচা-মরার ম্যাচ  ছিল তামিম একাদশের সামনে। বৃষ্টি আইনে ৪১ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে লক্ষ্য পেয়েছিল ১৬৪ রানের। ব্যাট করতে নেমে তামিম একাদশের হতশ্রী ব্যাটিংয়ে হারই দেখতে হলো শেষ পর্যন্ত।

তামিম একাদশের ওপেনার এনামুল হক বিজয়ের ৭ রানে ফেরার পর ২২ রান করে ফেরেন মাইদুল ইসলাম অংকন। একপ্রান্ত আগলে রেখে বেশ কয়েকবার জুটি গড়ার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হন বাকিদের ব্যর্থতায়।

ইয়াসির আলী ৩৩ বল খেললেও করেন মাত্র ৬ রান। তার আগে তামিম ফেরেন ৮৫ বলে ৫৭রান করে। মোসাদ্দেক ৬ রানে ফেরেন তাসকিন আহমেদের বলে ক্যাচ দিয়ে। শেষদিকে ভরসা ছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন, আকবর আলী, শেখ মাহাদী হাসান আর মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনরা।

এদিন তারাও ব্যর্থ হন দলকে জেতাতে কার্যকরী ইনিংস খেলতে। মিঠুন ২৯, মাহাদী ৪, আকবর ১ আর সাইফউদ্দিন বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে লং অনে ক্যাচ দেন ১০ রান করে। তাতেই ফাইনালে খেলার স্বপ্ন ভাঙ্গে তামিম একাদশের। তামিমরা হারে ৭ রানে।

নাজমুল একাদশের হয়ে তাসকিন নেন ৪ উইকেট। এছাড়া ১টি করে উইকেট নেন আল-আমীন, নাসুম ও আবু জায়েদ রাহী।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নাজমুল একাদশের শুরুটা হয় হতাশা দিয়ে। দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও পারভেজ ইমন পার হতে পারেননি দশ রানের কোঠাও।

দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে মাত্র ৭ রান করে সৌম্য ক্যাচ তুলে দেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের বলে।  আরেক ওপেনার পারভেজ ইমনও ১৮ বলে ১০ রান করে ক্যাচ দেন শেখ মাহাদী হাসানের বলে।

ওয়ানডাউনে ব্যাট করতে নেমে নাজমুল হাসান শান্তও থিতু হতে পারেননি। মাত্র ৫ রান করেই সাজঘরে ফেরেন মোস্তাফিজুর রহমানের বলে ক্যাচ দিয়ে।

ইনিংসের ১৫ ওভার শেষে বৃষ্টির হানা, খেলা বন্ধ থাকে ২ ঘণ্টা ৪৫ মিনিট। বৃষ্টি বিরতি শেষে ম্যাচ নেমে আসে ৪১ ওভারে। খেলা শুরুর পর ৯০ রানের জুটি গড়েন আফিফ হোসেন ও মুশফিকুর রহিম।

আফিফ হোসেন ৬১ বলে ৪০ করে বোল্ড হন মাহাদী হাসানের বলে। খানিক বাদে মুশফিককে ৫১ (৭৫) রানে ফেরান সাইফউদ্দিন।

মুশফিককে ফিরিয়ে বল হাতে রীতিমতো ঝড় তোলেন সাইফউদ্দিন। এরপর ফেরান তৌহিদ রিদয়, রিশাদ আহমেদ ও আল-আমীন হোসেনকে ফিরিয়ে পূর্ণ করেন ৫ উইকেট। সাইফউদ্দিনের সঙ্গে জ্বলে ওঠেন মোস্তাফিজও। ৮ ওভারে ৩৩ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট।

আগামী ২৩ অক্টোবর দুপুরে ফাইনাল ম্যাচে মুখোমুখি হবে মাহমুদউল্লাহ একাদশ ও নাজমুল একাদশ।

এমআর/

RTVPLUS