তবুও নির্বাচনে থাকছেন বাদল রায়

প্রকাশ | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:৪২ | আপডেট: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২৩:০১

ক্রীড়া প্রতিবেদক, আরটিভি নিউজ
বাদল রায়

বাফুফে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্য গতকাল শনিবার প্রত্যাহারপত্র জমা দেন সভাপতি পদে মনোনয়ন নেয়া বাদল রায়। কিন্তু বাদল রায় সরে দাঁড়াতে চাইলেও সেটা হচ্ছে না।

রোববার নির্বাচন কমিশনের দেয়া চূড়ান্ত প্রার্থীর তালিকায় বৈধ প্রার্থী হিসেবে রয়েছে বাদল রায়ের নাম। এর মানে তিনি নির্বাচন করছেন সভাপতি পদের জন্য। তাই  প্রার্থীতা বাতিল না হওয়ায় সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি কাজী মো.সালাউদ্দিন ও সফিকুল ইসলাম মানিকের সঙ্গে লড়তে হবে বাদল রায়কেও।

বাদল রায় ছাড়াও আরও দুই জন সদস্য পদের জন্য মনোনয়ন নেয়া প্রার্থী তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করেন। তাদের নাম নেই চূড়ান্ত তালিকায়। তাহলে বাদল রায় কেন থেকে গেলেন?

এর কারণ হিসেবে নির্বাচন কমিশন থেকে বলা হয়েছে, ‘একজন প্রার্থী ঘোষণা দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার পর তার নাম ব্যালট পেপারে রাখা অনেকের কাছে হাস্যকর মনে হতে পারে। কিন্তু ফিফার রুলস আর বাফুফের নির্বাচনী বিধিমালা অনুযায়ী আমরা বাদল রায়ের নাম বাদ দিতে পারি না। তাই তিনি অন্য দুইজনের মতোই বৈধ প্রার্থী। যিনি বেশি ভোট পাবেন তিনিই সভাপতি নির্বাচিত হবেন।’

নিয়ম অনুযায়ী, প্রার্থীতা বাতিলের সময়সীমা ছিল শনিবার বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত। দুইজন সদস্য পাঁচটা বাজার আগেই মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। কিন্তু বাদল রায় প্রত্যাহারপত্র জমা দেন সন্ধ্যা ৬টার দিকে।

আগামী ৩ অক্টোবর রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে অনুষ্ঠিত হবে বাফুফের নির্বাচন। দুপুর ২টা থেকে বেলা ৬টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ। ১৩৯ জন কাউন্সিলর একজন করে সভাপতি ও সিনিয়র সহ-সভাপতি, চারজন সহ-সভাপতি এবং ১৫ জন সদস্যকে ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত করবেন।

আরও পড়ুন

এমআর/পি