Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

কারাবন্দিদের কড়াকড়ি ঈদ, খাবারের মেন্যুতে যা থাকছে

Strict Eid of the inmates, polao-meat is being organized as much as possible
কারাবন্দিদের খাবার।। ফাইল ছবি

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার নিয়ন্ত্রণে কারাগারে এবারও ঈদুল আজহায় বন্দিরা নিজ নিজ ওয়ার্ডে ঈদ জামাতে নামাজ আদায় করবেন। গত বছর দুই ঈদ ও এবছর ঈদুল ফিতরেও ছিল এমন কড়াকড়ি। এছাড়া প্রতিবারের মতো বন্দিদের জন্য থাকছে ঈদ উপলক্ষে বিশেষ খাবার। সকালে থাকবে পায়েস, মুড়ি। দুপুর ও রাতে ঈদের বিশেষ খাবারের পাশাপাশি দেওয়া হবে পান-সুপারি। স্বজনদের সঙ্গে বন্দিদের দেখা-সাক্ষাৎ আগের মতোই বন্ধ থাকছে। তবে নিয়মানুযায়ী স্বজনরা বন্দিদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে একটি নির্দিষ্ট টাইমে কথা বলতে পারবেন। সেটা চলমান থাকলেও শুধু সাধারণ বন্দিদের জন্য প্রযোজ্য।

সোমবার (১৯ জুলাই) কারা অধিদপ্তর থেকে একটি সূত্র জানান, দেশের ৬৮টি কারাগারে প্রায় ৮০ হাজার বন্দি আছেন। বন্দিদের জন্য প্রতিবারের মতো এবারও ঈদে বিশেষ খাবার দেওয়া হবে। পোলাও, রোস্ট, গরু, খাসি, মাছের পাশাপাশি থাকবে মিষ্টান্ন।

এছাড়া করোনাভাইরাস ঊর্ধ্বগতির কারণে গত বছরের দুই ঈদ ও চলতি বছর ঈদুল ফিতরের মতো বন্দিরা ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ঈদ জামাতে নামাজ আদায় করবেন। ইতোমধ্যে কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ঈদুল আজহা উপলক্ষে স্টাফ ও বন্দিদের জন্য আলাদা আলাদা বাণী দিয়েছেন।

কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মোমিনুর রহমান মামুন বলেন, সারাদেশের ৬৮টি কারাগারে বন্দিদের জন্য ঈদ উপলক্ষে বিশেষ খাবার দেওয়া হবে। সরকারের নির্দিষ্ট বরাদ্দ থেকে বন্দিদের বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া দেশে করোনাভাইরাস বিস্তারের কারণে আগের নির্দেশনা অনুযায়ী সাধারণ বন্দিরা তাদের স্বজনদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

কারা অধিদপ্তরে ঈদের জামাতে নামাজ আদায় করে একটি কারাগার পরিদর্শনে যাবেন তিনি। সেখানে বন্দিদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের (কেরাণীগঞ্জ) সিনিয়র জেল সুপার সুভাষ কুমার ঘোষ জানান, বরাবরের মতো বন্দিদের জন্য ঈদের দিন বিশেষ খাবার দেওয়া হবে। সকালে পায়েস, মুড়ি, দুপুরে মোরগ-পোলাও গরুর মাংস এবং অন্য ধর্মাবলম্বীদের জন্য খাসির মাংসের পাশাপাশি কোমল পানীয়, মিষ্টি, সালাদ থাকবে। রাতে ভাত, মাছ, সবজি ও ডিম।

ময়মনসিংহ বিভাগের ডিআইজি প্রিজন্স মো. জাহাঙ্গীর কবির বলেন, ঈদে বন্দিদের জন্য পোলাও, রোস্ট, গরু ও খাসির মাংসের পাশাপাশি মিষ্টি জাতীয় খাবার থাকবে। যারা গরুর মাংস খায় না তাদের দেওয়া হবে খাসির মাংস। পাশাপাশি পান-সুপারিও থাকবে।

কারা অধিদপ্তর থেকে আরও একটি সূত্র জানায়, সব কারাগারে ঈদে বন্দিদের জন্য একই সরকারি বরাদ্দ থেকে বিশেষ খাবার দেওয়া হয়। মেন্যুতে বিশেষ খাবারে পোলাও-মুরগি, গরু-খাসি বাধ্যতামূলক থাকে। এছাড়া এগুলো বাদে ওই বরাদ্দ থেকে কোনো কোনো কারাগারে দই, কোনো কোনো কারাগারে কোমলপানীয়র পাশাপাশি মিষ্টি ও পান-সুপারি থাকে।

কেএফ/পি

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS