logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৭ আশ্বিন ১৪২৭

করোনাভাইরাস: শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ, অনলাইনে শিক্ষার্থীদের ক্লাস

  স্টাফ রিপোর্টার, পটুয়াখালী

|  ২৫ মার্চ ২০২০, ১৯:২০
করোনাভাইরাস: শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ, অনলাইনে শিক্ষার্থীদের ক্লাস
বরিশাল
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেলেও একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে পটুয়াখালীর গলাচিপা বেইজ বিল্ড ডিজিটাল একাডেমি। এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ ও শিক্ষকদের উদ্যোগে গত ২১ মার্চ শনিবার থেকে অনলাইনে ক্লাস শুরু হয়েছে।

একটি বিশেষ অ্যাপসের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে এবং শিক্ষার্থীরাও স্কুল ড্রেস পড়ে প্রতিদিন নিজ নিজ বাসায় বসে যুক্ত হচ্ছে অনলাইনের ক্লাসে। এই পদ্ধতিতে ক্লাস নিতে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের ছিল অনেক আগ্রহ ও উৎসাহ।

খরচ একটু বেশি হলেও তাতে আপত্তি নেই শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের। বরং স্কুল কর্তৃপক্ষের এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন তারা। এর কারণে গলাচিপা বেইজ বিল্ড ডিজিটাল একাডেমির শতকরা ৮৫ থেকে ৯০ ভাগ শিক্ষার্থীরাই প্রতিদিন অনলাইনে ক্লাসে যুক্ত হচ্ছে।

বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, করোনাভাইরাসের কারণে ১৬ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ ও শিক্ষকগণ উদ্যোগ নেয় অনলাইনে শিক্ষার্থীদের ক্লাস নেওয়ার এবং সে মোতাবেক তারা শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের পূর্ণ সমর্থন পাওয়ার পর একটি বিশেষ অ্যাপসের মাধ্যমে ২১ মার্চ থেকে অনলাইনে ক্লাস শুরু করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। প্রথম পর্যায়ে অষ্টম ও নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের ইংরেজি, অংক ও বিজ্ঞানের ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত অনলাইনের ক্লাসে যুক্ত হয় শিক্ষার্থীরা।

সপ্তাহে প্রতিদিন ইংরেজি বিষয়ের ক্লাসসহ অন্য দু’টি বিষয় অংক ও বিজ্ঞানের ক্লাস তিন দিন, তিন দিন করে নেওয়া হয়।

গলাচিপা বেইজ বিল্ড ডিজিটাল একাডেমির অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী নওশীন ইসলাম ও মুফতী তাজওয়ার নাফি বলেন, ‘অনলাইনে ক্লাস করতে খুবই ভাল লাগছে আমাদের। স্কুল বন্ধের মধ্যে এভাবে ক্লাস নিলে আমাদের পড়াশুনায় আর কোনও বিঘ্ন ঘটবে না। বন্ধের মধ্যে সব স্কুলেরই উচিৎ এভাবে অনলাইনে শিক্ষার্থীদের ক্লাস নেওয়া।’

অভিভাবক নারসিন আক্তার ডেইজী বলেন, ‘স্কুল কর্তৃপক্ষের এ উদ্যোগকে ইতোমধ্যেই আমরা সাধুবাদ জানিয়েছি। এটি একটি ভাল ও সুন্দর উদ্যোগ। এ ধরণের উদ্যোগ দেশের জন্য আশার আলো এবং এটা সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের থাকা প্রয়োজন।’
 
গলাচিপা বেইজ বিল্ড ডিজিটাল একাডেমির প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম জানান, খরচ বেশি হওয়ায় অনলাইন ক্লাস চালু করার আগে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মতামত নেওয়া হয়েছে। এতে স্কুল কর্তৃপক্ষের চেয়ে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার ক্ষেত্রে আরও বেশি উৎসাহী এবং এ উদ্যোগকে অভিভাবকরা স্বাগত জানিয়েছেন। সকাল ১০টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত অনলাইনের ক্লাস হচ্ছে এবং সপ্তাহে প্রতিদিন ইংরেজি বিষয় থাকবে, আর অংক ও বিজ্ঞানের ক্লাস সপ্তাহে তিনদিন করে নেওয়া হবে। প্রথম পর্যায়ে অষ্টম ও নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে এবং পরবর্তীতে সব শ্রেণীর ক্লাসই অনলাইনে যুক্ত করা হবে।

বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি পারভেজ নাদির রেজা শোভন জানান, তারাই পটুয়াখালী জেলায় প্রথম অনলাইনে ক্লাস  নেওয়ার এ উদ্যোগটি গ্রহণ করেছেন। পৃথিবীর বড় বড় বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যে প্রযুক্তি ব্যবহার করে অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছে, ঠিক তারাও সেভাবে বিশেষ একটি অ্যাপস ব্যবহার করে শিক্ষার্থীদের ক্লাস নিচ্ছেন এবং শিক্ষার্থীরাও অনলাইনে ভিডিও’র মাধ্যমে যুক্ত হচ্ছে ক্লাসে। পরীক্ষাও অনলাইনে নেওয়া হবে।  

এ ব্যাপারে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর হোসাইন জানান, ‘ ওই স্কুল কর্তৃপক্ষের এ উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। এ ধরনের উদ্যোগ দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নেওয়া উচিত। তাহলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও শিক্ষার্থীদের পড়াশুনায় বিঘ্ন সৃষ্টি হবে না এবং হবে না কোনও সেশন জটও। তাছাড়া এ ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হলে শিক্ষার্থীরাও অযথা বাইরে ঘোরাফেরা করতে পারবে না। তাদের ঘরের মধ্যে থাকতে হবে।

এজে

RTVPLUS

সংশ্লিষ্ট সংবাদ : করোনাভাইরাস

আরও
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ৩৪৪২৬৪ ২৫০৪১২ ৪৮৫৯
বিশ্ব ৩,০১,২৬,০২০ ২,১৮,৭৪,৯৫৭ ৯,৪৬,৭১২
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বিশেষ প্রতিবেদন এর সর্বশেষ
  • বিশেষ প্রতিবেদন এর পাঠক প্রিয়